X
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩
১৪ মাঘ ১৪২৯

সিরাজগঞ্জে সংঘর্ষ, আ.লীগ অভিযোগ দিলেও ‘নীরব’ বিএনপি

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
০৪ নভেম্বর ২০২২, ২২:০১আপডেট : ০৪ নভেম্বর ২০২২, ২৩:০৬

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সয়দাবাদ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বাদী হয়ে ৩০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরও ২০ জনকে আসামি করে অভিযোগ করেছেন। তবে ক্ষমতাসীন দলের নেতা থানায় অভিযোগ দিলেও বিএনপির পক্ষ থেকে এখনও থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়নি।

সয়দাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন দাবি করেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইউসুফ মোল্লা ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. মমিনের বিরুদ্ধে বিএনপির একটি মিথ্যা মামলা থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে নেতাকর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ কারার জন্য কড্ডার মোড় এলাকায় গেলে সেখানে ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি নেতৃত্বে প্রায় ৩০-৪০টি মোটরসাইকেল এসে আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমরা প্রতিবাদ করতে গেলে সেখানে তারা ৩-৪টি ককটেল ফাটিয়ে দ্রুত চলে যায়। এতে আমিসহ কয়েকজন নেতা আহত হয়েছেন।

সয়দাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রিগান তালুকদার দাবি করেন, বিএনপির মিথ্যা মামলা থেকে আমাদের দুজন নেতা জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর কড্ডার মোড় এলাকায় নেতাকর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় আমরা মিষ্টি কেনার জন্য দোকানে গেলে বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রায় ৩০-৪০টি মোটরসাইকেল নিয়ে আগে থেকেই সেখানে উপস্থিতি ছিলেন। আমি এবং সাদ্দাম মিষ্টি কিনে নিয়ে আসার সময় ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতির নির্দেশে আমাদের ওপর হামলা চালায়। প্রতিবাদ করতে গেলে তাদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়ে আমাদের কয়েকজন নেতা আহত হয়।

জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা মোস্তফা জামান দাবি করেন, সয়দাবাদ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি রফিক সরকার সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি প্রার্থী ছিলেন। সেই কারণে তিনি ওই দিন রাতে আমাদের বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে কড্ডার মোড় এলাকায় গণসংযোগ করতে গেলে সেখানে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান নবিদুল ইসলামের নেতৃত্বে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালায়। এতে আমাদের কয়েকজন নেতা আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনায় বিএনপির পক্ষ থেকে কোনও মামলা করা হয়েছে কি-না জনতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা থানায় মামলা বা অভিযোগ দিতে গেলে থানা সেটা নেয় না। আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলেছি, মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এই বিষয়ে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল করা হলেও পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ সদর থানার ওসি হুমায়ন কবির বলেন, সয়দাবাদ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ-বিএনপির সংঘর্ষের ঘটনায় ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বাদী হয়ে ৩০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ২০ জনকে আসামি করে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। তদন্ত করছি। তবে বিএনপির পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনও অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, বুধবার (২ নভেম্বর) সদর উপজেলার সয়দাবাদে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে সয়দাবাদ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি রফিক সরকার, ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য এম এ শহীদ, কালিয়া হরিপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মনির হোসেন, ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রিগান তালুকদার, ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কোবাদ মণ্ডল ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন আহত হন। এই হামলার ঘটনায় বিএনপি ও আওয়ামী লীগের নেতারা একে অপরকে দায়ী করেছেন।

/এফআর/
সর্বশেষ খবর
চলতি বছরেই ট্রেন যাবে কক্সবাজার
চলতি বছরেই ট্রেন যাবে কক্সবাজার
বুড়িগঙ্গায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার উলটে চালক নিহত
বুড়িগঙ্গায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার উলটে চালক নিহত
মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
কাভার্ডভ্যানের চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
কাভার্ডভ্যানের চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
সর্বাধিক পঠিত
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
আপনি কি আল্লাহর ফেরেশতা, মির্জা ফখরুলকে ওবায়দুল কাদের
আপনি কি আল্লাহর ফেরেশতা, মির্জা ফখরুলকে ওবায়দুল কাদের