X
বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪
২ শ্রাবণ ১৪৩১

ফুল দোকানিদের প্রত্যাশা পূরণ করেনি বসন্ত ও ভালোবাসা দিবস

আসাদ আবেদীন জয়
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২৩:৫৭আপডেট : ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০০:২৩

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) একইসঙ্গে পালিত হয়েছে পহেলা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস। ছিল স্বরস্বতী পূজাও। এই তিন উৎসবকে কেন্দ্র করে ফুলে ফুলে সেজে উঠেছিল চারপাশ। ঋতুরাজকে বরণ আর ভালোবাসা দিবসকে উদযাপন করতে সকাল থেকেই ঘর থেকে বের হয়েছিল বিভিন্ন বয়সী মানুষ। সবার মধ্যেই ছিল উৎসবের সাজ সাজ রব। নিজেকে সাজাতে নারীরা প্রাধান্য দিয়েছিল ফুলকে। তাই গত কয়েকদিন ধরেই ফুলের দোকানগুলোতে ছিল তাদের আনাগোনা। আজও এর ব্যতিক্রম হয়নি।

এ দিন রাজধানীর শাহবাগের দোকানগুলো সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, দোকানে ক্রেতাদের প্রচুর ভিড়। বেশিরভাগ ক্রেতাকেই দেখা যায় গোলাপ ফুল কিনতে। গাঁদা ফুলের মালা ও মাথার ফুলের রিংয়ের চাহিদাও ছিল লক্ষণীয়। তবে ক্রেতাদের এই কেনাকাটা প্রত্যাশা পূরণ করেনি বিক্রেতাদের। তারা বলছেন, লাভের মুখ দেখবেন কিনা তা নিয়ে তারা সন্দিহান।

ইকো ফ্লাওয়ার শপের মহিউদ্দিন বলেন, এক লাখ টাকার ফুল কিনেছি বসন্ত আর ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে। এখন পর্যন্ত ৯০ হাজার টাকা বিক্রি করতে পেরেছি। এখন আমার চিন্তা চালান ওঠানোর।

মালঞ্চ পুষ্প কেন্দ্রের বিক্রেতা সবুজ বলেন, দেড় লাখ টাকার ফুল তুলেছিলাম দোকানে। এখন পর্যন্ত এক লাখ ৮০ হাজার টাকার বিক্রি করতে পেরেছি।

অহনা ফুল কুঠিরের বিক্রেতা আব্দুর রহিম বলেন, দুই লাখ টাকার ফুল উঠিয়েছি। এখনও চালান ওঠেনি। জানি না উঠবে কি না। ফুল তো আর বেশি দিন রেখে বিক্রি করা যায় না, নষ্ট হয়ে যায়।

শাহবাগের ফুল দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ভিড়

শেফালি ফুল ঘরের মালিক মো. মিজান বলেন, আমি দেড় লাখ টাকার ফুল কিনেছিলাম। এখন পর্যন্ত কত টাকা বিক্রি হয়েছে বলতে পারছি না। হিসাব করিনি। তবে চালান উঠে লাভ হয়েছে আশা করছি। আমার একটা পূজামণ্ডপের অর্ডার ছিল, তাই লাভ হবে। খুচরা বিক্রি করে আসলে লাভ হয় না।

বিক্রেতারা লাভ না হওয়ার কথা বললেও ক্রেতাদের দেখা যায় ফুল কিনতে। ক্রেতারা বলছেন, তারা বেশি দাম দিয়েই ফুল কিনেছেন।

বেসরকারি চাকরি করেন রিজভী। অফিস শেষে স্ত্রীর জন্য ফুল কিনে নিয়ে যাচ্ছিলেন। তিনি বলেন, আজ পহেলা ফাল্গুন আবার ভালোবাসা দিবসও। সারা দিন অফিসেই ছিলাম। এখন তাই ফেরার পথে স্ত্রীর জন্য ফুল কিনে নিয়ে যাচ্ছি। সময় দিতে না পারি ফুল তো নিয়ে যেতে পারি।

স্ত্রী ও শিশু কন্যাকে সঙ্গে নিয়ে ভালোবাসা দিবসে বেড়াতে বের হয়েছিলেন শাওন। তিনি বলেন, আজ ভালোবাসা দিবস, তাই আমার ভালোবাসার মানুষগুলোকে নিয়ে বেড়াতে বের হয়েছি। আমরা পরিবারে তিন জন সদস্য, তাই তিনটা গোলাপ কিনেছি। প্রতিটা গোলাপ কিনেছি ৮০ টাকা করে। দাম বেশি কিনা জানতে চাইলে বলেন, দাম দিয়ে কী আর ভালোবাসা হয়। ফুল তো ভালোবাসারই একটা প্রকাশ। এখানে দাম কোনও ব্যাপার না।

