X
রবিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩
১৪ মাঘ ১৪২৯

নিয়োগ পরীক্ষার আগেই অর্ধকোটি টাকা নিয়ে প্রার্থী চূড়ান্তের অভিযোগ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৩১আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৩১

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার সিংগারডাবড়ীহাট দাখিল মাদ্রাসায় প্রায় অর্ধকোটি টাকা বাণিজ্যের মাধ্যমে নিয়োগ পরীক্ষার আগেই প্রার্থী চূড়ান্তের অভিযোগ এনে পরীক্ষা বর্জন করেছেন কয়েকজন চাকরিপ্রত্যাশী। নিয়োগ পরীক্ষায় মাদ্রাসা বোর্ডের ডিজি প্রতিনিধির উপস্থিতিতে ‘প্রহসনের’ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিলের দাবি জানিয়েছেন অভিযোগকারীরা।

নিয়োগ পরীক্ষা বর্জন করা প্রার্থীদের অভিযোগ, কুড়িগ্রাম রাজারহাটে সিংগারডাবড়ীহাট দাখিল মাদ্রাসায় প্রায় অর্ধকোটি টাকা নিয়োগ বাণিজ্যের মাধ্যমে চার পদে শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। মাদ্রাসার চারটি শূন্য পদের বিপরীতে মোট ১৮ জনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত শনিবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল ৮টায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু এই নিয়োগ পরীক্ষার আগেই অর্ধকোটি টাকা বাণিজ্যের মাধ্যমে প্রার্থী চূড়ান্ত করার অভিযোগ এনে লিখিত পরীক্ষা বর্জন করে কেন্দ্র ত্যাগ করেন চাকরিপ্রত্যাশী কয়েকজন প্রার্থী।

নিয়োগ পরীক্ষা বর্জনকারী প্রার্থী সোহেল রানা, মাইদুল ইসলাম ও হাবিবসহ কয়েকজন প্রার্থী অভিযোগ করে বলেন, আমাদের কাছে মাদ্রাসা সুপার আশরাফুল ইসলাম বিভিন্ন পদে নিয়োগের জন্য ১০ থেকে ১৫ লাখ টাকা করে দাবি করেন। আমরা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানাই। পরে মাদ্রাসা সুপার সহকারী সুপার পদে নিয়োগের জন্য আনোয়ারুল ইসলাম নামে এক প্রার্থীর কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা, অফিস সহায়ক পদের জন্য মোস্তফার কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা, নৈশপ্রহরী পদের জন্য ইয়াকুবের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা এবং আয়া পদের জন্য মরিয়ম বেগমের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা নিয়ে পরীক্ষার আগেই প্রার্থী চূড়ান্ত করেন। গত শনিবার শুধু লোক দেখানো নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। যাদের প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করেছে আমরা আগেই তাদের নামে জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ দিয়েছি। ফলে দেখবেন তাদেরই চূড়ান্ত করা হয়েছে।

অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে পরীক্ষার আগেই প্রার্থী চূড়ান্ত করার অভিযোগের বিষয়ে জানতে মাদ্রাসা সুপার আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া গেছে। তবে মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আক্তারুজ্জামান আবু নূর নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ যথারীতি অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।’

রাজারহাট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আশরাফ উজ জামান বলেন, অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে এই মর্মে কোনও লিখিত অভিযোগ পাইনি আমরা। 

অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে কয়েকজন প্রার্থীর পরীক্ষা বর্জনের বিষয়ে এই শিক্ষা কর্মকর্তা বলেন, ‘মৌখিক অভিযোগের কোনও ভিত্তি নেই।’

এ ব্যাপারে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের ডিজির প্রতিনিধি পরিদর্শক মো. বাদশা মিয়ার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।

/এএম/
সর্বশেষ খবর
সংকট সমাধানে নতুন রাজনৈতিক বন্দোবস্ত দরকার
ওয়েবিনারে বক্তারাসংকট সমাধানে নতুন রাজনৈতিক বন্দোবস্ত দরকার
‘পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসতে বিএনপি-জামায়াত ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে’
‘পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসতে বিএনপি-জামায়াত ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে’
নির্বাচন কমিশন যথাসময়ে সংসদ নির্বাচনের তারিখ জানাবে: আইনমন্ত্রী
নির্বাচন কমিশন যথাসময়ে সংসদ নির্বাচনের তারিখ জানাবে: আইনমন্ত্রী
ফেনীতে ‘গোপন বৈঠক’ থেকে জামায়াতের ১২ নেতাকর্মী আটক
ফেনীতে ‘গোপন বৈঠক’ থেকে জামায়াতের ১২ নেতাকর্মী আটক
সর্বাধিক পঠিত
খাবারের দাম দ্বিগুণ, বাস মালিক-হাইওয়ে হোটেলগুলোর সিন্ডিকেট
খাবারের দাম দ্বিগুণ, বাস মালিক-হাইওয়ে হোটেলগুলোর সিন্ডিকেট
যে জুটি কখনও ব্যর্থ হয়নি
যে জুটি কখনও ব্যর্থ হয়নি
হিন্দি সিনেমা আমদানির পক্ষে রিয়াজ, দিলেন ব্যাখ্যাও
হিন্দি সিনেমা আমদানির পক্ষে রিয়াজ, দিলেন ব্যাখ্যাও
নতুন উচ্চতায় মাশরাফি
নতুন উচ্চতায় মাশরাফি
চলতি বছরেই ট্রেন যাবে কক্সবাজার
চলতি বছরেই ট্রেন যাবে কক্সবাজার