গ্র্যামির নতুন ইতিহাস কন্যা বিলি আইলিশ

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ০০:০৭, জানুয়ারি ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৪, জানুয়ারি ২৮, ২০২০

বিলি আইলিশের দু’হাত ভর্তি গ্র্যামি পুরস্কারবয়স সবেমাত্র ১৮ বছর। এটুকু বয়সেই বাজিমাত করলেন আমেরিকান কিশোরী বিলি আইলিশ। পুরস্কারের বন্যায় ভাসলেন এই পপ সেনসেশন। গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসের শীর্ষ চারটি পুরস্কারই উঠেছে তার হাতে। এর মধ্যে ‘ব্যাড গাই’ গানের সুবাদে রেকর্ড অব দ্য ইয়ার ও সং অব দ্য ইয়ার জিতেছেন তিনি। তার ‘হোয়েন উই অল ফল অ্যাস্লিপ, হোয়্যার ডু উই গো?’ হয়েছে অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার। সেরা নতুন শিল্পীর ট্রফি দেওয়া হয়েছে তাকেই।

এর মাধ্যমে বিরল এক কীর্তি গড়লেন বিলি আইলিশ। বিশ্বসংগীতের সবচেয়ে সম্মানজনক স্বীকৃতি গ্র্যামির একই আসরে উল্লিখিত চারটি বিভাগে সবশেষ ১৯৮১ সালে পুরস্কার পেয়েছিলেন ক্রিস্টোফার ক্রস। তবে সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে এই অর্জন কেবল বিলি আইলিশের দখলে। শুধু সামনের সারির চারটি পুরস্কারই নয়, তার ‘হোয়েন উই অল ফল অ্যাস্লিপ, হোয়্যার ডু উই গো?’ সেরা ইঞ্জিনিয়ার্ড অ্যালবাম (নন-ক্লাসিক্যাল) সম্মান পেয়েছে।

অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার বিভাগে সর্বকনিষ্ঠ বিজয়ী হিসেবে রেকর্ড গড়েছেন বিলি আইলিশ। এক দশক আগে ২০ বছর বয়সে ‘ফিয়ারলেস’-এর জন্য পুরস্কারটি পেয়েছিলেন আমেরিকান গায়িকা টেলর সুইফট। তাকে সিংহাসনচ্যুত করে আরিয়ানা গ্রান্ডের প্রতি ভালো লাগা প্রকাশ করেন বিলি। তিনি তখন বলেন, ‘আমার চোখে আরিয়ানা পুরস্কারটির দাবিদার।’ এ সময় দর্শকসারি থেকে আরিয়ানা করতালি দেন ও চুম্বন উড়িয়ে দেন।
মনোনীত অন্য শিল্পীদের প্রতি সম্মান জানিয়ে বিলি আইলিশ বলেন, ‘সং অব দ্য ইয়ার পুরস্কারটি অন্য গানগুলোরও প্রাপ্য।  সত্যিকার অর্থেই আমি অনেক কৃতজ্ঞ ও এখানে আসতে পেরে সম্মানিত বোধ করছি। আপনাদের দেখেই বেড়ে উঠেছি।’

সেরা নবীন শিল্পীর পুরস্কার গ্রহণের পরপরই সাফল্যের কৃতিত্ব ভক্তদের দিতে ভোলেননি বিলি, ‘আজ রাতে তাদের কথা খুব একটা বলা হয়নি। কিন্তু তারাই আমাদের এখানে আসার পেছনে সবচেয়ে বড় কারণ।’

সবুজ রঙা চুল ও ঢিলেঢালা পোশাকের জন্য বিলি আইলিশের স্বতন্ত্র ভাবমূর্তি তৈরি হয়েছে। লস অ্যাঞ্জেলেসে নিজেদের ছোট্ট বাড়ির শোবার ঘরে বড় ভাই ফিনিয়াস ও’কনেলের সঙ্গে মিলে প্রথম অ্যালবামের গানগুলো রেকর্ড করেন তিনি। এরপর মাস্টারিং হয়েছে অন্যের লিভিং রুমে। প্রসঙ্গটি তুলে ধরে এই অষ্টাদশী সাংবাদিকদের বলেন, ‘যেকোনও কিছুই সম্ভব।’

