এবার স্কুলে স্কার্ফ নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে ফ্রান্স

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:২২, অক্টোবর ৩০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৫২, অক্টোবর ৩০, ২০১৯

ফ্রান্সে স্কুলশিক্ষার্থীর অভিভাবকদের স্কার্ফ ব্যবহার নিয়ে একটি বিতর্কিত বিল পাস হয়েছে। সিনেটের অনুমোদিত ওই বিলে স্কুলে গেলে মুসলিম নারী অভিভাবকদের স্কার্ফ পরা নিষিদ্ধের কথা বলা হয়। মঙ্গলবার এই বিলের পক্ষে ১৬৩ জন সিনেটর ভোট দেন। আর এর বিপক্ষে অবস্থান নেন ১১৪ জন।

ফ্রান্স ইউরোপের প্রথম দেশ, যেখানে বোরকা আইন করে নিষিদ্ধ করা হয়। ফ্রান্সে ৫০ লাখ মুসলমানের বাস। ২০১১ সালের এপ্রিল থেকে ফ্রান্সে মুখঢাকা পোশাক নিষিদ্ধ। এরমধ্যে বোরকা ও নেকাবও রয়েছে। এই আইন ভঙ্গ করলে ১৫০ ইউরো জরিমানা গুনতে হয়।

এবার স্কার্ফ বাতিলের নতুন এই আইন করতে যাচ্ছে ফ্রান্স। তবে এখনও সেজন্য দেশটির জাতীয় পরিষদের অনুমোদন লাগবে। ক্ষমতাসীন দল এই বিলের বিপক্ষে থাকায় তা পাস হওয়ার সম্ভাবনা কম।

চলতি মাসের শুরুর দিকে দেশটির ডানপন্থী পার্লামেন্ট সদস্য জুলিয়েন ওদুল এক মুসলিম নারীকে বৈঠকে তার নেকাব খুলতে বলেন এবং আক্রমণাত্মক কথা বলেন। এরপর সমালোচনার ঝড় ওঠে।

এরপর ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে এক চিঠিতে ৯০ জন  শিক্ষাবিদ, পরিচালক, অভিনেতা ও সাংবাদিক ওদুলের ওই আক্রমণের নিন্দা জানানোর আহ্বান জানান।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, জনসম্মুখে স্কার্ফ পরাটা আমার কেনাও বিষয় নয়। কিন্তু স্কুলে স্কার্ফ পরার ব্যাপারে আমি কথা বলতে চাই। কারণ, স্কুলে আমরা অসাম্প্রদায়িকতা শেখাই।  

সর্বশেষ সোমবার ফরাসি শহর বেয়নির এক মসজিদে নামাজ পড়ার সময় দুজন বন্দুক হামলার শিকার হন। হামলাকারীকে আটক করা হয়েছে। তিনি সাবেক সেনা সদস্য। 

/এমএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