X
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪
৯ বৈশাখ ১৪৩১

পলিনেট হাউজ পদ্ধতি: সাতক্ষীরায় কৃষিতে নবদিগন্তের সূচনা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৯:৪৭আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:৩৯

প্রযুক্তির উৎকর্ষতার ছোঁয়া লেগেছে কৃষিকাজেও। সেটির ব্যবহারে বারোমাসি সবজির ফলন বেড়েছে। দেশের খাদ্য চাহিদা পূরণ করার পাশাপাশি কৃষকের মুখেও হাসি ফুটছে। তেমনি ক্লাইমেট স্মার্ট প্রযুক্তির মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন প্রকল্পের আওতায় ‘পলিনেট হাউজ পদ্ধতি’ ব্যবহার করে কৃষিতে নবদিগন্তের সৃষ্টি করেছে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা আচিমতলা গ্রামের বেকার যুবক এসএম রায়হান উল্লাহ আওরঙ্গী।

পলিনেট হাউজে উন্নত মানের পলি ওয়ালপেপার ব্যবহার করায় সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি ভেতরে প্রবেশ করতে পারে না এবং প্রাকৃতিক দূর্যোগেও ফসল থাকে অক্ষত। এ ছাড়াও প্লাস্টিক দিয়ে বানানো এই ঘরে রয়েছে ডিপ ও স্প্রিংকলার ইরিগেশনের সুবিধা। উৎপাদিত ফসলের প্রয়োজনভেদে এই প্রযুক্তিগুলো ব্যবহার করে জমিতে সেচ দেওয়া যাবে। এই প্রযুক্তিতে আরও রয়েছে অত্যাধুনিক বালাই ব্যবস্থাপনার সুবিধা। পলিনেট হাউজে পোকা-মাকড় আক্রমণ করতে না পারায় কীটনাশক ব্যবহার করতে হয় না। যার ফলে এ প্রযুক্তির মাধ্যমে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদন করা সম্ভব।

‘পলিনেট হাউজ পদ্ধতি’ প্রযুক্তির মাধ্যমে ভারী বৃষ্টি, তীব্র তাপদাহ, কীটপতঙ্গ, ভাইরাসজনিত রোগ ইত্যাদির মতো প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও নিরাপদ থাকবে শাক-সবজি এবং ফলমূলসহ সব ধরনের কৃষি উৎপাদন। কৃষি বিভাগের তথ্যমতে, পাইলট প্রকল্পের মাধ্যমে সরকারি উদ্যোগে দেশের সব বিভাগে অন্তত একটি করে পলিনেট হাউজ নির্মাণ করে দেওয়া হচ্ছে। তা দেখেই উদ্বুদ্ধ হয়ে উঠছেন কৃষকরা। যেমনটা হয়েছেন সাতক্ষীরার এসএম রায়হান উল্লাহ আওরঙ্গী।

সাতক্ষীরায় এই প্রথম পলিনেট হাউজের মাধ্যমে উন্নত প্রযুক্তিতে ২০ শতক জমিতে অতি জলবায়ুর ক্ষতিকর প্রভাবমুক্ত পরিবেশে বছরব্যাপী নিরাপদ চারা তৈরি ও উচ্চমূল্যে ফসল উৎপাদন করছে বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর। পাটকেলঘাটার আচিমতলায় রায়হানের প্লটে গেলে তিনি জানান, সরকারের সহযোগিতায় উন্নত জাতের চারা উৎপাদন করে সবজি উৎপাদনে কৃষককে সহায়তা করে চলেছেন।

এ ছাড়াও তিনি ৬ বিঘা জমিতে ক্যাপসিকাম, মরিচ, টমেটোসহ বিভিন্ন সবজি চাষ করে সফলতা দেখিয়েছেন। থাইল্যান্ড ভারত নেদারল্যান্ড থেকে বীজ সংগ্রহ করে প্লটে বর্তমানে বেগুন এক হাজার, পেঁপে এক হাজার ৬০০, লাউ দুই হাজার, শসা এক হাজার ২০০, মরিচ আট হাজার, ক্যাপসিকাম পাঁচ হাজার ও বারোমাসি সজিনা ৫০০ চারা উৎপাদন করেছেন। সিডলিং পদ্ধতিতে ট্রেতে কোকোপিট ভার্মি কম্পোস্ট সার ব্যবহার করে বীজ বপন করা হয়। বীজ থেকে চারা উৎপাদন করে তা কৃষকদের মাঝে বিক্রি করছেন তিনি।

