X
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২
১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

দুই বছর পর জমে উঠলো চড়কের মেলা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি
১৫ এপ্রিল ২০২২, ১৩:০৯আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২২, ১৩:৩২

রাজবাড়ীতে প্রায় ৩০ বছর ধরে চড়ক পূজা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। করোনা মহামারির কারণে দুই বছর বন্ধ থাকার পর এবার এই পূজা ও মেলার আয়োজন করা হয় বৃহস্পতিবার (১৪ এপ্রিল)। মেলায় ছিল মানুষের উপচে পড়া ভিড়।

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার ছোট ভাকলা ইউনিয়নের কাটাখালী প্রেমচোন ফকিরের বাড়ির পাশের মাঠে চড়ক পূজা ও গ্রামীণ মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

চড়ক পূজার মূল আকর্ষণ পিঠে বড় বড়শি দিয়ে আটকিয়ে চরকিতে ঘোরা। এই পূজা ও মেলা দেখতে সেই সঙ্গে গ্রামীণ তৈজসপত্র কিনতে অনেক দূর-দূরান্ত থেকে আসে হাজার হাজার মানুষ।

বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী এই মেলা ও পূজা অনুষ্ঠিত হয়। বিকালে মেলার মাঠে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা চড়ক পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেন। পূজাকে কেন্দ্র করে সেখানে মেলা বসানো হয়। স্থানীয় ভাষায় এই মেলাকে বলা হয় ‘পিঠফোঁড়া মেলা’। এর আগে চড়ক পূজা করা হয়। পূজার পাশাপাশি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কালী, শীতলা ও বুড়ি দেবীর পূজা করা হয়। একই সঙ্গে এবার তিন জনের পিঠ ফুটো করে চড়কে ঘোরানো হয়েছে।

মেলায় আগত সুজিত কুমার বলেন, ‘আমি এই মেলা ছোটবেলা থেকেই দেখে আসছি। মহামারি করোনার কারণে গত দুই বছর মেলা হয়নি। এবার হওয়ায় ভালোই লাগছে। সপরিবারে এসেছি। ভগবানের কাছে প্রার্থনা করেছি।’

কয়েকজন দর্শনার্থী জানান, শরীরের মধ্যে বড়শি ও শিক বিধিয়ে চরকিতে ঘোরা বিষয়টি শুনলেই গা শিউরে ওঠে। এই দৃশ্য দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসে মানুষ।

মেলা উদযাপন কমিটির সভাপতি বাদল ফকির জানান, চড়ক পূজায় যাদের বড়শি বিধিয়ে চরকিতে ঘোরানো হয়, তারা এক সপ্তাহ ধরে উপবাস করেন। প্রতি বছর হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা বাংলা বছরের চৈত্র সংক্রান্তির মাঝামাঝি সময় প্রায় ৩০ বছর ধরে এই চড়ক পূজা ও মেলার আয়োজন করে। তারই অংশ হিসেবে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলা উপভোগ করতে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার দর্শনার্থীর ভিড় জমতে দেখা যায়। সেই সঙ্গে চড়ক মেলাকে কেন্দ্র করে মেলায় রকমারি দোকান বসে। 

তিনি আরও বলেন, এই মেলাটি রাজবাড়ী জেলার মধ্যে সবচেয়ে পুরাতন এবং সবচেয়ে বেশি লোকের সমাগম হয়। সবােই শান্তিপ্রিয়ভাবে মেলায় এসে আনন্দ উপভোগ করেন।

/এসএইচ/
অভিবাসী-উদ্বাস্তুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার উদ্যোগ
অভিবাসী-উদ্বাস্তুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার উদ্যোগ
যেসব কারণে এসএসসিতে দেশসেরা যশোর বোর্ড
যেসব কারণে এসএসসিতে দেশসেরা যশোর বোর্ড
দ্বিপাক্ষিক বিমান চলাচলে চুক্তির খসড়া অনুমোদন
দ্বিপাক্ষিক বিমান চলাচলে চুক্তির খসড়া অনুমোদন
কসোভো যেতে সরকারি কর্মকর্তাদের ভিসা লাগবে না
কসোভো যেতে সরকারি কর্মকর্তাদের ভিসা লাগবে না
সর্বাধিক পঠিত
‘বিএনপিকে চালায় আ.লীগ, আমরা না চাইলে নির্বাচনে আসতে পারবেন না’
‘বিএনপিকে চালায় আ.লীগ, আমরা না চাইলে নির্বাচনে আসতে পারবেন না’
ইতালিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা
ইতালিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা
মরক্কোর বিপক্ষে হারের পর বেলজিয়ামে দাঙ্গা
মরক্কোর বিপক্ষে হারের পর বেলজিয়ামে দাঙ্গা
চাকরি ছাড়ছেন ডিএনসিসির পাঁচ ভেটেরিনারি কর্মকর্তাই!
চাকরি ছাড়ছেন ডিএনসিসির পাঁচ ভেটেরিনারি কর্মকর্তাই!
মঙ্গলবার বাজারে আসছে দুই ও পাঁচ টাকার নতুন নোট
মঙ্গলবার বাজারে আসছে দুই ও পাঁচ টাকার নতুন নোট