X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

টহল টিমের গতিপথ বুঝে ছিনতাই করতো ওরা

আপডেট : ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৯:৪৬

ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজে পড়েন ভারতীয় দুই শিক্ষার্থী। ভারত যাওয়ার উদ্দেশ্যে ভোরে বাসা থেকে বের হয়ে মগবাজার মেইন রোডে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তখন একটি সাদা প্রাইভেটকার থেকে চার জন নেমে দুই শিক্ষার্থীকে অস্ত্রের ভয় দেখায়। ছিনিয়ে নেয় মূল্যবান জিনিসপত্র ও টাকা। ভুক্তভোগীরা বাদী হয়ে রমনা থানায় একটি ছিনতাইয়ের মামলা করেন। ছায়া তদন্তে নামে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ডিএমপি’র রমনা গোয়েন্দা বিভাগ। ছিনতাইয়ে জড়িত সাত জনের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায় তদন্তে। চার সদস্যের বেশি জড়িত থাকায় ছিনতাইয়ের মামলাটি হয়ে যায় ডাকাতির মামলা।

‘প্রাথমিকভাবে ভুক্তভোগী ছিনতাইয়ের মামলা করলেও আমরা তদন্তে ডাকাতির প্রমাণ পেয়েছি’ মন্তব্য করেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা।

তারা আরও জানান, ‘নির্দিষ্ট এলাকা ছিল না তাদের। রাজধানীতে সুযোগমতো ছিনতাই করতো। আগেও কয়েকটি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়েছে এই চক্রের সদস্যরা।’

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, চক্রটি মূলত ভোররাতে যাতায়াতকারীদের অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ছিনতাই করতো। রমনা এলাকায় বাংলাদেশ অধ্যায়নরত ভারতীয় দুই শিক্ষার্থীকে ছিনতাইয়ের ঘটনায় চক্রের সাত সদস্যকে ২৮ জানুয়ারি ঢাকার বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

গোয়েন্দারা বলছেন, ভোররাতে যেখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহল কম থাকে সেসব জায়গা টার্গেট করতো ওরা। টহল টিম রাতে বিভিন্ন জায়গা প্রদক্ষিণ করে। চক্রের সদস্যরা পুলিশের টহল টিমের গতিপথে চোখ রাখতো। নির্দিষ্ট সময় মেপেই ছিনতাই করতো ওরা। এ ছাড়া তারা ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত প্রাইভেটকারের নাম্বার প্লেটও ঢেকে রাখতো।

গোয়েন্দারা আরও জানালেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে প্রাইভেটকারগুলো ভাড়া করতো চক্রটি। গাড়ির মালিক জানতো না তাদের অপকর্মের কথা। একজন চিকিৎসকের গাড়িচালকও ছিনতাই চক্রের সদস্য ফখরুল ইসলামকে গাড়ি ভাড়া দিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পুলিশ বলছে গ্রেফতারকৃত আব্দুল্লাহ আল ইউসুফ আহমেদ ওরফে আসিক রাজধানীসহ বিভিন্ন এলাকায় ছিনতাই করতো। সে এই চক্রের মূল হোতা। তার বিরুদ্ধে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় ৮টি মামলা রয়েছে। মাদক মামলাও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এর আগেও গ্রেফতার হয়েছিল সে। জামিনে বেরিয়ে আবারও শুরু করে ছিনতাই। এ ছাড়া গ্রেফতারকৃত, মো. ফখরুল ইসলাম ওরফে ফকু, মো. আলমাস, সামুন, শাহিন, বাবু ও শফিকুল ইসলামের নামেও বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

/এফএ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
‘আদর্শের বদলে সুবিধা নেওয়া এখন রাজনীতির নিয়ম’
মেননের ৭৯তম জন্মদিন উদযাপন‘আদর্শের বদলে সুবিধা নেওয়া এখন রাজনীতির নিয়ম’
ভোরের কাগজের প্রকাশক-সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলায় এডিটরস গিল্ডের নিন্দা
ভোরের কাগজের প্রকাশক-সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলায় এডিটরস গিল্ডের নিন্দা
বিশ্বকাপের কাজে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে আগ্রহী কাতার
বিশ্বকাপের কাজে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে আগ্রহী কাতার
তালাক দেওয়ায় সাবেক স্ত্রীর সন্তানকে হত্যা
তালাক দেওয়ায় সাবেক স্ত্রীর সন্তানকে হত্যা
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বিপুল অর্থে গ্রেনাডার নাগরিক হয়েছিলেন পি কে হালদার!
বিপুল অর্থে গ্রেনাডার নাগরিক হয়েছিলেন পি কে হালদার!
দিনে দুই হাজার লোক ঢাকায় ঢুকে: মেয়র আতিক
দিনে দুই হাজার লোক ঢাকায় ঢুকে: মেয়র আতিক
সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন যারা
সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন যারা
কাদা মাড়িয়ে দায়িত্ব পালনে মেয়র তাপস
কাদা মাড়িয়ে দায়িত্ব পালনে মেয়র তাপস
বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ বাতিল
বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ বাতিল