শুধু সাহেদ-সাবরিনা নয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের লোকজনও চোর: রাঙ্গা

Send
রংপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:২১, জুলাই ১৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৫৯, জুলাই ১৪, ২০২০

প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে এরশাদের কবর জেয়ারত করছেন নেতা-কর্মীরাশুধু সাবরিনা-সাহেদ নয়, মন্ত্রণালয়ের লোকজনও চোর, মন্ত্রীরাও এসবের ভাগ পেয়েছেন। সাম্প্রতিক করোনা মহামারির মধ্যেও নিবন্ধনহীন হাসপাতালকে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ছাড়াই অনুমোদন দেওয়া ও জিকেজি নামের প্রতিষ্ঠানের করোনার নমুনা পরীক্ষা নিয়ে প্রতারণা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে রংপুরে এ মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গা। দলের প্রয়াত চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপ্রতি এইচ এম এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) রংপুরে তাঁর সমাধিস্থলের পাশে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

এ সময় নির্বাচন কমিশনের কঠোর সমালোচনা করে রাঙ্গা আরও বলেন, এরশাদের মতো জনপ্রিয় নেতার প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীর দিনে যশোর ও বগুড়াতে উপনির্বাচন দিতে আমরা নিষেধ করেছিলাম। কিন্তু নির্বাচন কমিশন তা শোনেনি। দুই একদিন পেছালে এমন কোনও ক্ষতি হতো না। এই তাবেদার নির্বাচন কমিশন ওই দুটি উপনির্বাচনে ভোট চুরি করে সরকারদলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করার জন্য এটা করেছে।

রাঙ্গা বলেন, করোনার দুর্যোগের সময় আমরা সাহেদ-সাবরিনার কথা শুনেছি। কিন্তু, শুধু সাহেদ-সাবরিনা নয়, মন্ত্রণালয়ের লোকজনও চোর। মন্ত্রীরাও জড়িত, তারাও ভাগ পেয়েছেন।’এ সময় তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কেও ‘চোর’বলে আখ্যায়িত করেন। আরও বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এসে এরশাদের দুর্নীতির খতিয়ান বের করতে ১০ কোটি টাকা ব্যয় করেছে। কিন্তু এক টাকারও দুর্নীতি বের করতে পারেনি। দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়ে জাপা মহাসচিব বলেন, আগামী নির্বাচনে রংপুর অঞ্চলের ২২টি আসনের ২১টিতেই জাপা জয়ী হবে। তা না হলে আমি মহাসচিব থাকবো না! 

রাঙ্গা বলেন, আমরা মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছিলাম। এখন আবার নিম্ন আয়ের দেশে পরিণত হচ্ছি। করোনার কারণে ৬-৭ কোটি মানুষ বেকার হয়ে গেছে। হতদরিদ্র মানুষ মানবেতর দিন কাটাচ্ছে। লাখ লাখ শিক্ষিত মানুষ চাকরি হারিয়েছে। তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে না পারলে ভয়াবহ বিপদ সামনে। 

রাঙ্গার পরই আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধী দলীয় উপনেতা জিএম কাদের। ৯ বছরের সফল রাষ্ট্রনায়ক এরশাদের অবদানের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, করোনার দুর্যোগের সময় স্বাস্থ্য খাতে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতি হচ্ছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে বিচার করতে আমি’সহ জাপার সকল সদস্য জাতীয় সংসদে দাবি জানিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের বেশ কয়েকটি দাবি মেনে নিয়েছেন। সে জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। সেই সঙ্গে সকল দুর্নীতিবাজদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাই।

আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের ছবিএরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে তার ছোট ভাই দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের ছাড়া পরিবারের আর কাউকে কবর জিয়ারত করতে দেখা যায়নি। এমনকি এরশাদের আসন বলে স্বীকৃত রংপুর-৩ আসনটিতে পালিত ছেলে সাদ এরশাদ উপনির্বাচনে জয়ী হলেও তিনিও আসেননি। এরশাদের ছোট ছেলে এরিক এরশাদসহ রংপুরে অবস্থান করা কোনও স্বজনও কবর জেয়ারতে না আসায় দলের নেতা-কর্মীরা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তবে এ বিষয়ে জাপা চেয়ারম্যান ও মহাসচিব কোনও মন্তব্য করেননি।

রংপুর মহানগর জাপার সভাপতি রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামিম হোসেন পাটোয়ারীসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এর আগে জাপা নেতারা ঢাকা থেকে বিমানযোগে রংপুর নগরীর দর্শনা এলাকায় এরশাদের পল্লী নিবাস বাসভবনে এসে প্রয়াত এ নেতার সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান এবং কবর জেয়ারত করেন।

পরে জাপা ও অঙ্গ সংগঠনের হাজার হাজার নেতা-কর্মী এরশাদের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

 

/আরআইজে/টিএন/

লাইভ

টপ
X