রাতে চুরি, ভোরে জবাই, সকালে বিক্রি!

Send
কুমিল্লা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৬:০৯, অক্টোবর ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৩৭, অক্টোবর ২৯, ২০২০

রাতে গরু চুরির পর ভোরে জবাই করে মাংস বিক্রির ঘটনায় কুমিল্লায় গরু চোর ও কসাই চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কুমিল্লা সদর উপজেলার ঘিলাতলী গ্রামের মনিরুল ইসলাম চৌধুরী নামক এক ব্যক্তির খামারে ডাকাতি করে ১৬টি গরু নিয়ে যাওয়ার ঘটনার অভিযোগের তদন্ত করতে গিয়ে গরু চুরি ও ডাকাত চক্রের সন্ধান পায় পুলিশ। এই চক্রের অন্যতম হোতার নাম মোহাম্মদ আলী। তার বিরুদ্ধে কুমিল্লার সদর দক্ষিণ, চৌদ্দগ্রাম ও দেবিদ্বাররে ডাকাতির প্রস্তুতি, অস্ত্র ও চুরিসহ ৬টি মামলা রয়েছে।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) মোহাম্মদ আলীসহ কসাই দুই কসাই সাহিদ ও মাসুম মিয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মোহাম্মদ আলী কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার চুলাশ গ্রামের হানিফ মিয়ার ছেলে। কুমিল্লার রাজগঞ্জ বাজারের মাংস বিক্রেতা দুই ভাই মো. সাহিদ মিয়া (৩৫) ও মাসুম মিয়া (৩৮)।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) কুমিল্লার পুলিশ সুপার কার্যালয়ের এক প্রেস ব্রিফিংয়ে কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, চুরি ও ডাকাতি চক্রের মূলহোতা আলীর নেতৃত্বে কুমিল্লাসহ এর আশপাশের জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে চুরি ও ডাকাতি করে নিয়ে আসা গরুগুলো জবাই করে মাংস বিক্রি ছাড়াও ক্ষেত্রবিশেষ অন্যত্রও বিক্রি করে আসছে বলে গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের স্বীকার করেছে। বিভিন্ন সময় অভিনব কৌশল অবলম্বন করে ডাকাতি ও চুরি করে গুরুগুলো কাভার্ডভ্যান কিংবা পিকআপের মাধ্যমে পরিবহর করে তারা। এই চুরি ও ডাকাতির সিন্ডিকেটের সঙ্গে অন্তত ১৫-২০ জন ব্যক্তি জড়িত রয়েছে। পুরো চক্রকে গ্রেফতারে জেলা পুলিশ কাজ করছে।

 

/এএইচ/

লাইভ

টপ