শিক্ষার সব তথ্য আসছে এক প্লাটফর্মে

Send
এস এম আববাস
প্রকাশিত : ১৮:৫৭, জুলাই ৩০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৮:৪৫, জুলাই ৩১, ২০২০

দেশের প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত শিক্ষা বিষয়ক সব তথ্য এক প্লাটফর্মে আনার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ইংরেজি মাধ্যম এবং কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোও এই ব্যবস্থাপনার আওতায় থাকবে। প্রতিষ্ঠান পরিচালনাসহ সার্বিক শিক্ষা ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা ও শৃঙ্খলা আনতে ‘সমন্বিত শিক্ষা তথ্য পদ্ধতি ব্যবস্থাপনা প্লাটফর্ম’ নিয়ে কাজ চলছে। সম্প্রতি এক বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘দেশের শিক্ষার বিষয়ে সব তথ্য যাতে একসঙ্গে পাওয়া যায়, সেভাবে একটি প্লাটফর্ম তৈরি করতে হবে। একই ড্যাসবোর্ড থেকে যাতে শিক্ষার সব তথ্য জানা যায়।’

শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান নওফেল বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়ের নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য আমরা ইএমআইএস (এডুকেশন ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম) সেলের মাধ্যমে বিদ্যমান প্রযুক্তি আপগ্রেড করছি। আমরা চাই ইএমআইএস সেলে সংযুক্ত হওয়ার কারিগরি সক্ষমতা সব বিদ্যালয়ের যেনো থাকে। এ জন্য স্কুলভিত্তিক ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার সিস্টেমগুলোর জন্য ন্যূনতম মানদণ্ড নির্ধারণ করে দিতে যাচ্ছি, যাতে বিদ্যালয়গুলোর নিজস্ব ওয়েবসাইট, প্রতিষ্ঠানভিত্তিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ও লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ও ভবিষ্যতে তৈরি করা যায় এবং সব প্রতিষ্ঠান যাতে একটি ন্যূনতম প্রযুক্তি মানের মধ্যে আসে। আমরা পরামর্শকদের সেভাবে এই সিস্টেম ডিজাইন করার নির্দেশ দিয়েছি।’

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুবব হাসান বলেন, ‘সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে আমাদের নেটওয়ার্কের মধ্যে থাকতে হবে। আমাদের নেটওয়ার্কের বাইরে কিছু চলতে পারবে না। কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কী করছে, কেমনভাবে পরিচালতি হচ্ছে এটা আমাদের জানা থাকতে হবে। সেভাবেই আমরা কাজ করছি।’

ব্যানবেইসের ‘এস্টাবলিশমেন্ট অব ইন্টিগ্রেটেড এডুকেশনাল ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’-এর প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, ‘শিক্ষার আওতায় যে সব তথ্য রয়েছে, সেগুলোর আদান-প্রদানে একটি প্লাটফর্মে হবে। সমন্বিত শিক্ষা তথ্য পদ্ধতি ব্যবস্থাপনা প্রণয়নের কাজ চলছে। আমাদের পরিকল্পনা রয়েছে যার যার মতো সবাই স্বাধীনভাবে কাজ করতে এবং তথ্য জানতে পারবে। কেন্দ্রীয়ভাবে ডাটা সংযোজন করা হবে। কেন্দ্রীয়ভাবে ড্যাসবোর্ড থাকবে। এছাড়া প্রতিটি উইংয়ের ড্যাসবোর্ড থাকবে। এভাবে বিভাগ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ড্যাসবোর্ড থাকবে এবং শিক্ষার্থী ভিত্তিক ড্যাসবোর্ডও থাকবে। প্রয়োজনীয় সব তথ্য নিজের টেবিলে বসেই দেখতে পারবেন। কেন্দ্রীয়ভাবে তথ্য সংযোজন করা হবে। যার যতটুকু তথ্য প্রয়োজন তিনি ততটুকুই দেখতে পারবেন। এরকম একটি প্লাটফর্ম নিয়ে কাজ চলছে।’

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, যার যেমন খুশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তৈরি করছে, নিবন্ধন ছাড়াও চলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এতে দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীর সংখ্যা নিয়ে যেমন বিভ্রান্তি তৈরি হচ্ছে; তেমনি কোনও ব্যবস্থা নিতে হলে তথ্য উপাত্ত ঠিকমতো পাওয়া যাচ্ছে না। তাই দেশের শিক্ষা বিষয়ক সব তথ্য একসঙ্গে পাওয়ার ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কাজ চলছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, সমন্বিত শিক্ষা তথ্য পদ্ধতি ব্যবস্থাপনা প্লাটফর্মে কর্মকর্তাদের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যের পাশাপাশি শিক্ষকসহ সার্বিক জনবলের তথ্য থাকবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মোট ছাত্রছাত্রীর তথ্যসহ শিক্ষার কোন সেক্টরে কত শিক্ষার্থী থাকবে সে তথ্যও পাওয়া যাবে।

মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, ব্যানবেইসের ‘বাংলাদেশ এডুকেশন স্ট্যাটিস্টিক্স’ যে ধরনের তথ্য বই আকারে প্রকাশ করে, সেভাবেই শিক্ষার সব তথ্য থাকবে ‘সমন্বিত শিক্ষা তথ্য পদ্ধতি ব্যবস্থাপনা প্লাটফর্মে’। সব ধরনের আপডেট তথ্যও এখানে পাওয়া যাবে।

/টিটি/

লাইভ

টপ