X
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
১০ ফাল্গুন ১৪৩০

জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষয়ক্ষতির জন্য স্বতন্ত্র তহবিলের দাবি

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
১১ নভেম্বর ২০২৩, ২০:৩১আপডেট : ১১ নভেম্বর ২০২৩, ২০:৩১

আসন্ন জলবায়ু সম্মেলন (কপ ২৮) এ বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার সর্বোচ্চ ১ দশমিক ৫ ডিগ্রিতে রাখার জোর পদক্ষেপ নেওয়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকারকে অবস্থান নেওয়ার দাবি জানিয়েছে অধিকার ভিত্তিক নাগরিক সমাজ।

শনিবার (১১ নভেম্বর) ঢাকায় অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। এ ছাড়া ক্ষয়ক্ষতি বা লস অ্যান্ড ড্যামেজের জন্য আলাদা স্বতন্ত্র একটি তহবিল গঠনেরও দাবি বাংলাদেশের জানানো উচিত বলে তারা মত দেন।

কপ-২৮ জলবায়ু সম্মেলন: সরকার ও নাগরিক সমাজের অভিমত শীর্ষক সেমিনারটি যৌথভাবে আয়োজন করে কোস্ট ফাউন্ডেশন, এন অর্গানাইজেশন ফর সোশিও ইকোনমিক ডেভেলামেন্ট, বাংলাদেশ ক্লাইমেট জার্নালিস্ট ফোরাম, ক্লাইমেট অ্যাকশন নেটওয়ার্ক, সাউথ এশিয়া-বাংলাদেশ, সেন্টার ফর পার্টিসিপেটরি রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, কোস্টাল ডেভেলপমেন্ট পার্টনারশিপ, সেন্টার ফর রুরাল লাইভলিহুড, ইক্যুইটি অ্যান্ড জাস্টিস ওয়ার্কিং গ্রুপ, বাংলাদেশ, এলইডিআরএস এবং এলডিসি ওয়াচ।

ইক্যুইটিবিডির রেজাউল করিম চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিকসের সভাপতি ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমেদ এবং প্রধান অতিথি ছিলেন জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এবং সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক জিয়াউল হক ও মির্জা শওকত আলী, ওয়াটার কিপার্সের শরীফ জামিল, সিপিআরডির মো. শামসুদ্দোহা, পিকেএসএফের ফজলে রাব্বি সাদেকী আহমেদ, সিএসআরএলের জিয়াউল হক মুক্তা, কানসা-বিডির সভাপতি রাবেয়া বেগমসহ আরও অনেকে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইক্যুইটিবিডির আমিনুল হক।

আমিনুল হক কপ-২৮-এর গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, এই সম্মেলনে প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নের অগ্রগতি সংগ্রহ ও যাচাই করা হবে। এতে সেই চুক্তির অনেক লক্ষ্যমাত্রা পূরণের ব্যর্থতার চিত্র উঠে আসবে। তিনি উষ্ণতার লক্ষ্যমাত্র ১ দশমিক ৫-এর ভেতর রাখা এবং জলবায়ু অর্থায়নের লক্ষ্য পূরণে ব্যর্থ হওয়ায় ধনী দেশগুলোর সমালোচনা করেন। তিনি লস অ্যান্ড ড্যামেজের বিষয়ে একটি ঐকমত্যে পৌঁছাতে ব্যর্থ হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র এবং তার বন্ধুরাষ্ট্রগুলোর সমালোচনা করেন।

জলবায়ু সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশ দলের কাছে সম্মেলনে কয়েকটি বিষয়ে জোর দেওয়ার সুপারিশ করেন, সেগুলো হলো: ১. কার্বন উদগিরণকারী বড় দেশগুলোকে ২০৫০ সালের মধ্যে শূন্য উদগিরণের লক্ষ্য নিয়ে তাদের জাতীয় লক্ষ্যমাত্রা পুনর্নির্ধারণ করতে হবে, ২. একটি স্বতন্ত্র লস অ্যান্ড ড্যামেজ তহবিল গঠন করা, ৩. জলবায়ু অর্থায়নের একটি নতুন ব্যবস্থা যা হবে অনুদান নির্ভর, ঋণনির্ভর নয় এবং অতিবিপদাপন্ন দেশগুলোকে রক্ষায় বিশেষ সহায়তা দিতে হবে।

