নৌকার প্রার্থীর বিরোধিতা: ঠাকুরগাঁওয়ে ১১ নেতাকে বহিষ্কারের সুপারিশ

Send
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১১:১০, মে ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৮, মে ২৩, ২০১৯

আওয়ামী লীগসদ্য সমাপ্ত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর বিপক্ষে কাজ করার অভিযোগ এনে ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ১১ নেতাকর্মীকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। একইসঙ্গে এই ১১ জনকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য জেলা ও কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশ করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান মুকুল এবং সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোজাফ্ফর হোসেন মানিক।

বুধবার দুপুরে হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা কমিটির সাধারণ সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এই ১১ নেতাকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য জেলা ও কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশ করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক।

যাদের বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে তারা হলেন- আমগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান, হরিপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি উমাকান্ত ভৌমিক, উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা স্বপ্না রানী, উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও বর্তমান ৬নং ভাতুরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহজাহান সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হামিদুর রহমান, বশির উদ্দীন, অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন প্রধান ও আসাদুজ্জামান আসাদ। এছাড়াও উপজেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি এসএম আলমগীর এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শামীম ফেরদৌস টগরের ইতিপূর্বে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্তটি বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেয় উপজেলা কমিটি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নগেন কুমার পালের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি বাসেদ প্রধান, জয়নাল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান মুকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোজাফ্ফর হোসেন মানিক প্রমুখ।

এ ব্যাপারে অব্যাহতিপ্রাপ্ত সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি , সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিগত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শামীম ফেরদৌস টগরের মতামত জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘এই উপজেলা কমিটি আড়াই বছর আগেই মেয়াদোত্তীর্ণ। তাই এদের কাউকে বহিষ্কার করার সুপারিশ করা বা অব্যাহতির সিদ্ধান্ত বহাল রাখার এখতিয়ার নেই। তাদের সুপারিশ প্রশ্নে কেন্দ্রীয় কমিটি সঠিক সিদ্ধান্ত নেবে বলে আমি আশা করি।’

আওয়ামী লীগে বর্তমানে হালুয়া-রুটির ভাগাভাগির রাজনীতি চলছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। তবে এই মন্তব্য সঠিক নয় দাবি করে বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও বিগত নির্বাচনে বিজয়ী উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান মুকুল বলেন, ‘এই কমিটিকেই বহাল রেখেছে জেলা কমিটি ও কেন্দ্রীয় কমিটি। নাহলে তারা আগেই এই উপজেলা কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করতেন।’

এ ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মুহম্মদ সাদেক কুরাইশী বলেন, ‘এটা দলেরই সাংগঠনিক প্রক্রিয়া। দলীয় শৃঙ্খলা প্রশ্নে আওয়ামী লীগ সব সময়ই কঠোর। ইতোপূর্বে এ প্রশ্নে তদন্ত কমিটি করা হয়েছিল। তদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে উপজেলা কমিটির সাধারণ সভায় ১১ জনকে সর্বসম্মতিক্রমে অব্যাহতি দিয়ে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে। জেলা কমিটিরও বহিষ্কারের এখতিয়ার নাই। বিষয়টি কেন্দ্রীয় কমিটির কাছেই পাঠিয়ে দেবে জেলা কমিটি।’

 

/এফএস/

লাইভ

টপ