ভাইবোন বিলি আইলিশ ও ফিনিয়াস ও’কনেলবিলির ভাইকে খালি হাতে ফিরতে হয়নি। ‘হোয়েন উই অল ফল অ্যাস্লিপ, হোয়্যার ডু উই গো?’ অ্যালবামে দারুণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে গ্র্যামির বর্ষসেরা প্রযোজক (নন-ক্লাসিক্যাল) বিভাগে পুরস্কৃত হয়েছেন তিনি। তার কথায়, ‘আমরা গ্র্যামি জেতার কথা ভেবে এই অ্যালবাম তৈরি করিনি। বিষণ্নতা, আত্মহত্যার ভাবনা ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে গান সাজিয়েছি আমরা। গ্র্যামি জিতে আমরা একইসঙ্গে বিহ্বল ও কৃতজ্ঞ।’

শোবার ঘরে গান তৈরির প্রসঙ্গে ফিনিয়াস বলেন, ‘যেখানে আমি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি সেখানেই সৃজনশীল কাজ করতে পারি। ঘরে বানানো বিস্কুটকে গ্র্যামি দেওয়া বিশাল সম্মানের ব্যাপার।’

কোবি ব্রায়ান্টের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন সঞ্চালক অ্যালিসিয়া কিসযুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে লস অ্যাঞ্জেলেসের স্ট্যাপলস সেন্টারে ২৬ জানুয়ারি (বাংলাদেশ সময় সোমবার সকাল) গ্র্যামির ৬২তম আসর শুরুতে ছিল বাস্কেটবল তারকা কোবি ব্রায়ান্টের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি। একইদিন লস অ্যাঞ্জেলেসে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় মেয়েসহ নিহত হন তিনি।

গ্র্যামির সঞ্চালক অ্যালিসিয়া কিস বলেন, ‘আমরা সত্যিকার অর্থেই মর্মাহত। এভাবে অনুষ্ঠান শুরু করতে হবে তা আমাদের কল্পনাতেও ছিল না।’ এরপর হিপহপ দল বয়েজ টু মেনকে মঞ্চে এনে তিনি পরিবেশন করেন, ‘ইটস সো হার্ড টু সে গুডবাই টু ইয়েসটারডে’। অনুষ্ঠান চলাকালে কোবি ব্রায়ান্টের ৮ ও ২৪ নম্বর জার্সি দুটি রাখা হয় ভেন্যুতে।
লিজোর হাতে তিনটি গ্র্যামি পুরস্কারএরপর কোবি ব্রায়ান্টের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন আমেরিকান গায়িকা লিজো। শুরুতেই তিনি বলেন, ‘আজকের রাত কোবির জন্য।’ আটটি মনোনয়নের বিপরীতে এই রিদমঅ্যান্ডব্লুজ তারকা জিতেছেন সেরা পপ সলো পারফরম্যান্সসহ তিনটি পুরস্কার।

লিল ন্যাস এক্স ও বিলি রে সাইরাসের সঙ্গে বিটিএস ব্যান্ডের পরিবেশনাসমকামি কৃষ্ণাঙ্গ কান্ট্রি র‌্যাপার লিল ন্যাস এক্স ‘ওল্ড টাউন রোড’ গানের জন্য পেয়েছেন দুটি ট্রফি। এগুলো হলো বর্ষসেরা ভিডিও ও সেরা পপ দ্বৈত/দলীয় পারফরম্যান্স। বিলি রে সাইরাসের সঙ্গে মিলে এটি গেয়েছেন ২০ বছর বয়সী এই তরুণ। তাদের সঙ্গে অনুষ্ঠানে এই গানের রিমিক্স সংস্করণ পরিবেশন করে কোরিয়ান-পপ ব্যান্ড বিটিএস ও বালক মেসন র‌্যামজি। এবারই প্রথম গ্র্যামির মঞ্চ মাতালো কোরিয়ান কোনও ব্যান্ড।

