X
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
২ বৈশাখ ১৪৩১
মুন্সীগঞ্জের শহীদ মিনার

শহীদ মিনার চত্বরে অটোরিকশার স্ট্যান্ড, ছড়িয়ে আছে ফেনসিডিলের বোতল  

সুমিত সরকার সুমন, মুন্সীগঞ্জ
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৮:০১আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৮:০১

কয়েকদিন পরই মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। বছরে শুধু এই একটি দিন; অর্থাৎ ২১ ফেব্রুয়ারি এলেই শুরু হয় শহীদ মিনার ধোয়ামোছার কাজ। বাকি দিনগুলোতে অযত্ন-অবহেলায় পড়ে থাকে মুন্সীগঞ্জের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। রক্ষণাবেক্ষণের অভাব ও দায়িত্বশীলদের নজরদারি না থাকায় চত্বরে হয়েছে অটোরিকশার স্ট্যান্ড। সন্ধ্যায় বসে মাদকসেবীদের আড্ডা। তাদের ফেলা ফেনসিডিলের বোতল ও ময়লা-আবর্জনায় চার পাশে স্তূপ তৈরি হয়েছে। দেখে মনে হয়, যেন এসব দেখার কেউ নেই।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিকালে সরেজমিনে জেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে দেখা গেছে, শহীদ মিনারের সামনের অংশজুড়ে সিএনজি অটোরিকশার স্ট্যান্ড। জুতা পায়ে মূল বেদির সিঁড়িতে বসে মোবাইলে আড্ডায় ব্যস্ত কয়েকজন শিক্ষার্থী। মিনারের বাঁ পাশের অংশজুড়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে ফেনসিডিলের বোতল। বাঁ পাশে ছড়িয়ে আছে মাদকের সিরিঞ্জ এবং পেছনের অংশে মলমূত্র ত্যাগ করছে অনেকেই।

শহীদ মিনারের পেছনের অংশে মলমূত্র ত্যাগ করছে অনেকে

জেলার সাংস্কৃতিক কর্মী, সচেতন নাগরিক সমাজ ও শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি এলেই শহীদ মিনার এলাকা সাজানো হয়। মাতৃভাষা দিবসে ফুলে ফুলে ভরে ওঠে মূল বেদি। তবে ২১ ফেব্রুয়ারির পরদিন থেকে আর কেউ খোঁজখবর রাখে না। মাসের পর মাস অযত্নে-অবহেলায় পড়ে থাকায় আবর্জনার স্তূপ তৈরি হয়। মানুষের আসা-যাওয়ায় নোংরা হয়ে যায় শহীদ মিনার এলাকা। প্রতি বছর এভাবে চলে। আসছে মাতৃভাষা দিবসের আগের দিন ধোয়ামোছা করা হবে। তখন সবাই ফুল দিতে আসবেন। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জেলার মানুষের দাবির ভিত্তিতে ২০১১ সালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন সংলগ্ন শহরের প্রাণকেন্দ্রের পুরোনো কাচারি এলাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়। মিনারের চার পাশে সড়ক। তবে কোনও সীমানাপ্রাচীর নেই। রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে। এই সুযোগে এখানে গড়ে উঠেছে অটোরিকশা স্ট্যান্ড ও মাদকসেবীদের আড্ডা।

বাঁ পাশে ছড়িয়ে আছে মাদকের সিরিঞ্জ ও ফেনসিডিলের বোতল

শহীদ মিনার এলাকায় কথা হয় সাংস্কৃতিক কর্মী মো. ফরিদ হোসেনের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘কেবল ২১ ফেব্রুয়ারি এলেই ধোয়ামোছা করা হয়। সারা বছর অযত্নে-অবহেলায় পড়ে থাকে। শহীদ বেদিতে জুয়া খেলা হয়। পেছনে মলমূত্র ত্যাগ করে পবিত্রতা নষ্ট করা হয়। সন্ধ্যায় মাদকসেবীদের আড্ডা বসে। আশপাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে ফেনসিডিলের বোতল এবং মাদকের সিরিঞ্জ। যেন দেখার কেউ নেই।’

শহীদ মিনারে সারাদিন জুতা-স্যান্ডেল পরে মানুষ আড্ডা দেয় উল্লেখ করে সরকারি হরগঙ্গা কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শাওন খান বলেন, ‘চত্বরজুড়ে মাদকের সিরিঞ্জ ও ফেনসিডিলের বোতল ছড়িয়ে আছে। পেছনে মলমূত্র ত্যাগ করছে মানুষ। সামনে অটোরিকশা স্ট্যান্ড। জুতা-স্যান্ডেল পরে ছেলেমেয়েরা শহীদ বেদিতে আড্ডা দেয়। কেউ কেউ জুতা পায়ে সেলফি তোলে। এ নিয়ে দায়িত্বশীলদের নজর নেই। আমরা একদিন ফুল দিয়ে ভালোবাসা জাগাতে চাই না। সারা বছর শহীদ মিনারকে হৃদয়ে ধারণ করতে চাই।’

