ডাকসু ভবনে হামলা: ফের পেছালো তদন্ত প্রতিবেদন

Send
সিরাজুল ইসলাম রুবেল
প্রকাশিত : ১৯:৪৮, জানুয়ারি ১৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:০৪, জানুয়ারি ১৭, ২০২০

ডাকসু ভবনে হামলার পর ভিপি নুর ও অন্যান্যরা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) কার্যালয়ে ভিপি নুরুল হক নুর ও তার সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ২৬ দিন পেরিয়ে গেছে, এরমধ্যে দুই দফা তারিখ ঠিক করা হলেও জমা হয়নি তদন্ত প্রতিবেদন। এই প্রতিবেদন জমা দিতে তৃতীয়বারের মতো ফের সময় বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। 

শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, ২২ ডিসেম্বর ডাকসু ভবনে ভিপির কক্ষে হামলার ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক আবু মো. দেলোয়ার হোসেনকে প্রধান করে ২৩ ডিসেম্বর ছয় সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। কমিটিকে ছয় কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছিল। ১ জানুয়ারি ওই ছয় কার্যদিবস শেষ হয়। তবে নির্ধারিত প্রথম তারিখে কমিটি প্রতিবেদন দিতে পারেনি। পরে আরও ১০ কার্যদিবস দেওয়া হয়। দ্বিতীয়বারের মতো প্রতিবেদন প্রকাশের নির্ধারিত দিন ১৫ জানুয়ারিও কমিটি প্রতিবেদন জমা দিতে পারেনি। পরে ফের সময় বাড়তি সময় চাইলে উপাচার্য আরও ১০ কার্যদিবস সময় দিয়েছেন।

এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তদন্তের কাজ শেষ না হওয়ায় সময় বাড়ানোর কথা বলেছি।’

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘কমিটি সময় চাওয়ায় আরও ১০ কার্যদিবস সময় বাড়িয়ে দিয়েছি।’

তবে দ্বিতীয়বার সময় বাড়ানোর ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ভিপি নুর। হামলায় ছাত্রলীগ জড়িত, তাই প্রশাসন কালক্ষেপণ করছে বলে মনে করেন তিনি। এ ব্যাপারে নুর বলেন, ‘হামলার ঘটনার সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস এবং সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন জড়িত। সেই কারণে হয়তো কমিটি প্রতিবেদন নিয়ে কালক্ষেপণ করছে। শেষে দায়সারা একটি প্রতিবেদন দিতেও পারে, আবার নাও দিতে পারে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসন দলকানা। তারা লেজুড়বৃত্তিতে নিজেদের এতোটাই নিযুক্ত রেখেছে যে, ছাত্রলীগের কোনও অপকর্মের বিচার করতে পারে না তারা।’

তবে নুরের অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করে প্রশাসনের কাছে ডাকসু ভবনে হামলার বিচার চেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ডাকসুর সহ-সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। তিনি বলেন, ‘ডাকসু ভবনে হামলার ঘটনায় যে বা যারাই জড়িত থাকুক, দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। যে দুই পক্ষ ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল, তাদের সবার বিরুদ্ধে যেন প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহণ করে।’  

নুরের অভিযোগের প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য, নিজের দুর্নীতির বিষয় আড়াল করার জন্য, রাজনৈতিক ফায়দা নেওয়ার জন্য এ ধরনের অভিযোগের মধ্যেই ভিপি নুর নিমজ্জিত আছেন।’ 

/এএইচ/এমএমজে/

লাইভ

টপ