লবিংয়ে নয়, আ.লীগ কমিটিতে ত্যাগীদের চান কর্মীরা

Send
কুমিল্লা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৪:১২, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:০৯, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯

কুমিল্লা

চলতি মাসের ৯ ডিসেম্বর কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনকে ঘিরে উত্তর জেলার মুরাদনগর, দেবিদ্বার, চান্দিনা, হোমনা, মেঘনা, তিতাস এবং দাউদকান্দিসহ সাত উপজেলার মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে উৎসাহ-উদ্দীপনা। কর্মীরা চান লবিংয়ে নয়, কমিটিতে ত্যাগী নেতারা আসুক। এদিকে ২১ তম জাতীয় সম্মেলনকে ঘিরে প্রার্থীদের মধ্যে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে জোর লবিং-গ্রুপিংয়ে ব্যস্ত নেতারা। জনপ্রিয়তা দৃশ্যমান করতে নিজ নিজ নেতার পক্ষে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন মাঠ কর্মীরাও। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে খেলার মাঠ, স্কুল-কলেজ, বাজার, দোকান সব জায়গায় আলোচনা কে হবেন সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক।

৯ ডিসেম্বর কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে চান্দিনা মহিলা কলেজ মাঠে। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে এর উদ্বোধন করবেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি। উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকারের সঞ্চালনা সম্মেলনে সভাপতিত্ব করবেন কমিটির বর্তমান সভাপতি আউয়াল সরকার।

সম্মেলনকে ঘিরে সভাপতি পদে তালিকায় রয়েছেন বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক মো. রুহুল আমিন ।

কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, ‘দুঃসময় না সুসময় তা চিন্তা করিনি। ২৭ বছর ধরে দলের জন্য কাজ করেছি। কর্মীদের দুঃসময়ে পাশে দাঁড়িয়েছি। তাই আশা করি নেত্রী আমাকে হতাশ করবেন না।’

সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক রুহুল আমিন জানান, ‘কেন্দ্রের নির্দেশে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হচ্ছে। সময় মতো উপজেলা ও ইউনিয়ন সম্মেলন শেষ করা যায়নি। এই সম্মেলনে দলের যোগ্য ও ত্যাগী নেতারা গুরুত্বপূর্ণ পদে আসবেন বলে আশা আশা করছি।

সাধারণ সম্পাদক পদে রোশন আলী মাস্টারও যাদের নাম উচ্চারিত হচ্ছে তারা হলেন, দেবিদ্বারের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল, তিতাস-হোমনা সংসদ সদস্য সেলিমা আহমদ মেরি, দাউকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলী সুমন ও হোমনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম সিদ্দিকুর রহমান আবুল।

দলের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী রোশন আলী মাস্টার জানান, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে এলাকায় দলের জন্য কাজ করতে গিয়ে অসংখ্যবার হামলার শিকার হয়েছি। বিএনপির ক্যাডারদের হামলার কারণে ২০০৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর মৃত্যুর কাছ থেকে ফিরে এসেছি। দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব কিছুই অবগত আছেন।

কুমিল্লা উত্তরের ৭ উপজেলার ৫টি সংসদীয় আসন নিয়ে রাজনৈতিকভাবে সাংগঠনিক কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ গঠিত। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। ১৯৯২ সনে সাংগঠনিকভাবে কুমিল্লা উত্তর ও দক্ষিণ দুই জেলা বিভক্ত হয়। প্রথম কমিটির সভাপতি ছিলেন চান্দিনার সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফ। সাধারণ সম্পাদক হন জাহাঙ্গীর আলম সরকার। এরপর ১৯৯৭ সনে ২য় বারের মত কমিটি ঘোষিত হয়। ওই কমিটির সভাপতি ছিলেন দাউদকান্দির আবদুল আউয়াল সরকার ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার। এর ১৯ বছর পর ২০১৬ সনের ১৩ ফেব্রুয়ারি ঘোষিত কমিটিতে আবদুল আউয়াল সরকার সভাপতি ও জাহাঙ্গীর আলম সরকার সাধারণ সম্পাদক। চলতি বছরের ২০ অক্টোবর সম্মেলনের জন্য ২৮ সদস্যের প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়।

সম্মেলন প্রস্তুতি সম্পর্কে সদস্য সচিব অধ্যক্ষ এম হুমায়ূন মাহমুদ সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন নির্ধারিত তারিখেই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এতে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল আলম হানিফ এমপি, পানি সম্পদ উপমন্ত্রী ও সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম এমপি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুরসহ কেন্দ্রীয় ও জেলা নেতারা বক্তব্য রাখবেন।

 

/জেবি/

লাইভ

টপ