X
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বিএনপির আন্দোলনের হেতু কী, প্রশ্ন হানিফের

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
১১ মে ২০২৪, ১৭:৫৯আপডেট : ১১ মে ২০২৪, ১৭:৫৯

বিএনপির উদ্দেশে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, স্থানীয় নির্বাচনের মাধ্যমে স্থানীয় মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা যায়। জাতীয় নির্বাচনের মাধ্যমে পরিবর্তন করা যায় সরকার। কিন্তু আপনারা তো নির্বাচনে আসেন না, তাহলে আপনাদের আন্দোলনের হেতুটা কি? কিসের আন্দোলন করতে চান?

শনিবার (১১ মে) বিকালে মোহাম্মদপুরের গজনবী রোডে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ‘শান্তি ও উন্নয়ন’ সমাবেশে তিনি এ সব কথা বলেন।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘নির্বাচনের মাধ্যমে সরকারের পরিবর্তন সম্ভব, নির্বাচন ছাড়া কখনও বৈধভাবে সম্ভব না। আরেকটি আছে অগণতান্ত্রিক পন্থায়। এই দেশের মানুষ সেটা কখনও চায় না। বাংলাদেশের মানুষ কখনও অবৈধ পন্থায় সরকার গঠনের সুযোগ দেবে না। যারা চেষ্টা করেছেন, তাদের অতীতে যেমন এই দেশের মানুষ রাজপথে প্রতিহত করেছে, ভবিষ্যতেও দেশের মানুষ এ সব চক্রান্ত নস্যাৎ করে দেবে।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সব ষড়যন্ত্রকে নস্যাৎ করে দিয়ে উন্নয়ন-অগ্রগতির ধারায় এগিয়ে যাবো। আমরা শান্তি চাই, উন্নয়ন চাই, অগ্রগতি চাই। পেছন দিকে ফিরে যেতে চাই না।’

বাংলাদেশকে নিয়ে বিশ্বের মানুষ এক সময় হতাশা প্রকাশ করেছিল উল্লেখ করে হানিফ বলেন, ‘এখন তারাই বলছে, ২০৩১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল আর ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হবে। শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ করে গড়ে তুলতে চান।’

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘গতকাল তারা মা দিবস উপলক্ষে মা সমাবেশ করেছে, অথচ গত ১৫ বছর তারা ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য কত মায়ের বুক খালি করেছে, মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে। তাদের বিরুদ্ধে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন– আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, কামরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, আফজাল হোসেন, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

‘বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে’ আয়োজিত এ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

/এমআরএস/আরকে/
সম্পর্কিত
‘সরকারি চাকরিতে কোটা পুনর্বহাল সংবিধানবিরোধী’
বগুড়ার এক স্কুলের মাঠে ১৪৪ ধারা জারি
ফিলিস্তিনকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি
সর্বশেষ খবর
অবশেষে বদলি হলেন সাতক্ষীরা পৌরসভার সেই সিইও
অবশেষে বদলি হলেন সাতক্ষীরা পৌরসভার সেই সিইও
কোরবানির বর্জ্য অপসারণে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খুলেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি
কোরবানির বর্জ্য অপসারণে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খুলেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি
রাতে উত্তরের মহাসড়কে যানবাহনের চাপ আরও বেড়েছে
রাতে উত্তরের মহাসড়কে যানবাহনের চাপ আরও বেড়েছে
ঈদে চামড়া ব্যবসায়ীদের নজরদারিতে রাখবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী
ঈদে চামড়া ব্যবসায়ীদের নজরদারিতে রাখবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী
সর্বাধিক পঠিত
ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে মূল্যায়ন হবে যেভাবে
ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে মূল্যায়ন হবে যেভাবে
শ্রমিকদের অবরোধে বন্ধ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক
শ্রমিকদের অবরোধে বন্ধ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক
শেবাগের সমালোচনার জবাবে যা বললেন সাকিব
শেবাগের সমালোচনার জবাবে যা বললেন সাকিব
১৯ বল ব্যাট করে ওমানকে হারালো ইংল্যান্ড
১৯ বল ব্যাট করে ওমানকে হারালো ইংল্যান্ড
সেন্টমার্টিনে খাদ্যসংকট, কক্সবাজার থেকে গেলো পণ্যবোঝাই জাহাজ
সেন্টমার্টিনে খাদ্যসংকট, কক্সবাজার থেকে গেলো পণ্যবোঝাই জাহাজ