লিল ন্যাস এক্সলিল ন্যাস এক্সকে পরিচয় করিয়ে দিতে গিয়ে সমকামি কমেডিয়ান এলেন ডিজেনারেস বলেন, ‘দুনিয়াকে ছেলেটি জানিয়ে দিয়েছে সে সমকামি ছিল। রাতারাতি বিশ্বজুড়ে অসংখ্য তরুণের অনুপ্রেরণা ও আদর্শ হয়ে উঠেছে সে।’

গ্র্যামির মঞ্চে আরিয়ানা গ্রান্ডেআমেরিকান গায়িকা আরিয়ানা গ্রান্ডে সম্পর্কের অবসান হওয়াকে ঘিরে সাজানো ‘থ্যাঙ্ক ইউ, নেক্সট’ অ্যালবামের ‘সেভেন রিংস’ ও ‘ইমাজিন’সহ কয়েকটি গানের পাঁচমিশালী পরিবেশন করেন। তবে পাঁচটি বিভাগে মনোনীত এই তারকাকে ফিরতে হয়েছে খালি হাতে। গতবার গ্র্যামির টিভি প্রযোজক কেন এরলিকের সঙ্গে প্রকাশ্যে বাকযুদ্ধের কারণে শেষ মুহূর্তে অনুষ্ঠানে গাইতে অস্বীকৃতি জানান তিনি।

নিপসি হাসলের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর শেষ দিকে তার সঙ্গে কোবি ব্রায়ান্টের ছবি ভেসে ওঠে মঞ্চের পর্দায়লস অ্যাঞ্জেলেসে আততায়ীর গুলিতে নিহত র‌্যাপার নিপসি হাসল মরণোত্তর দুটি গ্র্যামি জিতেছেন। এগুলো হলো সেরা র‌্যাপ/সাং পারফরম্যান্স (হাইয়ার) ও সেরা র‌্যাপ পারফরম্যান্স (র‌্যাকস ইন দ্য মিডল)। তার স্মরণে সংগীত পরিবেশন করেছেন জন লিজেন্ড, ডিজে খালেদ ও র‌্যাপার মিক মিল।

আমেরিকান গায়ক ব্লেক শেলটন ও তার বাগদত্তা গোয়েন স্টেফানি হাতে হাত রেখে গেয়েছেন তাদের নতুন প্রেমের গান ‘নোবডি বাট ইউ’। আমেরিকান-কিউবান গায়িকা কামিলা কাবেলো পরিবেশন করেন সম্প্রতি প্রকাশিত তার সিঙ্গেল ‘ফার্স্ট ম্যান’। এ সময় দর্শকসারিতে বসা তার বাবার চোখে জমে যায় আনন্দ অশ্রু।
গ্র্যামির মঞ্চে ফিরেছেন ডেমি লোভেটো২০১৮ সালে অতিমাত্রায় ওষুধসেবনের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়া আমেরিকান গায়িকা ডেমি লোভেটো গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মঞ্চ পরিবেশনায় ফিরেছেন। তাকে সবাই দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানান।

(বাঁ থেকে) বিলি আইলিশ, লিজো, লিল ন্যাস এক্স ও ফিনিয়াস ও’কনেলন্যাশনাল একাডেমি অব রেকর্ডিং আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের সদস্যরা গ্র্যামি বিজয়ীদের নির্বাচন করেন। সম্প্রতি এই সংস্থার প্রধান নির্বাহী পদ থেকে অপসারণ করা হয় ডেবোরা ডুগ্যানকে। এরপর মনোনয়ন প্রক্রিয়া নিয়ে স্বার্থসংশ্লিষ্টতার অভিযোগ তোলেন তিনি। যদিও রেকর্ডিং অ্যাকাডেমি এটি অস্বীকার করেছে।

সূত্র: রয়টার্স, বিবিসি

/জেএইচ/এম/

লাইভ

টপ