করোনায় বদলে গেছে বিমানবন্দর (ফটোস্টোরি)

Send
চৌধুরী আকবর হোসেন
প্রকাশিত : ০২:৫০, জুন ০২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:১৩, জুন ০২, ২০২০

করোনাভাইরাস পুরো দুনিয়োকেই বদলে দিয়েছে, প্রভাব পড়েছে দেশের বিমানবন্দরগুলোতে। সরকার দফায় দফায় সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ানোর কারণে বিমান চলাচলের নিষেধাজ্ঞাও বেড়েছে বেশ কয়েকবার। প্রায় দু্ই মাস পর সোমবার (১ জুন) চালু হলো দেশের অভ্যন্তরীণ রুটের ফ্লাইট চলাচল। সকালে বিমানবন্দর পরির্দশন করেন বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান। তিনি বিমানবন্দরের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন।

প্রাথমিকভাবে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, সিলেট, সৈয়দপুর রুটে ফ্লাইট চলবে। গত দুই মাস ধরে জনসমাগম ছিল না ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় জনশূন্য ছিল দেশের প্রধান এই বিমানবন্দর। তবে আবারও চালু হলেও আগের মতো শোরগোল নেই। সামাজিক দূরত্বের বজায়ে রাখছেন যাত্রীরা। এ এক অন্যরকম পরিবেশ।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউন

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালে নেই আগের মতো ভীড়। যাত্রীদের চাপ না থাকায় ছিল না কোনও যানজট।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউন
টার্মিনালের বাইরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সদস্যরাও দায়িত্ব পালন করছেন ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম ব্যবহার করে।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউন

বিমানবন্দরে প্রবেশ করার আগেই এয়ারলাইন্সগুলো যাত্রীদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করে। শরীরের তাপমাত্রা ৯৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা তার বেশি হলে কোন ফ্লাইটে যেতে দেওয়া হবে না। এয়ারলাইন্সগুলো যাত্রীদের গ্লাভস ও মাস্ক দেয়।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউনযাত্রীদের দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্য ফরম যেখানে স্বাস্থ্যগত তথ্য দিতে হবে।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউনবিমানবন্দরের নিরাপত্তা কর্মীরা নিজেদের সুরক্ষায় ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম ব্যবহার করে দায়িত্বে পালন করছেন।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউন

বিমানবন্দরে প্রবেশে আগে এয়ারলাইন্সগুলো যাত্রীদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করলেও ফের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করছে বিমানবন্দরের কর্মীরা। 

ছবি: বাংলা ট্রিবিউন

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই যাত্রীদের তল্লাশি করা হয় বিমানবন্দরে। যাত্রীরা ব্যাগ নিয়ে চলে যাওয়ার পর ব্যাগেজ বেল্টে ছিটানো হয় জীবাণুনাশক।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউন

ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স মেশিনের মাধ্যমে তাদের কাউন্টারে জীবাণুনাশক স্প্রে করছে কিছু সময় পরপর। যাত্রীদের চাপ না থাকলেও বিমানবন্দরের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের বেড়েছে ব্যস্ততা। নিরাপত্তা তল্লাশীতে যাত্রীদের ব্যবহার করা ট্রেলিগুলো কিছু সময় পররপর জীবাণুমুক্ত করেন পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা। সব যাত্রীদের ব্যাগে এয়ারলাইন্সগুলোর উদ্যোগে ছিটানো হয় জীবাণুনাশক।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউনসামাজিক দূরত্ব মেনে যাত্রীকে চেক-ইনের লাইনে দাঁড়াতে হবে। বিমানবন্দরের মেঝেতেও ছিল দূরত্ব বজায় রাখার মার্কিং। সামাজিক দূরত্ব মেনে যাত্রীদের এক চেয়ার ফাকা রেখে বসতে হয়েছে। চেয়ারেও দেওয়া হয় দূরত্ব বজায় রাখার সর্তকর্তা মূলক স্টিকার।

ছবি: বাংলা ট্রিবিউন

নিজেদের কর্মীদের নিরাপত্তায় এয়ারলাইন্সগুলো কাউন্টারে বসিয়েছে ট্রান্সপারেন্ট ভিভাইডার।


/সিএ/এফএএন/আপ-এনএস/

লাইভ

টপ