ঢাকা-সিঙ্গাপুর রুটে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের এয়ারবাস এ৩৫০-৯০০

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:৩০, জানুয়ারি ০৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:১৩, জানুয়ারি ০৭, ২০২০

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের উড়োজাহাজঢাকা-সিঙ্গাপুর রুটে যাত্রীসেবা দিতে এ৩৫০-৯০০ মডেলের নতুন এয়ারবাস ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রতিদিন নতুন এই উড়োজাহাজ সিঙ্গাপুর থেকে ঢাকা (ফ্লাইট নম্বর এসকিউ৪৪৬) এবং ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরে (ফ্লাইট নম্বর এসকিউ৪৪৭) চলাচল করবে। এছাড়া প্রতি সপ্তাহে ঢাকা-সিঙ্গাপুর রুটে চলাচল করা অন্য তিনটি ফ্লাইটের আকাশযান অপরিবর্তিত থাকবে। মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস বাংলাদেশের হেড অব সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং রিফাত কাদের জানান, এ৩৫০-৯০০ উড়োজাহাজে ৩০৩টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাসের সংখ্যা ৪০টি, ইকোনমি ক্লাস ২৬৩টি। সম্প্রতি এশিয়া অঞ্চলের রুটে চালু হওয়া এয়ারলাইনসটির আকাশযানের বিজনেস ক্লাস ও ইকোনমি ক্লাসে যেসব সুবিধা ছিল এ৩৫০-৯০০ এয়ারবাসেও একই সুবিধা থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ৩৫০-৯০০ মডেলের এয়ারবাসে রয়েছে অত্যাধুনিক অভ্যন্তরীণ বিনোদন সিস্টেম। ভ্রমণকারীরা সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের নতুন উড়োজাহাজে স্ব-নিয়ন্ত্রণে মাইক্রিসওয়ার্ল্ডের ইনফ্লাইট এন্টারটেইনমেন্ট (আইএফই) উপভোগ করতে পারবেন। পছন্দমাফিক ও পূর্বের দেখা কন্টেন্ট অনুযায়ী বিনোদনমূলক কন্টেন্ট দেখা যাবে। ক্রিসফ্লাইয়ারের সদস্যরা কন্টেন্ট বুকমার্ক করে রেখে পুনরায় তা দেখতে পারবেন। পরবর্তী ফ্লাইটের জন্য পছন্দসই কনটেন্ট ও প্লে-লিস্ট সংরক্ষণ করা যাবে। ক্রিসফ্লাইয়ারের সদস্য এবং বিজনেস ক্লাসের ভ্রমণকারীরা অতিরিক্ত ইন ফ্লাইট এন্টারটেনমেন্ট (আইএফই) উপভোগের সুবিধা পাবেন। উড়োজাহাজটিতে ওঠার আগে ভ্রমণকারীরা সিঙ্গাপুর এয়ার মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে পছন্দানুযায়ী প্লে-লিস্ট বাছাই করতে পারবেন।

সংবাদ সম্মেলনে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের কর্মকর্তারাএয়ারবাসটির অভ্যন্তরে ভ্রমণকারীরা উচ্চগতি সম্পন্ন ওয়াই-ফাই সুবিধা পাবেন। এর বিজনেস ক্লাসের আসনগুলো তৈরি করেছে স্টেলিয়া এরোস্পেস। এগুলোর বিন্যাস হলো ১-২-১, যেখানে সারি ও আসনের মধ্যে সরাসরি চলাচলের সুবিধা থাকবে। যাত্রীরা ভ্রমণের সময় আসনগুলো পুরোপুরি ৭৬ ইঞ্চি ফ্ল্যাট বেডে পরিণত করতে পারবেন। এছাড়া বিজনেস ক্লাসের ভ্রমণকারীদের জন্য স্বল্প দূরত্বের ফ্লাইটে আরও বেশিক্ষণ বিশ্রাম নেওয়ার সুযোগ থাকছে। প্রতিটি আসন ২৬ ইঞ্চি প্রস্থের হবে, যেখানে খুব সহজে আর্মরেস্ট ওঠা-নামা করানো যাবে। এছাড়া আছে ব্যক্তিগত সামগ্রী রাখার পর্যাপ্ত স্থান, আসনের সঙ্গে সংযুক্ত পাওয়ার সাপ্লাই ও ইউএসবি পোর্ট, অ্যাডজাস্টেবল রিডিং লাইট ইউনিট এবং প্রত্যেক আসনের সামনে একটি করে ১৭ ইঞ্চির এইচডি টাচ স্ক্রিন মনিটর।

নতুন ইকোনমি ক্লাস নকশা ও ডিজাইন করেছে রিকারো। এখানকার আসন বিন্যাস হলো ৩-৩-৩। এগুলোতে ভাঁজযোগ্য উইংসসহ রয়েছে ছয় রকমের অ্যাডজাস্টেবল হেডরেস্ট, যা দেবে আরামদায়ক নেক সাপোর্ট। ইকোনমি ক্লাসে ভ্রমণকারী যাত্রীরা ১১ দশমিক ৬ ইঞ্চির এইচডি টাচস্ক্রিন মনিটরের মাধ্যমে বিনোদন উপভোগ করতে পারবেন। মাইক্রিসওয়ার্ল্ডে একহাজারেরও বেশি ছবি, টিভি শো, অডিও অনুষ্ঠান ও গেমসের মধ্য থেকে পছন্দসই কন্টেন্ট উপভোগ করা যাবে। ইকোনমি ক্লাসে ভ্রমণকারী যাত্রীদের জন্য রয়েছে আরও অনেক ফিচার। এর মধ্যে ব্যক্তিগত সামগ্রী রাখার জন্য নিজস্ব জায়গা, একটি কোট হুক, আসনের সঙ্গে সংযুক্ত পাওয়ার সাপ্লাই ও ইউএসবি পোর্ট। এ৩৫০-৯০০ মডেলের এয়ারবাসে রয়েছে ভ্রমণের জন্য আরামদায়ক উঁচু সিলিং, বড় জানালা ও অধিক জায়গা।

২০১৮ সালের অক্টোবরে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস বিশ্বের প্রথম এ৩৫০-৯০০ মডেলের আল্ট্রা লং রেঞ্জ (ইউএলআর) উড়োজাহাজ দিয়ে সিঙ্গাপুর-নিউয়ার্ক রুট নতুনভাবে চালু করে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে একইরকম আকাশযান দিয়ে সিঙ্গাপুর থেকে সিয়াটলে বিরতিহীন ফ্লাইট পরিচালনা শুরু হয়। ইউএলআর উড়োজাহাজের বিজনেস ক্লাসে ৬৭টি ও প্রিমিয়াম ইকোনমি ক্লাসে ৯৪টি আসন রয়েছে।

/সিএ/জেএইচ/
টপ