চমেকের দুই ইন্টার্ন চিকিৎসকের ওপর হামলা, অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি

Send
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
প্রকাশিত : ১৬:১৩, আগস্ট ১৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৩৯, আগস্ট ১৪, ২০২০

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সঙ্গে মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের পর থানায় অভিযোগ দিয়ে ফেরার পথে দুই ইন্টার্ন চিকিৎসকের ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনার প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ ইন্টার্ন চিকিৎসক অ্যাসোসিয়েশন। বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) রাতে ইন্টার্ন চিকিৎসক অ্যাসোসিয়েশনের আহ্বায়ক ডা. ওসমান গনি ও চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রসংসদের সাহিত্য বিভাগের সম্পাদক সানি হাসনাইন প্রান্তিকের ওপর এ হামলার ঘটনা ঘটে।

সংগঠনটির সদস্য সচিব ডা. তাজোয়ার রহমান খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ডা. ওসমান ফরহাদ ও সানি হাসনাইন প্রান্তিকের ওপর হামলার ঘটনার প্রতিবাদ ও হামলাকারীদের গ্রেফতারসহ চিকিৎসকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিতে আমরা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে কর্মবিরতি পালন করছেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। দোষীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় না আনা পর্যন্ত এই কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

এদিকে এ ঘটনায় পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী শুক্রবার (১৪ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। এসময় ইন্টার্ন চিকিৎসকদের বিভিন্ন দাবি সম্বলিত প্লে কার্ড নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নিতে দেখা যায়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) বিকালে চকবাজার থানাধীন চট্টেশ্বরী রোডের চমেক ছাত্রাবাসে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সঙ্গে মেডিক্যাল ছাত্রদের হাতাহাতি ও মারামারির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ ছাত্রাবাসে মুখোমুখি অবস্থান নেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মারামারিতে জড়িত দুই পক্ষের এক পক্ষ ইন্টার্ন চিকিৎসকরা চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, অন্যপক্ষ শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

এ ঘটনায় উভয়পক্ষ চকবাজার থানায় লিখিত অভিযোগ করে। লিখিত অভিযোগ দায়ের করে চকবাজার থানা থেকে আসার পথে রাত ১১টার দিকে চকবাজার জয়নগর এক নম্বর গলির মুখে ২৫-৩০ জনের মত চমেকের ছাত্র ও কিছু বহিরাগত মিলে ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. ওসমান ফরহাদ ও চমেক ছাত্র সংসদের (চমেকসু) সাহিত্য সম্পাদক সানি হাসনাইন প্রান্তিককের ওপর হামলা চালায়। এতে দু্ই জন গুরুতর আহন হন। পরে দুই চিকিৎসকের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা দায়েরের পর পুলিশ ১১ জনকে গ্রেফতার করেছে বলে জানিয়েছেন চকবাজার থানার ওসি মুহাম্মদ রুহুল আমিন। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ওপর হামলার ঘটনায় ডা. রাফি ২১ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় ইতোমধ্যে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অন্যদিকে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসকদের কর্মবিরতির বিষয়ে জানতে চাইলে পাঁচলাইশ থানার ওসি আবুল কাশেম ভূঁইয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বৃহস্পতিবার রাত থেকে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কর্মবিরতি পালন করে আসছেন। শুক্রবার সকালে হাসপাতালের সামনে জড়ো হয়ে তারা বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হাসপাতাল এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলছি। কর্মসূচি প্রত্যাহার করে তাদেরকে কাজে ফেরত পাঠাতে প্রশাসন চেষ্টা করছে।

 

 

/টিটি/

লাইভ

টপ