X
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
১০ ফাল্গুন ১৪৩০

পুনেতে ফিরবে কার্ডিফ রূপকথা?

রবিউল ইসলাম
১১ নভেম্বর ২০২৩, ০১:১৯আপডেট : ১১ নভেম্বর ২০২৩, ০১:৩০

২০০৫ সালের ১৮ জুন কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ক্রিকেট-বিশ্বকে হতবাক করে দিয়েছিল বাংলাদেশ। প্রায় ১৮ বছর পর আরেকটি ‘রূপকথা’র জন্ম দেওয়ার হাতছানি বাংলাদেশের সামনে। পুরো বিশ্বকাপে হতাশাজনক পারফরম্যান্স করা বাংলাদেশ বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার সামনে। শনিবার নিজেদের শেষ ম্যাচটি রাঙিয়ে ভক্ত-সমর্থকদের ক্ষতে কিছুটা হলেও প্রলেপ দেওয়ার সুযোগ লাল-সবুজ জার্সিধারীদের সামনে।

পুনের মহারাষ্ট্র অ্যাসোসিয়েশন (এমসিএ) স্টেডিয়ামে প্রতিক্ষণেই যেন ফিরে আসছে কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সের স্মৃতি। কার্ডিফে মাশরাফি-তাপস-আশরাফুল-আফতাবের দারুণ পারফরম্যান্সে সেই সময়ের পরাক্রমশালী অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। সালটা ছিল ২০০৫। এখন ২০২৩। এত বছর পরও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওই একটি জয়ই রয়েছে বাংলাদেশের। শনিবার সকাল ১১টায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। বলার অপেক্ষা রাখে না, এই ম্যাচে ছায়া ফেলছে কার্ডিফে বাংলাদেশের অর্জিত সেই জয়ের স্মৃতি।

তবে পুনেতে কার্ডিফ ফিরিয়ে আনার মঞ্চে অসহায় বাংলাদেশ। পুরো বিশ্বকাপের হতাশাজনক পারফরম্যান্স করেছে সাকিব আল হাসানের দল। আফগানিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করা দলটি সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে তো গেছেই, আগামী চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলাও অনিশ্চিত হয়ে গেছে। নেদারল্যান্ডসের মতো সহযোগী সদস্য দলের বিপক্ষেও হারতে হয়েছে লাল-সবুজ জার্সিধারীদের। দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তানের বিপক্ষে এক প্রকার উড়েই গেছে তারা। অন্যদিকে উল্টো চিত্র অস্ট্রেলিয়া শিবিরে। আগের ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের অতিমানবীয় ইনিংসে দারুণ এক জয় তুলে নিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলে তারা। দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারত ছাড়া বাকি দলগুলোর বিপক্ষে দারুণ ক্রিকেট উপহার দিয়েছে অজিরা।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচটি অজিদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ না হলেও বাংলাদেশের জন্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ যদিও গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচটি অজিদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ না হলেও বাংলাদেশের জন্য ভীষণ রকম গুরুত্বপূর্ণ। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলা নিশ্চিত করতে চাইলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয়ের বিকল্প নেই বাংলাদেশের সামনে। আর হেরে গেলে তাকিয়ে থাকতে হবে ভারত ও নেদারল্যান্ডসের ম্যাচের দিকে। ভারত জিতলেও সমস্যা নেই বাংলাদেশের, কিন্তু হেরে গেলে নেদারল্যান্ডস অষ্টম দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি নিশ্চিত করবে। তবে আশার কথা, গুরুত্বহীন ম্যাচ বলেই হয়তো অস্ট্রেলিয়া তাদের রিজার্ভ বেঞ্চ পরীক্ষা করবে! এমন সুযোগ পেলে হয়তো জয়ের সম্ভাবনা কিছুটা হলেও তৈরি হবে। নয়তো ভঙ্গুর বাংলাদেশের জন্য অস্ট্রেলিয়াকে হারানো বেশ কঠিনই!

