X
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪
৩ বৈশাখ ১৪৩১

ই-সিগারেটের ভোক্তা তৈরি করতে মূল টার্গেট তরুণ প্রজন্ম

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ২৩:৫৬আপডেট : ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ২৩:৫৬
ই-সিগারেট আগামী প্রজন্মকে ধূমপানে আকৃষ্ট করতে তামাক কোম্পানির নতুন কৌশল। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে ই-সিগারেট বা ভেপিং আরো বেশি ক্ষতিকর। সরকার ই-সিগারেট নিষিদ্ধের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে রূপান্তরিত করতে সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে হবে, আর সেই জন্য তামাকের মতো ক্ষতিকর দ্রব্য থেকে জনগণকে বিরত রাখা জরুরি।
 
সোমবার (৩০ জানুয়ারি) ডাব্লিউবিব ট্রাস্টের কৈবর্ত সভাকক্ষে "Importance of Banning E-Cigarettes in Bangladesh”শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা এই অভিমত ব্যক্ত করেন। টোব্যাকো কন্ট্রোল এ্যান্ড রিসার্স সেল (টিসিআরসি) ও বাংলাদশে তামাক বিরোধী জোট যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে।
 
বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের সমন্বয়কারী সাইফুদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে এবং ব্যুরো অফ ইকোনমিক রিসার্চের কর্মসূচি ব্যবস্থাপক হামিদুল ইসলাম হিল্লোলের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, দি ইউনিয়নের কারিগরি পরামর্শক (বাংলাদেশ) এ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহবুবুল আলম। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক বজলুর রহমান।
 
সভায় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তামাক নিয়ন্ত্রণে কর্মরত বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
 
মূল প্রবন্ধে সৈয়দ মাহবুবুল আলম বলেন, তামাক কোম্পানিগুলো সিগারেটের বিকল্প হিসাবে ই-সিগারেটে আসক্ত করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে বিভিন্ন মিথ্যাচার করছে। দীর্ঘ মেয়াদী ভোক্তা তৈরি করতে তাদের মূল টার্গেট তরুণ প্রজন্ম। সম্প্রতি ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন-২০০৫ সংশোধনের খসড়ায় ই-সিগারেটের উৎপাদন ও বিপণন নিষিদ্ধের বিধান যুক্ত করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যয় বাস্তবায়নে ২০৪০ সালের পূর্বে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করতে এখনই ই-সিগারেট, ভেপিংয়ের মতো পণ্য নিষিদ্ধ করতে হবে বলে দাবি করেন।
 
অতিথি হিসেবে পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক রখফার সুলতানা খানম বলেন, সব ধরণের তামাক শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। তরুণদের তামাক ব্যবহার হতে দূরে রাখতে হবে। এ জন্য জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের সঙ্গে কাজ করা জরুরী।
 
ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের পরিচালক ইকবাল মাসুদ বলেন, বর্তমানে বাজারে প্রচলিত বিভিন্ন সিগারেটের তুলনায় ই-সিগারেট কোনো দিক দিয়েই কম ক্ষতিকর নয়। ই-সিগারেট বন্ধে তিনি নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে কর্মরত ব্যক্তিদের সঙ্গে সবাইকে একযোগে কাজ করার আহবান জানান।
 
ভাইটাল স্ট্রাটিজিসের হেড অফ প্রোগ্রামস (বাংলাদেশ) শফিকুল ইসলাম বলেন, ই-সিগারেটের ব্যবহার খুব দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে যা সত্যিই ভয়াবহ। তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের পাশাপাশি অন্য কোন কোন উপায়ে এই পণ্য নিষিদ্ধ করা যায় এই বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে সাথে নিয়ে কাজ করার আহবান জানান।
 
বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের সমন্বয়কারী সাইফুদ্দিন আহমেদ বলেন, ই-সিগারেট তামাক কোম্পানির ব্যবসা প্রসারের একটি নতুন কৌশল। এতে নিকোটিনের পাশাপাশি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর অন্যান্য লিকুইড ব্যবহার করা হয়। পরিশেষে তিনি স্বাস্থ্যহানিকর সকল পণ্য নিয়ন্ত্রণে সকলকে একযোগে কাজ করার আহবান জানান।বাংলা ট্রিবিউট রিপোর্ট।।
/এইচএএইচ/এমআর/
সম্পর্কিত
সর্বশেষ খবর
আদালতে হাজির হয়ে ট্রাম্প বললেন, ‘এটি কেলেঙ্কারির বিচার’
আদালতে হাজির হয়ে ট্রাম্প বললেন, ‘এটি কেলেঙ্কারির বিচার’
পর্যটকদের মারধরের অভিযোগ এএসপির বিরুদ্ধে
পর্যটকদের মারধরের অভিযোগ এএসপির বিরুদ্ধে
২৭ বছর পর বাড়ি ফিরলেন শাহীদা, পূরণ হয়নি যে আশা
২৭ বছর পর বাড়ি ফিরলেন শাহীদা, পূরণ হয়নি যে আশা
ছাগলে গাছ খাওয়ায় দুপক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ১০
ছাগলে গাছ খাওয়ায় দুপক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ১০
সর্বাধিক পঠিত
কিছু আরব দেশ কেন ইসরায়েলকে সাহায্য করছে?
কিছু আরব দেশ কেন ইসরায়েলকে সাহায্য করছে?
বান্দরবা‌নে বম পাড়া জনশূ‌ন্য, অন্যদিকে উৎসব
বান্দরবা‌নে বম পাড়া জনশূ‌ন্য, অন্যদিকে উৎসব
সরকারি চাকরির বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, আবেদন শেষ ১৮ এপ্রিল
সরকারি চাকরির বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, আবেদন শেষ ১৮ এপ্রিল
শেখ হাসিনাকে নরেন্দ্র মোদির ‘ঈদের চিঠি’ ও ভারতে রেকর্ড পর্যটক
শেখ হাসিনাকে নরেন্দ্র মোদির ‘ঈদের চিঠি’ ও ভারতে রেকর্ড পর্যটক
ঈদের সিনেমা: হলে কেমন চলছে, দর্শক কী বলছে
ঈদের সিনেমা: হলে কেমন চলছে, দর্শক কী বলছে