আলমসাধু-মোটরসাইকেলে বাসের ধাক্কা, নিহত ৬

Send
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১১:৫৮, আগস্ট ০৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৪৪, আগস্ট ০৮, ২০২০

দুর্ঘটনাস্থলে স্থানীয়দের ভিড়চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ মহাসড়কের চুয়াডাঙ্গা সদরের সরোজগঞ্জ বাজারে রয়েল পরিবহনের একটি বাস আলমসাধু (শ্যালো ইঞ্জিনচালিত যানবাহন) এবং একটি মোটরসাইকেলে ধাক্কা দিয়েছে। এতে আলমসাধুর ৫ যাত্রীসহ ৬ জন নিহত হয়েছেন। মোটরসাইকেলের দুই আরোহীসহ আহত হয়েছেন ১০ জন। আহতদের চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার (৮ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ মো. ফকরুল আলম খান এসব তথ্য জানান।

নিহতরা হলেন—ষষ্টি হালদার (৪০), পশু ডাক্তার মিলন (৩৬), রাজু মিয়া (৩৫), সোহাগ (২৫), শরিফ আলী (৪৫) ও কালু (৪০)।

দুর্ঘটনাস্থলে একজন পড়ে আছেপুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকালে একটি আলমসাধু সরোজগঞ্জ বাজারে যাচ্ছিল। এসময় চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা চুয়াডাঙ্গাগামী রয়েল পরিবহনের একটি বাস সরোজগঞ্জ বাজারে পৌঁছালে ওই আলমসাধু ও একটি মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই সদর উপজেলার বসুভাণ্ডার দোহা গ্রামের নিতাই হালদারের ছেলে ষষ্টি হালদার, খাড়াগোদা গ্রামের মাহাতাব উদ্দীনের ছেলে পশু ডাক্তার মিলন এবং তিতুদহ গ্রামের রাজু মিয়া নিহত হন। সোহাগ, শরিফ আলী ও কালুসহ কমপক্ষে ১৩ জনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে সোহাগ, শরিফ ও কালুকে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। নিহতদের মধ্যে পশু ডাক্তার মিলন সকালে হাঁটতে বের হয়ে দুর্ঘটনাকবলিত হন।  

ওসি জানান, পরিবহনটি জব্দ করা হয়েছে। চালক পালিয়ে গেছে। তাকে আটক করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে, জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার জানিয়েছেন, নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে।

/আইএ/এমএমজে/

লাইভ

টপ
X