ঈদ ধারাবাহিক ‘পাঙ্কু মাস্টার’, লকডাউনের মধ্যেই শুটিং!

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:৩৫, মে ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:১৯, মে ২৪, ২০২০

শুটিংয়ে সহশিল্পীকে নিয়ে মীর সাব্বিরের সেলফিকরোনা সচেতনতা নিয়ে নির্মিত হলো সাত পর্বের ধারাবাহিক নাটক। এবং এটির শুটিং হলো চলমান লকডাউনের ভেতরেই!

ধারাবাহিকটির নাম ‘পাঙ্কু মাস্টার’। নাগরিক টিভির ঈদ আয়োজনের জন্য এটি নির্মাণ করেছেন সোহাগ কাজী। কিন্তু চলমান লকডাউনের ভেতর শুটিং নিষিদ্ধ থাকলেও কেমন করে সম্ভব হলো এই ধারাবাহিকটির কাজ!
জবাবে নাগরিক টিভির অনুষ্ঠান প্রধান কামরুজ্জামান বাবু বললেন, ‘এটি করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতামূলক কাজ। আমরা মনে করেছি, ঈদ উৎসবে মানুষকে সচেতন করতে এমন একটি নাটক জরুরি। সে ভাবনা থেকে নাটক সংশ্লিষ্ট সকল সংগঠনের অনুমতি নিয়েই কাজটি করেছি আমরা।’
নির্মাতা জানান, ১৭ মার্চ থেকে টানা এক সপ্তাহ ঢাকা ও ঢাকার অদূরে বিভিন্ন লোকেশনে ধারাবাহিকটির শুটিং হয়েছে।
‘পাঙ্কু মাস্টার’ ধারাবাহিকের প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন মীর সাব্বির। বিভিন্ন চরিত্রে আরও আছেন নূসরাত জাহান পাপিয়া, তারেক স্বপন, বিনয় ভদ্র, শফিক খান দিলু, শামীমসহ অনেকে।
নাগরিক সূত্র জানায়, ধারাবাহিকটি সম্প্রচার হবে ঈদের সাত দিন, প্রতিদিন রাত ১০টা ১০ মিনিটে।
নাটকটির গল্প সম্পর্কে নির্মাতা জানান, করোনার কারণে থমকে গেছে জীবনযাত্রা। বদলে গেছে মানুষের চলাচল। ঠিক এই সময়ে গ্রামে আসে পানু। সে আসলে গ্রামে এসেছিল একটি মেয়ের ভালোবাসার টানে। কিন্তু করোনার কারণে সমস্যায় পড়ে পানু।
গ্রামে কেউ অসুস্থ হলেই দায় পড়ে পানুর ঘাড়ে। কিন্তু পানু এতে দমে যায় না। সে করোনায় সচেতনতা তৈরি করার জন্য কাজ শুরু করে। গ্রামের মানুষদের নিজের মতো করে নানা পরামর্শ দিতে থাকে। পুরো গ্রামে পানুর নাম ছড়িয়ে পড়ে পাঙ্কু মাস্টার হিসেবে।

কিন্তু একদিন পাঙ্কু মাস্টারের কারসাজি ধরে ফেলে গ্রামবাসী। শুরু হয় আরেকটি গল্প।

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