X
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪
১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

নির্বাচনী ব্যবস্থার স্থায়ী পরিবর্তন দরকার: জোনায়েদ সাকি

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৯ মে ২০২১, ১৬:৫৫আপডেট : ২৯ মে ২০২১, ১৬:৫৫

নির্বাচনী ব্যবস্থার স্থায়ী পরিবর্তন দরকার বলে মন্তব্য করেছেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি। তিনি বলেন, ‘৭১ সালে এদেশের মানুষ স্বপ্ন দেখেছিলেন, ’৯০ সালেও স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু ’৯০ সালে ক্ষমতার পরিবর্তন হলেও শাসনতন্ত্রের মধ্যে কোনও পরিবর্তন আসেনি। বর্তমানে আমরা সামরিক শাসনের চাইতেও খারাপ অবস্থায় আছি।’

শনিবার (২৯ মে) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের একটি মিলনায়তনে আয়োজিত এক সভায় জোনায়েদ সাকি এসব কথা বলেন। রাজনীতিক আবদুস সালামের ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকীতে ‘গণতন্ত্র ও গণমানুষের সরকার প্রতিষ্ঠা কোন পথে?’ শীর্ষক আলোচনা সভা আয়োজন করে গণসংহতি আন্দোলন।

সভাপতির বক্তব্যে সাকি এ প্রসঙ্গে আরও বলেন, ‘শুধুমাত্র একটি নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতার পরিবর্তনের জন্য মানুষ উদ্বুদ্ধ হচ্ছে না। বরং নির্বাচনী ব্যবস্থার একটি স্থায়ী পরিবর্তন দরকার। এই কর্মসূচি তৈরি করতে পারলেই মানুষের মধ্যে নতুন করে উৎসাহ তৈরি হবে, মানুষ ঐক্যবদ্ধ হবে।’

জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘গণতন্ত্র কেবল একটি পদ্ধতিগত ব্যাপার নয়। এরমধ্যে জবাবদিহিতার গ্যারান্টি থাকতে হয়। তা না হলে এটা সংখ্যাগরিষ্ঠের শাসনে রূপান্তরিত হয় যা কখনো ফ্যাসিবাদী শাসনও হয়ে উঠতে পারে। আবদুস সালামসহ আরও অনেকে গণতন্ত্রের জবাবদিহিতা নিয়ে কাজ করেছেন।’

সাকি দাবি করেন, দেশে গণতন্ত্রের লেবাসে ফ্যাসিবাদী শাসন জারি আছে। রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে গত ১০ বছরে প্রায় আড়াই হাজার মানুষকে ক্রস ফায়ারে হত্যা করা হয়েছে, এক হাজারের অধিক মানুষকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজতে অত্যাচার করা হয়েছে এবং প্রায় ৬শ’ মানুষকে গুম করা হয়েছে। এর কোন জবাবদিহিতা নেই।

জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘‘মুক্তিযুদ্ধের ঘোষণা ছিল, ‘সাম্য, মানবিক মর্যাদা এবং সামাজিক ন্যায় বিচার’। এ অঙ্গীকার থেকে বর্তমান সরকার সরে গেছে। কিন্তু এ অঙ্গিকার রক্ষার জন্য একটি গণতান্ত্রিক সংবিধান দরকার। বিদ্যমান ক্ষমতাকাঠামোর আমূল সংস্কার দরকার।’’

নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘আমরা কি লড়াই করছি মার্কা পরিবর্তনের জন্য? এই সরকার গেলে কারা আসবে? এই প্রসঙ্গ থেকে বের হয়ে এসে নতুন বিকল্প, নতুন গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রকাঠামোর বিকল্প হাজির করতে হবে। মানুষ কী চায় এরকম দু’একটি দাবি আসুন সবাই মিলে ঠিক করি; সেটা নিয়েই আমরা সবাই মিলে একসঙ্গে মাঠে নামি।’

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, ‘গত ৫০ বছরে আমরা সবচেয়ে বন্ধ্যা সময় অতিক্রম করছি। বিরোধী দলগুলো এখন সবচেয়ে দুর্বল অবস্থায় আছে। দুর্বল করে রাখার পেছনে সরকারের ভূমিকা আছে। এই দুর্বলতা অতিক্রম করার জন্য ঐক্যবদ্ধ হওয়া ছাড়া আমাদের আর কোনও বিকল্প নাই।’

বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম জাহাঙ্গীর বলেন, ‘স্বাধীনতার সালাম ভাইয়ের মতো অসংখ্য তরুণ রাজনৈতিক কর্মী বিপ্লব করার জন্য জীবন উৎসর্গ করেছেন। এই কর্মীদেরকে দমন করা হয়েছে, হত্যা করা হয়েছে, গুম করা হয়েছে, কেউ জীবন রক্ষার জন্য বিদেশে পালিয়ে গেছেন আর দেশে ফিরতে পারেননি।’

অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ুম বলেন, ‘শুধুমাত্র মার্কার পরিবর্তনের জন্য মানুষ কখনও জীবন দেয় না। জীবনের চাইতে স্বপ্নকে বড় হয়ে উঠতে হয়ে। একটি কাঠামোগত পরিবর্তনের স্বপ্ন মানুষের মধ্য মূর্ত উঠলেই কেবল জীবন দেওয়ার অবস্থা সৃষ্টি হতে পারে।’

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন গণফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তাক আহমেদ এবং গণসংহতি আন্দোলনের নির্বাহী সমন্বয়কারী (ভারপ্রাপ্ত) আবুল হাসান রুবেল। আব্দুস সালামের সংক্ষিপ্ত জীবনী পাঠ ও সভা পরিচালনা করেন দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য জুলহানাইন বাবু। সভায় আবদুস সালামের ওপর নির্মিত একটি ভিডিও চিত্র প্রদর্শিত হয়।

 

/এনএইচ/
সম্পর্কিত
সর্বশেষ খবর
উপকূলে ‘মে আতঙ্ক’
উপকূলে ‘মে আতঙ্ক’
টিভিতে আজকের খেলা (২৬ মে, ২০২৪)
টিভিতে আজকের খেলা (২৬ মে, ২০২৪)
ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’: ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌ রুটে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ
ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’: ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌ রুটে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ
ড্রয়ে লিগ শেষ রিয়ালের, ক্রুসের অশ্রুসিক্ত বিদায়
ড্রয়ে লিগ শেষ রিয়ালের, ক্রুসের অশ্রুসিক্ত বিদায়
সর্বাধিক পঠিত
ব্যক্তি পর্যায়ের কর হার বাড়বে
ব্যক্তি পর্যায়ের কর হার বাড়বে
‘তুফান’র গানে প্রীতম, আছেন পর্দায়ও!
‘তুফান’র গানে প্রীতম, আছেন পর্দায়ও!
এমপি আনার হত্যা: কে এই সিলিস্তা রহমান?
এমপি আনার হত্যা: কে এই সিলিস্তা রহমান?
রঙমিস্ত্রি থেকে যেভাবে এমপি আনার হত্যায় জড়ায় জিহাদ
রঙমিস্ত্রি থেকে যেভাবে এমপি আনার হত্যায় জড়ায় জিহাদ
সর্বজনীন পেনশন স্কিমে যুক্ত হলেন কেএসআরএমের ১ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী
সর্বজনীন পেনশন স্কিমে যুক্ত হলেন কেএসআরএমের ১ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী