এক্সট্র্যাকশন: ট্রেলার কপি করেই হলিউডে ডাক পেলো নাইজেরিয়ান শিশুরা!

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৬:২৭, জুন ২৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৪৫, জুন ২৭, ২০২০

ক্রিস হেমসওয়ার্থ, ডানে ‘ইকোরডো বোইস’ টিমের সদস্যরা‘এক্সট্র্যাকশন’-এর ট্রেলার কপি করেই হলিউডে ডাক পেলো নাইজেরিয়ান শিশুরা!

চলতি বছরের আলোচিত ছবি ‘এক্সট্র্যাকশন’-নিয়ে নাইজেরিয়ায় এখন তুমুল হইচই। কারণ দেশটির স্কুল পড়ুয়া খুদে কয়েকজন অভিনেতা ও নির্মাতা ছবিটির নকল ট্রেলার তৈরি করে চমকে দিয়েছে খোদ সুপারস্টার ক্রিস হেমসওয়ার্থকে।



চমকিত হয়েছেন ছবির প্রযোজক জো রুশো ও অ্যান্থনি রুশোও। তারা তো বটেই ‘ইকোরডো বোইস’ নামের শিশু গ্রুপটির তৈরি ট্রেলারটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করেছে নেটফ্লিক্সও!


কী আছে সেই ট্রেলারে- এটা জানতে যারাই তাদের কাজটি দেখেছেন, ‘বাহবা’ দিয়েছেন প্রায় প্রত্যেকে।
১০ থেকে ১৫ বছরর বয়সী এ শিশুরা মূল ট্রেলারটির ‘মিম’ তৈরি করেছে। হুবহু অভিনয়ের পাশাপাশি তাদের অভিব্যক্তিও কোনও কোনও ক্ষেত্রে মূল ট্রেলারকে ছাপিয়ে গেছে। আর এতে হলিউডের ভারী ভারী যন্ত্র ও গাড়ির ক্ষেত্রে তারা ব্যবহার করেছে ময়লা ফেলা ট্রলি ও খেলনা গাড়ি।
‘ইকোরডো বোইস’ দলে আছেন সানি ভ্রাতৃদ্বয় মুইজ ও মালিক। তাদের বয়স যথাক্রমে ১৫ ও ১০ বছর।
তাদের তৈরি ভিডিওটি এডিট করেছে তাদের বড় ভাই বাবাটুন্ডে (২৩)। এছাড়া এতে অভিনয় করেছে তাদের কাজিন ফাওয়াজ আইনা (১৩)।
ট্রেলারটি তৈরির পর তারা তাদের ফেসবুক ফ্যানদের বলে, যেন এটি শেয়ারের সময় ক্রিস ও নেটফ্লিক্স কর্তৃপক্ষকে ট্যাগ করে। আর এই তরিকাতেই কাজটি হয়।
মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ভিডিওটি রি-টুইট করে নেটফ্লিক্স। ক্যাপশনে লেখে ‘লাভ দিস’। আর ক্রিসের ক্যাপশনটি ছিল ‘এপিক’!
এখানেই থেমে যায়নি উচ্ছ্বাস। ভিডিওটি দেখে প্রযোজক জো রুশো ও অ্যান্থনি রুশো ‘এক্সট্র্যাকশন-২’এর প্রিমিয়ারের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন এই নাইজেরিয়ান শিশুদের।
টুইটে তারা লেখেন, ‘সত্যিই এটা অসাধারণ। আমরা খুবই খুশি হবো তোমরা যদি আমাদের প্রিমিয়ারে আসো। যে কোনও তথ্যের জন্য সরাসরি তোমরা আমাদের মেসেজ করবে। তোমাদের উত্তরের অপেক্ষা আছি।’


নাইজেরিয়ায় ‘ইকোরডো বোইস’ ভীষণ জনপ্রিয়। তারা মিউজিক ভিডিও ও সিনেমার ট্রেলার রিমেক করে থাকে। ২০১৭ সাল থেকে তাদের ইনস্টাগ্রাম পেজ চলছে। সেখানে এখন ৬ লাখের বেশি ফলোয়ার।
বড় ভাই বাবাটুন্ডে বলেন, ‘‘আমরা প্রতিনিয়ত শুট করি। কারণ আমরা সেরাটা করার চেষ্টা করি। এভাবেই ‘এক্সট্র্যাকশন’-এর কাজটি করা। বিশ্বব্যাপী আমাদের কাজটি স্বীকৃতি পাচ্ছে দেখে খুবই ভালো লাগছে।’’

২০১৮ সাল থেকেই ‘এক্সট্র্যাকশন’ নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে। কারণটা চলচ্চিত্রটির নাম ও প্রেক্ষাপট যে ছিল ‘ঢাকা’। তবে সর্বশেষ এটি নাম রাখা হয় ‘এক্সট্র্যাকশন’। চলতি বছরের ২৪ এপ্রিল নেটফ্লিক্সে ছবিটি মুক্তি পায়। আলোচনার পাশাপাশি ছবিটি নিয়ে বাংলাদেশে সমালোচনাও উঠেছে তুমুল।
সিনেমাটির কাহিনি ও চিত্রনাট্য লিখেছেন ‘অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়ার’ ছবির পরিচালক জো রুশো ও অ্যান্থনি রুশো ভ্রাতৃদ্বয়। এর প্রযোজক তারাই। প্রধান ভূমিকায় থাকছেন ক্রিস হেমসওর্থ। এতে আরও অভিনয় করেছেন ডেভিড হারবার, ভারতীয় অভিনেতা রণদীপ হুদা, পঙ্কজ ত্রিপঠি, ইরানি গোলশিফতেহ ফারাহানিসহ অনেকে। পরিচালক স্যাম হারগ্রেভ।
এতে পরামর্শক ও ভাষা কোচ হিসেবে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশের ওয়াহিদ ইবনে রেজা ও রাফায়েল আহসান।
সূত্র: সিএনএন

/এম/এমএম/

লাইভ

টপ