পছন্দের ফুল কিনে নিচ্ছেন এক ক্রেতা

অফিস শেষে বাড়ি ফিরছিলেন বেসরকারি চাকরিজীবী হেলাল উদ্দিন।  তিনি বলেন, ফেরার পথে ফুলের দোকানে ঢুঁ মারছিলাম। দাম-দর দেখছিলাম। সত্যি বলতে স্ত্রীর জন্য ফুলও কিনতে চেয়েছিলাম। কিন্তু একটা গোলাপের দাম বলে ৯০-১০০ টাকা। তখন মনে হলো ২০ টাকার ফুল ১০০ টাকা দিয়ে কিনে দেওয়া মানেই ভালোবাসা না। ভালোবাসা আরও অনেকভাবেই প্রকাশ করা যায়। তাই ফুল কিনলাম না।

প্রিয় মানুষকে নিয়ে বেড়াতে আসা মোহাইমেন বলেন, আমার প্রিয় মানুষকে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়েছি। ওর জন্য মাথায় ফুলের রিং কিনেছি ১০০ টাকা দিয়ে, তাও একদাম। এরকম একটা রিং ১০০ টাকা আসলে বেশিই।

শাহবাগ বটতলা ক্ষুদ্র ফুল ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লি. এর সভাপতি মো. আবুল কালাম আজাদ কয়েকদিনের ফুল বিক্রির তথ্য তুলে ধরে বলেন, পহেলা ফাল্গুন, ভালোবাসা দিবস ও স্বরস্বতী পূজা এই তিন উৎসবকে কেন্দ্র করে আমাদের ধারণা ছিল আমরা ফুলের চাহিদা মেটাতে পারবো না। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে উল্টো ঘটনা। আমাদের ফুল আছে কিন্তু বিক্রি নেই। এখানে বেশিরভাগ মানুষই ঘুরতে এসেছে বইমেলায়। তেমন ফুল তারা কিনছে না। কিনলেও ২-৩টা করে গোলাপ আর মাথার ফুলের রিং কিনছে। এরকম খুচরা বিক্রি করে লাভ করা যায় না। হয়তো কিছু কিছু দোকানদার লাভ করবে, তবে বেশিরভাগ দোকানদারই লোকসানের মুখ দেখবে বলে আমার ধারণা।

ফুলের অতিরিক্ত দাম রাখা নিয়ে তিনি বলেন, কিছু মিডলম্যান আছে যারা ফুলের দাম বাড়িয়ে দেয়। এদের কারণেই আমাদের বেশি দামে বিক্রি করতে হয়। প্রকৃতপক্ষে খুচরা ব্যবসায়ী বা চাষি কেউই লাভবান হয় না। লাভবান হয় ওই মিডলম্যানরা।

/আরআইজে/
সম্পর্কিত
বর্ষবরণে উত্তরে অলিগলি হালখাতা
লাভ বার্ড পাচারের অভিযোগে আটক এক বাংলাদেশি
দর্শনার্থীদের ভিড় বাড়লেও বিক্রি বাড়েনি বইমেলায়
সর্বশেষ খবর
ছাত্রদলের সাবেক সভাপতিসহ ৭ জন রিমান্ডে
ছাত্রদলের সাবেক সভাপতিসহ ৭ জন রিমান্ডে
জবিতে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে আল্টিমেটাম
জবিতে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে আল্টিমেটাম
বৃহস্পতিবার ঢাকায় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের ডাক
বৃহস্পতিবার ঢাকায় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের ডাক
সর্বাধিক পঠিত
সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা
সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা
কী আছে ড. জাফর ইকবালের মূল লেখায়
কী আছে ড. জাফর ইকবালের মূল লেখায়
ছাত্রলীগের ১৫ কর্মীকে ছয়তলা থেকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ
ছাত্রলীগের ১৫ কর্মীকে ছয়তলা থেকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ
রোকেয়া হল ছাত্রলীগের নেত্রীর কক্ষে হামলা, মারধর
রোকেয়া হল ছাত্রলীগের নেত্রীর কক্ষে হামলা, মারধর
ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগ করলেন আরেক নেতা, লিখলেন ‘আর পারলাম না’
ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগ করলেন আরেক নেতা, লিখলেন ‘আর পারলাম না’