অতি জলবায়ুর ক্ষতিকর প্রভাবমুক্ত পরিবেশে বছরব্যাপী নিরাপদ চারা তৈরি

বর্তমানে তার প্লটে সবমিলে ১৫ হাজার চারা আছে। পেঁপে ২৫ টাকা, বেগুন ২ টাকা, মরিচ ২ টাকা, লাউ ৭ টাকা, শসা ২ টাকা, ক্যাপসিকাম ১০ টাকা, ও বারোমাসি সজিনা ৫০ টাকা করে বিক্রি করছেন। তার উৎপাদিত সব চারা বিক্রি হয়ে গেছে। যেখানে ২০-২৫ হাজার টাকা লাভ হবে।

তিনি বলেন, ‘আশা করছি, পর্যায়ক্রমে চারা উৎপাদন হলে বছর শেষে কয়েক লাখ টাকা লাভ হবে।’ পাইকগাছা উপজেলার শিমুল মোড়ল ও ঝিনাইদহের কামরুল ইসলাম তার উৎপাদিত সব চারা ক্রয় করেছেন। দু-একদিনের মধ্যে চারা ডেলিভারি দেবেন বলে জানান।   

পাটকেলঘাটা সরুলিয়া ইউনিয়ন উপসহকারী কর্মকর্তা কল্যাণ কুমার ঘোষ জানান, প্রকল্প পরিচালক শেখ ফজলুল হক মনিসহ কৃষি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ইতোমধ্যে প্রকল্প পরিদর্শন করেছেন। পলিনেটে উৎপাদিত চারা কৃষকদের মাঝে ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করার উদ্দেশে সরকার এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।

সাতক্ষীরার তালা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাজিরা বেগম বলেন, ‘বিদেশি প্রযুক্তি ব্যবহার এখানে উন্নত জাতের চারা উৎপাদন করা হয়। কৃষকদের এখন আর খুলনা যশোরসহ বাইরের জেলা থেকে চারা সংগ্রহ করতে হবে না। এ পদ্ধতিতে একশ বীজে একশটি চারা গজায়। পলিনেটের মধ্যে চারা উৎপাদনের জন্য সঠিক তাপমাত্রা নির্ধারণ করা হয় বলে এটা সম্ভব।’

/কেএইচটি/
সম্পর্কিত
রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম বাগানতীব্র গরমে ঝরছে আমের গুটি, উৎপাদন নিয়ে চাষিদের শঙ্কা
ঘুমের ওষুধ খাইয়ে স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’
সুন্দরবনে মধু সংগ্রহ করা ব্যক্তির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়লো বাঘ, নিয়ে গেলো গহীন বনে
সর্বশেষ খবর
পানির দাম প্রায় দ্বিগুণ বাড়ানোর প্রস্তাব চট্টগ্রাম ওয়াসার
পানির দাম প্রায় দ্বিগুণ বাড়ানোর প্রস্তাব চট্টগ্রাম ওয়াসার
গাছে ধাক্কা লেগে উড়ে গেলো বাসের ছাদ, একজন নিহত
গাছে ধাক্কা লেগে উড়ে গেলো বাসের ছাদ, একজন নিহত
অভিবাসী কর্মীদের সুরক্ষায় অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত
কাতার আমিরের বাংলাদেশ ও নেপাল সফরঅভিবাসী কর্মীদের সুরক্ষায় অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত
গাড়িতে কী কী ফেলে যাচ্ছেন উবার যাত্রীরা?
গাড়িতে কী কী ফেলে যাচ্ছেন উবার যাত্রীরা?
সর্বাধিক পঠিত
দারুল ইহসানের বৈধ সনদধারীদের এমপিওতে বাধা নেই
দারুল ইহসানের বৈধ সনদধারীদের এমপিওতে বাধা নেই
ইউরোপে মানবপাচারের নতুন রুট নেপাল
ইউরোপে মানবপাচারের নতুন রুট নেপাল
১২ অঞ্চলের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির ওপরে: থাকবে কতদিন?
১২ অঞ্চলের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির ওপরে: থাকবে কতদিন?
যশোরে তীব্র গরমে গলে যাচ্ছে সড়কের বিটুমিন
যশোরে তীব্র গরমে গলে যাচ্ছে সড়কের বিটুমিন
স্যাংশন ঠেকাতে সবকিছু করা হবে: নেতানিয়াহু
স্যাংশন ঠেকাতে সবকিছু করা হবে: নেতানিয়াহু