X
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪
১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

আমবয়ানে শুরু ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব

রায়হানুল ইসলাম আকন্দ, গাজীপুর
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৮:৩৮আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৮:৪৬

তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরুব্বি মাওলানা সাদ আহমদ কান্ধলভীর অনুপস্থিতিতেই টঙ্গীর তুরাগ তীরে শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। মাওলানা সাদের ছোট ছেলে মাওলানা ইলিয়াস বিন সাদ কান্ধলভীর আমবয়ানের মধ্য দিয়ে ইজতেমা শুরু হয়। মাওলানা সাদের বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী জুমার জামাতে ইমামতি করবেন। আগামী রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ৫৭তম বিশ্ব ইজতেমা।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত অর্ধশতাধিক দেশের ৩ হাজার ২৬৩ জন বিদেশি মেহমান ময়দানে তাদের জন্য নির্ধারিত নিবাসে অবস্থান নিয়েছেন বলে জানান তারা। ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে বিশ্বের শতাধিক দেশের প্রায় ১২ থেকে ১৩ হাজার বিদেশি মেহমান আখেরি মোনাজাতে অংশগ্রহণ করবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বিরা। দেশের ৬৪টি জেলার মুসল্লিরা তাদের জন্য নির্ধারিত খিত্তায় অবস্থান নিয়ে ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল রয়েছেন। ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বি প্রকৌশলী শাহ মোহাম্মদ মুহিবুল্লাহ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে কখন কারা বয়ান করবেন

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বাদ ফজর বয়ান করেন দিল্লির মাওলানা ইলিয়াস বিন সাদ কান্ধলভী। তিনি মাওলানা সাদ আহমেদ কান্ধলভীর বড় ছেলে। তার বয়ান বাংলায় অনুবাদ করেন বাংলাদেশের মাওলানা মনির বিন ইউসুফ। এদিন সকাল ১০টায় তালিমের বয়ান (মৌজু) করবেন দিল্লির মাওলানা ইলিয়াস বিন সাদ কান্ধলভী। জুমার আগে জুমার ফাজায়েল সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বয়ান করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মনির বিন ইউসুফ। বাদ জুমা আরবি ভাষায় বয়ান করবেন শেখ মোফলে। তার বয়ান বাংলায় অনুবাদ করবেন শেখ আব্দুল্লাহ মনসুর। বাদ আসর বয়ান করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মোশাররফ হোসেন। বাদ মাগরিব বয়ান করবেন দিল্লির মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী। তার বয়ান বাংলায় তরজমা করবেন মাওলানা জিয়া বিন কাশেম।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বাদ ফজর বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা সাঈদ বিন সাদ কান্ধলভী। তার বয়ান বাংলায় অনুবাদ করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মুফতি ওসামা ইসলাম। এদিন সকাল সাড়ে ১০টায় মোয়াল্লেমদের উদ্দেশে তালিমে হালকায় বয়ান রাখবেন ভারতের মাওলানা আব্দুল আজিম। বাদ জোহর বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা মোহাম্মদ শরিফ। তার বয়ান বাংলায় তরজমা করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মাহমুদুল্লাহ। বাদ আসর বয়ান করবেন পাকিস্তানের মাওলানা ওসমান আলী। তার বয়ান বাংলায় অনুবাদ করবেন মাওলানা আজিম উদ্দিন। বাদ মাগরিব বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা মুফতি ইয়াকুব আলী। তার বয়ান বাংলায় তরজমা করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মনির বিন ইউসুফ।

ইজতেমা ময়দান (ফাইল ছবি)

শেষ দিন রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা মুফতি মাকসুদ। তার বয়ান বাংলায় অনুবাদ করবেন বাংলাদেশের মাওলানা শেখ আব্দুল্লাহ মনসুর। এর পরেই হেদায়েতের বয়ান ও দোয়া পরিচালনা করবেন দিল্লির মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী। তার হেদায়েতি বয়ানের বাংলা অনুবাদ করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মুফতি মনির বিন ইউসুফ। বিশ্ব ইজতেমা দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়কারী সায়েম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৫ জন মুসল্লি

দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সায়েম আরও জানান, এ পর্যন্ত পাঁচ জন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের প্রত্যেকেই বার্ধক্যজনিত কারণে মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে শেরপুর সদর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মোহাম্মদ আবুল কালাম (৬৫), বিকাল ৩টা ৪০ মিনিটে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের হেলিম মিয়া (৬৫) ও বিকাল ৪টা ২০ মিনিটে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার শিবনগর এলাকার জহির উদ্দিন (৭০) মারা যান। দুজন মুসল্লির পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার ভোরে ইজতেমা ময়দানে আসার পথে আব্দুল্লাহপুর মাছ বাজার এলাকায় বাসের ধাক্কায় আবুল কাশেম (৬৫) নামের এক মুসল্লি মারা গেছেন। ইজতেমা মাঠে নিহতদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সঠিক তথ্য ও ঠিকানা নিশ্চিত হয়ে তাদের স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বাদ ফজর মুসল্লিদের উদ্দেশে এস্তেকবালি (স্বাগত) বয়ান করেন নিজামুদ্দিন মারকাজের মাওলানা শরিফ আহমেদ। তার বয়ান বাংলায় অনুবাদ করেন বাংলাদেশের মাওলানা শেখ আব্দুল্লাহ মনসুর। বাদ জোহর বয়ান করেন পাকিস্তানের মাওলানা হারুনুর রশিদ। তার বয়ান বাংলায় অনুবাদ করেন মাওলানা আজিম উদ্দিন। বাদ আসর বয়ান করেন ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বি ওয়াসিফুল ইসলাম। বাদ মাগরিব বয়ান করেন ভারতের মাওলানা আব্দুস সাত্তার। তার বয়ান বঙ্গানুবাদ করেন মাওলানা মুফতি জিয়া বিন কাশেম।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) কমিশনার মাহবুব আলম জানান, প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বেও জিএমপির পক্ষ থেকে ৬ হাজার পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পাশাপাশি র‌্যাব, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য, ট্যুরিস্ট পুলিশ, নৌপুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় ১৫ হাজার সদস্য মোতায়েন রয়েছে।

/কেএইচটি/
সম্পর্কিত
ইজতেমা শেষে ফিরছেন মুসল্লিরা, বেনাপোলে ভিড়
আখেরি মোনাজাতে লাখো মুসল্লি, শান্তি-সমৃদ্ধি কামনা
আখেরি মোনাজাতে শেষ হবে এবারের বিশ্ব ইজতেমা
সর্বশেষ খবর
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
সরকার সুষম ও টেকসই উন্নয়নে বিশ্বাস করে: আরাফাত
সরকার সুষম ও টেকসই উন্নয়নে বিশ্বাস করে: আরাফাত
এমপি আজীমের লাশের খণ্ডাংশের খোঁজে তল্লাশি, চলবে শনিবারও
এমপি আজীমের লাশের খণ্ডাংশের খোঁজে তল্লাশি, চলবে শনিবারও
এমপি আনার হত্যায় অংশ নেওয়া এই ট্রাকচালক কে?
এমপি আনার হত্যায় অংশ নেওয়া এই ট্রাকচালক কে?
সর্বাধিক পঠিত
নেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
এমপি আজীম হত্যাকাণ্ডনেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
আদালতে কেঁদে সিলিস্তার প্রশ্ন, আমি কীভাবে আসামি হলাম?
আদালতে কেঁদে সিলিস্তার প্রশ্ন, আমি কীভাবে আসামি হলাম?
এমপি আজিমের খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধারের দাবি কলকাতা পুলিশের
এমপি আজিমের খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধারের দাবি কলকাতা পুলিশের
যুদ্ধবিমান উড্ডয়নের নির্দেশ তাইওয়ানের
যুদ্ধবিমান উড্ডয়নের নির্দেশ তাইওয়ানের
ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কা, ১ নম্বর সতর্কতা
ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কা, ১ নম্বর সতর্কতা