সাবের হোসেন চৌধুরী ইউএনএফসিসিসির বর্তমান প্রক্রিয়ার বেশ কয়েকটি ঘাটতির কথা উল্লেখ করেন, যেমন কোনও বিষেয়ে কোনও একটি দশ সম্মতি না দিলেই আর কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না। তিনি প্রক্রিয়াটি সংস্কারের সুপারিশ করেন, কারণ বিদ্যমান পরিস্থিতি বিশ্বকে একটি গভীর সংকটের দিকে নিয়ে যাচ্ছে এবং অর্জিত সাফল্য হ্রাস করছে।

তিনি বলেন, তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার ১ দশমিক ৫ ডিগ্রিতে রাখার লক্ষ্য পূরণের সাম্প্রতিক অবস্থার ওপর বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে তথ্য সংগ্রহ খুব জরুরি।

ব্যারিস্টার শামীম হায়দার বৈশ্বিক জলবায়ু আলোচনাকে বিশাল লক্ষ্য পূরণের ক্ষেত্রে সীমিত অর্জনসমৃদ্ধ একটি ডুবন্ত জাহাজ হিসেবে উল্লেখ করে এর মূল কারণ হিসেবে বলেন, এই সম্মেলনে প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোয় খুব দায়সারাভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আমাদের এমন সিদ্ধান্ত নিতে হবে, যা সবাই গ্রহণ করবে।

জিয়াউল হক বলেন, কার্বন নির্গমন হ্রাসকে সামনে রেখেই আইনগতভাবে বাধ্যতামূলক বিকল্পগুলোর ওপর ভিত্তি করে জাতীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। ফজলে রাব্বি সাদেকী বলেন, জলবায়ু তহবিলের নামে অনেক ঋণ আসছে, স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য ঋণের ফাঁদ তৈরি করছে। শরীফ জামিল জাতীয় স্বার্থ রক্ষা করে কার্বন নির্গমনকারী বড় দেশগুলোর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন। জিয়াউল হক মুক্তা এবং অন্যরা প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নে জন্য একটি কাঠামোগত আইনি ব্যবস্থার সুপারিশ করেন।

/এসএনএস/এনএআর/
সম্পর্কিত
‘বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি ১.৫ ডিগ্রিতে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে’
অনর্থক অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধ করুন, বিশ্ব নেতাদের প্রধানমন্ত্রী
‘দেশের ভবিষ্যতের জন্য টেকসই অবকাঠামো উন্নয়ন গুরুত্বপূর্ণ’
সর্বশেষ খবর
বাংলাদেশের কাস্টমস ফাঁকি দিয়ে চালান হওয়া সোনা ধরা পড়লো ভারতে
বাংলাদেশের কাস্টমস ফাঁকি দিয়ে চালান হওয়া সোনা ধরা পড়লো ভারতে
অর্থ আত্মসাতের মামলায় স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রীর জামিন
অর্থ আত্মসাতের মামলায় স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রীর জামিন
ইজিবাইকে ৬ যাত্রী, মাহিন্দ্রের চাপায় প্রাণ গেলো দুই জনের
ইজিবাইকে ৬ যাত্রী, মাহিন্দ্রের চাপায় প্রাণ গেলো দুই জনের
লাল কার্ড ও চার গোলের রোমাঞ্চে আবাহনী-মোহামেডানের কেউ জেতেনি
লাল কার্ড ও চার গোলের রোমাঞ্চে আবাহনী-মোহামেডানের কেউ জেতেনি
সর্বাধিক পঠিত
বাড়িওয়ালাদের তালিকা ধরে অভিযান চালাবে এনবিআর
বাড়িওয়ালাদের তালিকা ধরে অভিযান চালাবে এনবিআর
ইউরোপে মানবপাচারে জড়িত বিমানবন্দরের কর্তারা: ডিবির হারুন
ইউরোপে মানবপাচারে জড়িত বিমানবন্দরের কর্তারা: ডিবির হারুন
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরভিঅ্যান্ডএফ কোরের সদস্যদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন সেনাপ্রধান
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরভিঅ্যান্ডএফ কোরের সদস্যদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন সেনাপ্রধান
পারমাণবিক বোমারু বিমানে চড়ে পশ্চিমাদের বার্তা দিলেন পুতিন
পারমাণবিক বোমারু বিমানে চড়ে পশ্চিমাদের বার্তা দিলেন পুতিন
হাসপাতাল পরিচালনায় ১০ নির্দেশনা, না মানলে লাইসেন্স বাতিল
হাসপাতাল পরিচালনায় ১০ নির্দেশনা, না মানলে লাইসেন্স বাতিল