হালকা সিগারেটে ভারী 'বিষ'!

Send
সাদ্দিফ অভি
প্রকাশিত : ১৩:৫৬, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৪২, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০

দেশে উৎপাদিত সিগারেটের তামাকে ভারী ধাতুর উপস্থিতি পাওয়া গেছে। ভারী ধাতুর মধ্যে আছে−লেড, ক্যাডমিয়াম এবং ক্রোমিয়াম। ভারী ধাতুর উপস্থিতি পরীক্ষা করেছে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষার ফল হাতে পাওয়ার পর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরে চিঠি দিয়েছে সংস্থাটি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
সূত্রটি জানায়, দেশের ৬টি ব্র্যান্ডের সিগারেট পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষাগুলো সম্পন্ন করে বাংলাদেশ শিল্প ও গবেষণা পরিষদ (বিসিএসআইআর), অ্যাটমিক এনার্জি সেন্টার, ওয়াফেন রিসার্চ ল্যাব। ল্যাবগুলোর পরীক্ষিত ফলের কপি দেখে জানা যায়, বিসিএসআইআর নমুনাগুলোর প্রত্যেকটিতে ক্যাডমিয়ামের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এছাড়া তিনটি নমুনা বাদে সবকটিতেই সিসার উপস্থিতি পাওয়া যায়। অ্যাটমিক এনার্জি সেন্টারের পরীক্ষায় ৬টি নমুনার প্রত্যেকটিতে সিসা, ক্রোমিয়াম এবং ক্যাডমিয়াম পাওয়া গেছে। আর ওয়াফেন রিসার্চ ল্যাব প্রত্যেকটি নমুনায় সিসা ও ক্যাডমিয়ামের উপস্থিতি পেয়েছে।
সূত্রটি জানায়, গত জানুয়ারি মাসে করা এই পরীক্ষার ফল হাতে পেয়ে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরকে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দিয়েছে।
সংস্থাটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ খাদ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের জন্য বিভিন্ন খাদ্যপণ্য ও খাদ্যোপকরণ নিয়মিত গবেষণাগারে পরীক্ষণের ব্যবস্থা করে থাকে। এই ধারাবাহিকতায় এবং কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে সম্প্রতি জর্দা, খয়ের ও গুল এবং এগুলোর প্রধান উপকরণ তামাক পাতায় হেভি মেটাল (লেড, ক্যাডমিয়াম ও ক্রোমিয়াম) রয়েছে কিনা বা থাকলে কী পরিমাণে রয়েছে, তা জানার জন্য গবেষণাগারে পরীক্ষা করা হলে আশঙ্কাজনক পরিমাণে হেভি মেটাল উপস্থিত থাকার রিপোর্ট পাওয়া যায়। এ বিষয়ে ইতোমধ্যে বিএফএসএ কর্তৃক বিভিন্ন পদক্ষেপ এবং আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
চিঠিতে আরও বলা হয়, তামাক পাতায় বিপজ্জনক মাত্রায় হেভি মেটাল উপস্থিত থাকায় এসব তামাক পাতা ব্যবহার করে দেশে উৎপাদিত সিগারেটের তামাক পাতা পরীক্ষা করে লেড, ক্যাডমিয়াম ও ক্রোমিয়াম যথাক্রমে ০.৪৯-১০০.৯৫ গ্রাম/কেজি, ০.৪০৫-১.৩৭ গ্রাম/কেজি ও ০.৮২-১.৪৯ গ্রাম/কেজি উপস্থিতি পাওয়া যায়। সিগারেটের তামাকে উপস্থিত এসব হেভি মেটাল ধূমপায়ী/পরোক্ষ ধূমপায়ীদের জন্য কী মাত্রায় ক্ষতিকর, তা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নির্ধারণ করা অতি আবশ্যক। এই অবস্থায় দেশে উৎপাদিত সিগারেটের তামাকে উচ্চমাত্রার মারাত্মক ক্ষতিকর হেভি মেটাল থাকার বিষয়ে জনগণকে সতর্ক করাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরকে অনুরোধ করা যেতে পারে।
এই বিষয়ে জানতে সংস্থাটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মাহবুব কবিরকে ফোন দেওয়া হলে তিনি ব্যস্ত আছেন বলে লাইন কেটে দেন। এছাড়া স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদের কাছে জানতে চাইলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
এর আগে, হাকিমপুরি জর্দায় মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর উপাদান পাওয়া যায় বলে জানায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। দুই ধাপে পরীক্ষা করে সিসা, ক্যাডমিয়াম ও ক্রোমিয়াম পেয়েছে সংস্থাটি। সরকারি এ সংস্থা বাজার থেকে এ জর্দা তুলে নিতে বলেছে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে। এ বিষয়ে বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতে মামলা করা হয়েছে।
নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ জানায়, ২২টি জর্দার নমুনা ল্যাবে পরীক্ষা করে প্রতি কিলোগ্রামে দশমিক ২ মিলিগ্রাম থেকে ১১ দশমিক ২ মিলিগ্রাম পর্যন্ত ক্ষতিকর বিভিন্ন উপাদানের উপস্থিতি পাওয়া যায়। হাকিমপুরি জর্দার প্রতি কেজিতে দশমিক ২৬ মিলিগ্রাম সিসা, দশমিক ৯৫ মিলিগ্রাম ক্যাডমিয়াম এবং ১ দশমিক ৬৫ মিলিগ্রাম ক্রোমিয়াম পাওয়া যায়। এই জর্দা দীর্ঘদিন খাওয়ার কারণে মানুষ দাঁতের মাড়ি ও লিভার দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে।
এর আগে কাঁচা হলুদে সিসার উপস্থিতি পায় সংস্থাটি। এরপর কাঁচা হলুদ বা হলুদের গুঁড়ায় সিসার ব্যবহার না করতে সতর্কতামূলক গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে সংস্থাটি। এতে বলা হয়, হলুদে বিদ্যমান সিসা মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

/এসও/এআর/এমএমজে/

লাইভ

টপ