ইকুইফ্যাক্স হ্যাকিং: চীনের ৪ সামরিক কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৩:১৪, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:১৬, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২০

মার্কিন ক্রেডিট রিপোর্টিং প্রতিষ্ঠান ইকুইফ্যাক্সে হ্যাকিংয়ের ঘটনায় চীনের চার সামরিক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ২০১৭ সালের মে মাসের মাঝামাঝি থেকে জুলাইয়ের মধ্যে বড় ধরনের সাইবার হামলা চালিয়ে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেয় তারা। দীর্ঘ তদন্তের পর সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) আটলান্টার ফেডারেল আদালতে ওই চীনা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে কর্তৃপক্ষ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইকুইফ্যাক্স হ্যাকিংয়ের ঘটনায় ১৪ কোটি ৭০ লাখেরও বেশি মার্কিনির নাম ও ঠিকানাসহ ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়ে যায়, যা মোট মার্কিন জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক। হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে হাতিয়ে নেয় তাদের মূল্যবান তথ্য। সেই সময়ে যুক্তরাজ্য এবং কানাডার কিছু গ্রাহকও হ্যাকিংয়ের শিকার হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টার ফেডারেল কোর্টে ওই চারজনের বিরুদ্ধে ৯টি অপরাধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার বলেছেন, ‘হ্যাকাররা যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের ব্যক্তিগত তথ্যে ইচ্ছাকৃতভাবে ব্যাপকমাত্রার হস্তক্ষেপ করেছে।’ তিনি হ্যাকিংয়ের ওই ঘটনাকে ‘ইতিহাসের সবচেয়ে বড় তথ্য লঙ্ঘনের ঘটনা’ বলেও বর্ণনা করেন।

আদালতের নথি অনুযায়ী, ওই চার চীনা ‘পিপলস লিবারেশন আর্মি’র ৫৪তম রিসার্চ ইন্সটিটিউটের সদস্য, যা চীনের সেনাবাহিনীরই একটি অংশ।’ আদালতে দাখিলকৃত অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, ওই সামরিক কর্মকর্তারা কোম্পানির সিস্টেম নিয়ে কয়েক সপ্তাহ ধরে নাড়াচাড়া করে নিরাপত্তা নেটওয়ার্ক ভেঙে ফেলে এবং ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে। সেইসঙ্গে বাণিজ্য বিষয়ক তথ্যও হাতিয়ে নিয়েছে তারা।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তবে অভিযুক্তরা কোথায় আছেন সে সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি এবং তারা বিচারের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন তেমন সম্ভাবনাও খুব একটা নেই।

/এইচকে/বিএ/

লাইভ

টপ