বিমান ভূপাতিতসীমান্তে মার্কিন যুদ্ধবিমান ওড়ার খবরে ঘাবড়ে যায় ইরান: রাশিয়া

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১০:২৪, জানুয়ারি ১৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫২, জানুয়ারি ১৮, ২০২০

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ইউক্রেনীয় যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত করার ঘটনাটি এমন সময় ঘটেছে যখন সীমান্তে অত্যাধুনিক ছয়টি মার্কিন যুদ্ধবিমান এফ-৩৫ ওড়ার খবরে ইরান ঘাবড়ে গিয়েছিল। শুক্রবার মস্কোতে বার্ষিক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেছেন তিনি। রুশ সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক নিউজ এখবর জানিয়েছে।

ল্যাভরভ বলেন, মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার পর ইরানের সীমান্তে অন্তত ছয়টি মার্কিন এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান উড়ছিল। যদিও এই তথ্য সম্পর্কে পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

৮ জানুয়ারি ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর ভুলবশত ইরানের বিপ্লবী বাহিনীর আকাশ প্রতিরক্ষা শাখার নিক্ষিপ্ত ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ইউক্রেনের একটি যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত হয়। এ ঘটনায় তেহরান থেকে কিয়েভ হয়ে টরেন্টোগামী বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে ১৭৬ আরোহী নিহত হন। নিহতদের মধ্যে  ১৪৭ জনই ইরানি নাগরিক। বাকি ২৯ জন ইউক্রেন, কানাডা, সুইডেন, আফগানিস্তান ও ব্রিটেনের নাগরিক ছিলেন। শুরুতে কারিগরি ত্রুটিতে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে দাবি করলেও শেষ পর্যন্ত ইরান স্বীকার করে তাদের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে বিমানটি ভূপাতিত হয়।

দায় স্বীকার করে ইরানের  সশস্ত্র বাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছিল, দেশের আশপাশে মার্কিন সন্ত্রাসী বাহিনীর জঙ্গিবিমানের আনাগোনা বেড়ে যাওয়ার কারণে ইরানের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছিল। এ অবস্থায় ইউক্রেনের যাত্রীবাহী বিমান ইরানের একটি স্পর্শকাতর স্থাপনার আকাশে চলে আসায় ভুল করে সেটি লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়।

ল্যাভরভ বিমান ভূপাতিত করার ঘটনাকে মনুষ্যোচিত ভুল উল্লেখ করেন। তবে তিনি বলেন, যা ঘটেছে সেটির কোনও অজুহাত তিনি দাঁড় করাতে চাচ্ছেন না। কিন্তু কোন পরিস্থিতিতে ঘটনাটি ঘটেছে তা অনুধাবন করা গুরুত্বপূর্ণ। এমন সময় ঘটনাটি ঘটেছে যখন ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে হামলা চালিয়েছে ইরান এবং যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে তারা পাল্টা সামরিক হামলার আশঙ্কা করছিল।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গোয়েন্দা তথ্যে জানা গেছে যে, ইরাকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর পর ইরান যুক্তরাষ্ট্রের হামলার আশঙ্কা করছিল। কিন্তু তারা জানতো না কীভাবে এই হামলা চালানো হবে। ওই সময় সীমান্তে অন্তত ছয়টি এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান উড়ছিল। যদিও তা পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে আমি জোর দিতে চাই যে, এমন পরিস্থিতিতে ঘাবড়ে যাওয়া স্বাভাবিক।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