শীর্ষ সামরিক পর্যায়ে বৈঠকে বসছে চীন ও ভারত

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৬:০৭, জুন ০৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:০৯, জুন ০৬, ২০২০

পূর্ব লাদাখে সৃষ্ট সীমান্ত বিরোধ নিরসনে সামরিক বাহিনীর উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে বসতে যাচ্ছে চীন ও ভারত। দিল্লির আহ্বানে শনিবার চুসুল-মোলডোতে ইন্ডিয়ান বর্ডার পয়েন্ট মিটিং হাট-এ এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভি।

পূর্ব লাদাখে সীমান্ত বিরোধ নিয়ে শুক্রবার কূটনৈতিক পর্যায়ে আলোচনা করেছে চীন ও ভারত। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে আলোচনার মাধ্যমে ভিন্নমত নিরসনে সম্মত হয় দুই দেশ। এছাড়া পরস্পরের স্পর্শকাতরতা, উদ্বেগ এবং আকাঙ্ক্ষার প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনেও সম্মত হয় তারা।

শনিবারের সেনাবাহিনী পর্যায়ের বৈঠকে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন ১৪ নম্বর ব্যাটেলিয়ানের কম্যান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরিন্দর সিং। চিনের তরফে তিব্বত মিলিটারি ডিস্ট্রিক্টের কম্যান্ডার থাকবেন বৈঠকে। আগে স্থানীয় সেনা কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠকে বড় ধরনের কোনও অগ্রগতি না হলেও এই বৈঠক থেকে সাফল্যের আশা করছে দুই পক্ষই।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, বৈঠকে সীমান্ত এলাকা থেকে চীনের অতিরিক্ত সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়ার আহ্বান জানাবে দিল্লি। উত্তেজনা তৈরির আগে পরিস্থিতি যেরকম ছিল তা ফিরিয়ে আনার বিষয়েই জোর দেবে ভারত। ওই আলোচনার উল্লেখ না করলেও ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সীমান্তের বর্তমান বিরোধ নিরসনে ভারত ও চীন সেনা ও কূটনৈতিক পর্যায়ে আলোচনা চালিয়ে যাবে।

ভারত আগে থেকে অভিযোগ করে আসছে লাদাখ ও সিকিমে টহল দেওয়ার সময় গত কয়েক সপ্তাহে বেশ কয়েক বার নিয়ন্ত্রণ রেখা অতিক্রম করেছে চীন। আর এতেই দুই দেশের সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। গত ৫ ও ৬ মে প্যাঙ্গং লেক এলাকায় দুই দেশের সেনাদের মধ্যে লাঠি-রড নিয়ে সংঘর্ষ হয়। এই সংঘর্ষের পরেই লাদাখের একাধিক এলাকায় সীমান্ত পেরিয়ে প্রবেশ করার চেষ্টা করে চীনের সেনাবাহিনী। লাদাখের উত্তর অংশেও নিজেদের গতিবিধি বাড়ায় চীন।

অন্যদিকে চীনের তরফে অভিযোগ করা হয়, প্যাঙ্গং লেক এলাকায় রাস্তা তৈরি করেছে ভারত। এই রাস্তা তৈরি করে সীমান্তে উত্তেজনা বাড়ানোর চেষ্টা ভারতই করছে বলে অভিযোগ করে চীন। এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে দিল্লি।

/জেজে/

লাইভ

টপ