মিনারের বাঁ পাশের অংশজুড়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে ফেনসিডিলের বোতল

পুরো শহীদ মিনার এলাকা মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীদের আখড়ায় পরিণত হয়েছে জানিয়ে সাংস্কৃতিক কর্মী মুশফিক সিহাব বলেন, ‘২১ ফেব্রুয়ারির পরদিন থেকে এখানে মাদক ব্যবসায়ীদের আড্ডা বসে। সারা বছর তা চলতে থাকে। সামনে গাড়ির স্ট্যান্ড থাকায় অবাধে যাতায়াত সবার। মলমূত্র ত্যাগ করে সম্মানহানি করা হয়। এসব দেশে খুবই লজ্জিত ও হতভম্ব আমরা। অথচ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের শহীদ মিনার রক্ষণাবেক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকার কথা ছিল। তারা এই ব্যাপারে উদাসীন বলে আমার মনে হয়।’

শহীদ মিনারের পবিত্রতা রক্ষায় সবার এগিয়ে আসা উচিত উল্লেখ করে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শহিদ-ই-হাসান তুহিন বলেন, ‘এই জায়গা যারা অপবিত্র করছে, অটোরিকশার স্ট্যান্ড কিংবা মাদকের আড্ডা বসাচ্ছে; তারাও কিন্তু বাঙালি। তাদের হৃদয়ে কেন রক্তক্ষরণ হয় না, আমি বুঝি না। আমাদের প্রাণের এই স্থান সারা বছর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য প্রশাসন ও সবার কাছে জোর দাবি জানাই।’

শহীদ মিনারের সামনের অংশজুড়ে সিএনজি অটোরিকশার স্ট্যান্ড

সারা বছর শহীদ মিনার অগোছালো অবস্থায় পড়ে থাকে জানিয়ে সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার এম এ কাদের মোল্লা বলেন, ‘এর রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য কেউ আছে বলে আমার মনে হয় না। যদি রক্ষণাবেক্ষণ করা হতো, তাহলে সেখানে মাদকের আড্ডা বসানোর সুযোগ পেতো না কেউ।’

রক্ষণাবেক্ষণের ব্যাপারে জানতে চাইলে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আফিফা খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘শহীদ মিনার আমাদের চেতনা, অনুপ্রেরণা এবং অনুভূতির স্থান। দ্রুত সময়ের মধ্যে এটি রক্ষণাবেক্ষণের ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবো। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে চার পাশে সীমানাপ্রাচীর দেওয়ার ব্যাপারে জেলা প্রশাসককে জানাবো। একইসঙ্গে মাদকসেবীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এএম/
সম্পর্কিত
তাসখন্দে শহীদ মিনার স্থাপনের প্রস্তাব
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের রজতজয়ন্তী পালন করবে ইউনেস্কো
নারী দিবসের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্বলন
সর্বশেষ খবর
লম্বা ছুটির পর আজ ব্যাংক খোলা
লম্বা ছুটির পর আজ ব্যাংক খোলা
মোস্তাফিজের খরুচে বোলিং ছাপিয়ে চেন্নাইয়ের জয়
মোস্তাফিজের খরুচে বোলিং ছাপিয়ে চেন্নাইয়ের জয়
কেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বাড়াতে চায় বাংলাদেশ?
কেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বাড়াতে চায় বাংলাদেশ?
আর্সেনালও শীর্ষে ওঠার সুযোগ হারালো
আর্সেনালও শীর্ষে ওঠার সুযোগ হারালো
সর্বাধিক পঠিত
‘যাওয়ার আগে দস্যুদের প্রধান জাহাজের ক্যাপ্টেনের হাতে একটি চিঠি দেয়’
‘যাওয়ার আগে দস্যুদের প্রধান জাহাজের ক্যাপ্টেনের হাতে একটি চিঠি দেয়’
সোমালিয়ার জলদস্যুদের কবল থেকে ২৩ নাবিক ও জাহাজ মুক্ত
সোমালিয়ার জলদস্যুদের কবল থেকে ২৩ নাবিক ও জাহাজ মুক্ত
কেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বাড়াতে চায় বাংলাদেশ?
কেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বাড়াতে চায় বাংলাদেশ?
মুক্তিপণের বিনিময়ে মুক্ত হলো এমভি আবদুল্লাহ
মুক্তিপণের বিনিময়ে মুক্ত হলো এমভি আবদুল্লাহ
মোস্তাফিজের খরুচে বোলিং ছাপিয়ে চেন্নাইয়ের জয়
মোস্তাফিজের খরুচে বোলিং ছাপিয়ে চেন্নাইয়ের জয়