করোনা ছড়ানোর অভিযোগে কনিকার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৩:২৯, মার্চ ২১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৩১, মার্চ ২১, ২০২০

কনিকা কাপুরকরোনাভাইরাসে আক্রান্ত 'বেবি ডল' গানের গায়িকা কনিকা কাপুরের দায়িত্বজ্ঞানহীন অসামাজিক কর্মকাণ্ডে হতভম্ব ভারতের বিনোদন অঙ্গন। বিদেশ থেকে ফেরার তথ্য লুকিয়ে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়েই লক্ষ্ণৌতে পার্টি করায় ব্যাপক সমালোচনা হজম করতে হচ্ছে তাকে।
কনিকার কর্মকাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পর গায়িকা সোনা মহাপাত্র কড়া ভাষায় নিন্দা জানিয়েছেন। তার বর্ণনায় এমন আচরণ অশোভন ও বেমানান। তিনি বলেন, 'কনিকা কাপুর আমাদের চলচ্চিত্র জগতের কলঙ্ক। তার আচরণ গোটা বিনোদন শিল্পকে প্রশ্নের মুখে ফেলেছে। তার আইনিভাবে সাজা হওয়া উচিত।'
গায়ক ও বিজেপির সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় বলেন, 'কনিকা খুবই বেমানান ও শিশুসুলভ আচরণ করেছে। তবে আমার আশা, তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন এবং তার সঙ্গে পার্টিতে অংশ নেওয়া সবাই সুরক্ষায় থাকুক। অত্যন্ত দায়িত্বজ্ঞানহীন কর্মকাণ্ডের জন্য পার্টির আয়োজক ও অতিথিরা সমান দায়ী।'
ভারতীয় চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন পরিচালক সমিতির সভাপতি অশোক পণ্ডিত মনে করেন, দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়ে অন্যদের জীবনকে ঝুঁকির মুখে ফেলেছেন কনিকা।
একটি সূত্র জানিয়েছে, নাগরিকদের জীবন ঝুঁকির মুখে ফেলায় কনিকার বিরুদ্ধে জিডি করেছে উত্তর প্রদেশ পুলিশ। লক্ষ্ণৌতে তিনি পার্টি করেছেন ও ছিলেন এমন কিছু জায়গা লকডাউন করা হয়েছে। কোয়ারেন্টিনে গেছেন একটি পার্টিতে অংশ নেওয়া রাজস্থানের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে।
গত ৯ মার্চ ইংল্যান্ডের রাজধানী লন্ডন থেকে মুম্বাই ফেরেন কনিকা। শুক্রবার (২০ মার্চ) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবরটি জানিয়ে কনিকা লিখেছেন, '১০ দিন আগে দেশে ফেরার পর বিমানবন্দরে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় স্ক্যান করা হয় আমাকে। কিন্তু চার দিন আগে উপসর্গ ধরা পড়ে।'
তবে অভিযোগ উঠেছে, ওয়াশরুমে লুকিয়ে বিমানবন্দরের স্ক্রিনিং ফাঁকি দিয়েছেন কনিকা। যদিও তিনি তা অস্বীকার করে বলেন, 'আমার সঙ্গে এখন অপরাধীর মতো আচরণ করা হচ্ছে।'
কনিকার বাবার দাবি, তিনটি পার্টিতে ৪০০ মানুষের সঙ্গে অংশ নিয়েছেন কনিকা। কিন্তু ৪১ বছর বয়সী এই তারকা তা অস্বীকার করছেন। তার দাবি, শুধু ঘরোয়া একটি পার্টিতে অংশ নিয়েছেন।
তথ্যসূত্র: বলিউড হাঙ্গামা

/জেএইচ/এমএম/

লাইভ

টপ