কনের বয়স ১২, বরের ২০ বছর!

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:৪৬, আগস্ট ০৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:২২, আগস্ট ০৩, ২০২০

বাল্যবিয়ের প্রতীকী ছবিবরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার বড় বৈৎসব গ্রামে ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীর বিয়ে বন্ধ করে দিয়েছে গ্রামবাসী। এ সময় কাজীর দায়িত্বে থাকা উপজেলার মলুহার ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান পালিয়ে যান। সোমবার (৩ আগস্ট) রাত পৌনে ৯টায় বরের অভিভাবককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে মুচলেকা রেখে ছেড়ে দেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইউএনও আব্দুল্লাহ সাদিদ।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার চাখার ওয়াজেদিয়া মেমোরিয়াল বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী ১২ বছরের ওই কনের নানার বাড়িতে জম্বুদ্বীপ গ্রামের বরের (২০) সঙ্গে বিয়ের আয়োজন চলছিল। বর ঢাকায় একটি গার্মেন্টসে কাজ করে।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার মেজবাহ উদ্দিন বলেন, দুপুরে কনের নানাবাড়ি বড় বৈৎসব গ্রামে উভয়পক্ষের উপস্থিতিতে বিয়ের রেজিস্ট্রির কাজ চলছিল। বিষয়টি গ্রামবাসী জানতে পেরে আমাকে অবহিত করে। আমি ইউএনওকে মোবাইলে বিষয়টি জানাই। পরে পুলিশ এসে বর-কনেসহ তাদের অভিভাবকদের ইউএনও কার্যালয়ে নিয়ে যায়। এ সময় কাজী মিজানুর রহমান দৌড়ে পালিয়ে যান।

ইউএনও আব্দুল্লাহ সাদিদ জানান, বরের অভিভাবককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একইসঙ্গে উভয় পক্ষের অভিভাবকের কাছ থেকে মুচলেকা রাখা হয় বর ও কনে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিতে পারবে না।

/টিটি/এমওএফ/

লাইভ

টপ