X
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪
৬ বৈশাখ ১৪৩১

‘জলবায়ু সম্মেলনে দেশের স্বার্থরক্ষার কৌশল আরও জোরদার করতে হবে’

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২১ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১১আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১১

আসন্ন জলবায়ু সম্মেলনে দেশের স্বার্থরক্ষার কৌশলকে আরও জোরদার করতে একটি কার্যকর ও অন্তর্ভুক্তিমূলক পদ্ধতি গ্রহণের দাবি জানিয়েছে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা।

আজ বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) আসন্ন জলবায়ু সম্মেলন ‘কপ-২৬: সরকারি অবস্থান এবং নাগরিক সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে বক্তারা এ দাবি জানান।

কোস্ট ফাউন্ডেশন, অরগানাইজেশন ফর স্যোশিও ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট (এওএসইডি), সেন্টার ফর পার্টিসিপেটরি রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (সিপিআরডি), কোস্টাল ডেভেলপমেন্ট পার্টনারশিপ (সিডিপি), কোস্টাল লাইভলিহুড অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট অ্যাকশন নেটওয়ার্ক (ক্লিন) এবং ইক্যুইটি অ্যান্ড জাস্টিস ওয়ার্কিং গ্রুপ বাংলাদেশে (ইক্যুইটিবিডি) যৌথভাবে এই ওয়েবিনারের আয়োজন করে।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী। ইকুইটিবিডি’র রেজাউল করিম চৌধুরীর সঞ্চালনায় ওয়েবিনারে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার-২ এর এমপি আশেক উল্লাহ রফিক, পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক মীর্জা শওকতসহ আরও অনেকে। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইকুইটিবিডি’র  সৈয়দ আমিনুল হক।

সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আলোচনার প্রবাহকে বাংলাদেশের অনুকূলে নিয়ে আসার চেষ্টা অবশ্যই থাকবে। এর বাইরেও আমাদের প্রধানমন্ত্রী উন্নতদেশগুলোকে বাস্তবসম্মতভাবে গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণ হ্রাস লক্ষ্যমাত্রা মেনে চলতে উৎসাহিত করবেন এবং জিসিএফ তহবিলে ১০০ বিলিয়ন জোগান দেওয়ার ব্যাপারে উৎসাহিত করবেন।

মির্জা শওকত বলেন, আমরা কপ ২৬-এর জন্য একটি অবস্থান তৈরি করেছি এবং সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে বিষয়গুলো নিয়ে সমন্বয় প্রক্রিয়া চলছে। তিনি বলেন, ‘সরকারের অবস্থান প্রাথমিকভাবে অর্থ ও প্রযুক্তির ওপর জোর দেবে এবং আমরা চেষ্টা করবো জিসিএফ তহবিলে অভিযোজনের জন্য ৫০ ভাগ বরাদ্দ রাখার ব্যাপারে একটি ঐকমত্য প্রতিষ্ঠা করতে।

মূল প্রবন্ধে সৈয়দ আমিনুল হক সরকারি প্রতিনিধিদলের কাছে বেশ কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলোর মধ্যে আছে-বিশ্বব্যাপী তাপমাত্রা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে তাপমাত্রা ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে রাখার জন্য উন্নত এবং প্রধানদূষণকারী দেশগুলোর অবদান এবং অর্থনৈতিক আয়তনের ভিত্তিতে এনডিসির পুনর্বিবেচনা করা, উন্নত দেশগুলোকে অবশ্যই জিসিএফ - এর বাইরে অতিরিক্ত তহবিল নিশ্চিত করতে হবে, যাতে ক্ষয়-ক্ষতি হ্রাস করা যায় এবং পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাওয়ানো সম্ভব হয়, জিসিএফকে তার অর্থায়ন প্রক্রিয়াকে সহজ করতে হবে, যাতে প্রস্তুতিমূলক কর্মসূচি ও প্রকল্প প্রস্তাব তৈরি ও বাস্তবায়নের উভয় ক্ষেত্রেই সহজে অর্থ পাওয়া যায় এবং ইউএনএফসিসিসি ক্লাইমেট টেকনোলজি সেন্টার নেটওয়ার্কের মাধ্যমে অতি বিপদাপন্ন দেশগুলোর উপযুক্ত প্রযুক্তি নিশ্চিত করতে হবে, যাতে প্রশমন এবং অভিযোজন উভয় ক্ষেত্রেই দেশগুলো সক্ষমতা বাড়াতে পারে।

/এসএনএস/এমএস/
সম্পর্কিত
‘জলবায়ুর প্রভাব মোকাবিলায় অর্থের সঠিক ব্যবহার হচ্ছে না’
জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি মোকাবিলায় গবেষণা বাড়ানো হবে: কৃষিমন্ত্রী
জলবায়ুর পরিবর্তন: ক্ষতি কমাতে বছরে ব্যয় সাড়ে ৩ বিলিয়ন ডলার
সর্বশেষ খবর
দাবদাহে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের তরল খাদ্য দিচ্ছে ডিএমপি
দাবদাহে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের তরল খাদ্য দিচ্ছে ডিএমপি
জাপানি ছবির দৃশ্য নিয়ে কানের অফিসিয়াল পোস্টার
কান উৎসব ২০২৪জাপানি ছবির দৃশ্য নিয়ে কানের অফিসিয়াল পোস্টার
ড্যান্ডি সেবন থেকে পথশিশুদের বাঁচাবে কারা?
ড্যান্ডি সেবন থেকে পথশিশুদের বাঁচাবে কারা?
লখনউর কাছে হারলো চেন্নাই
লখনউর কাছে হারলো চেন্নাই
সর্বাধিক পঠিত
বাড়ছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি, নতুন যোগ হচ্ছে স্বাধীনতা দিবসের ভাতা
বাড়ছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি, নতুন যোগ হচ্ছে স্বাধীনতা দিবসের ভাতা
ইরান ও ইসরায়েলের বক্তব্য অযৌক্তিক: এরদোয়ান
ইস্পাহানে হামলাইরান ও ইসরায়েলের বক্তব্য অযৌক্তিক: এরদোয়ান
উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীকে অপহরণের ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন প্রতিমন্ত্রী
উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীকে অপহরণের ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন প্রতিমন্ত্রী
ইরানে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল!
ইরানে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল!
সংঘাত বাড়াতে চায় না ইরান, ইসরায়েলকে জানিয়েছে রাশিয়া
সংঘাত বাড়াতে চায় না ইরান, ইসরায়েলকে জানিয়েছে রাশিয়া