সেমিফাইনালের স্বপ্ন নিয়ে বাংলাদেশের মিশন শুরু হয়েছিল ধর্মশালা থেকে। আফগানদের হারিয়ে শুরুটা অবশ্য ভালো করেছিল। তারপর একে একে চেন্নাই, পুনে, মুম্বাই, কলকাতায় গিয়ে হারের বৃত্তে আটকে যায় বাংলাদেশ। দিল্লিতে আগের ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির রেসে টিকে থাকলেও শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ। যাদের বিপক্ষে ২১ ম্যাচে খেলে জয় মাত্র একটি! শনিবার পুনেতে নিজেদের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের শক্তি আরও কমে গেছে। নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ইনজুরিতে ছিটকে গেছেন। তার না থাকা মানে দুটি অপশন কমে যাওয়া। স্বাভাবিকভাবেই একজন বোলার কিংবা ব্যাটার কম নিয়েই মাঠে নামতে হবে বাংলাদেশ দলকে।

শেষ ম্যাচটি রাঙিয়ে ভক্ত-সমর্থকদের ক্ষতে কিছুটা হলেও প্রলেপ দেওয়ার সুযোগ লাল-সবুজ জার্সিধারীদের সামনে আগের ম্যাচে সাকিবসহ পাঁচ বোলার নিয়ে খেলা বাংলাদেশের অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কম্বিনেশন কেমন হবে? ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে হাথুরুসিংহের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেছেন, ‘সাকিবকে ছাড়া একাদশ সাজানো কঠিন। শেষ ম্যাচে যা আমাদের করতে হবে। আমরা তাকে লম্বা সময়ের জন্য পেয়েছিলাম এবং তার মতো সামর্থ্যের কাউকে পাওয়া সত্যিই কঠিন। এক নম্বর অলরাউন্ডার। একের ভেতর দুই। এজন্য কম্বিনেশন সাজানো কঠিন। বোলিংয়ে তার শূন্যস্থান একজন স্পিনার বা পেসার দিয়ে করাতে পারি। ব্যাটিংয়ে আমরা তাকে মিস করবো, সঙ্গে তার নেতৃত্ব। সেজন্য বলছি তার বদলি বের করা কঠিন।’

বাংলাদেশের কোচ অবশ্য অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর জন্য সেরা ক্রিকেট খেলার বিকল্প দেখেন না, ‘অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে হলে সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। সেদিকেই আমাদের মনোযোগ। ম্যাচের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে। আমরা সেদিকে চিন্তা করছি না। শুধু নিজেদের খেলাতেই মনোযোগ।’

আরও একটি কারণে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের শেষ ম্যাচটির গুরুত্ব বেড়ে গেছে। এটিই হতে পারে দলের একাধিক সিনিয়রের শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচ। সঙ্গে একাধিক কোচিং স্টাফদের শেষ অ্যাসাইনমেন্ট হওয়ায় ড্রেসিংরুমে বিচ্ছেদের সুর। পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ড এবং কম্পিউটার অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাসন চন্দ্রশেখরনের শেষ ম্যাচ হতে যাচ্ছে এটি। দুজনই একদিন আগে ঘোষণা দিয়েছেন এমনটাই। জল্পনা চলছে মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়েও। শুধু বিশ্বকাপ নয়, ওয়ানডে ক্যারিয়ার তারা থামিয়ে দিতে পারেন পুনেতে। এত কিছুর মিশেলেই শনিবার সকালে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের শেষের শুরু হচ্ছে! এত কিছু মাথায় নিয়েও বাংলাদেশের ফোকাস শেষটা রাঙানো। সেটি করতে পারলে বিদায়ের করুণ সুরেও থাকবে আনন্দের ছটা!

/এমএএ/
সম্পর্কিত
বিশ্বকাপের আগে যুক্তরাষ্ট্রে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ
ভাষাশহীদদের প্রতি সাকিব-তামিম-মুশফিকদের শ্রদ্ধা
নতুন দায়িত্ব পেলেন হাবিবুল বাশার
সর্বশেষ খবর
কুমিল্লা সিটি উপনির্বাচনে প্রতীক পেলেন চার মেয়রপ্রার্থী
কুমিল্লা সিটি উপনির্বাচনে প্রতীক পেলেন চার মেয়রপ্রার্থী
নৌকায় বিদ্যালয়, হলো সূর্যোদয়
নৌকায় বিদ্যালয়, হলো সূর্যোদয়
ইউক্রেন যুদ্ধের দুই বছর: সংঘাত, ক্রোধ আর ক্লান্তি
ইউক্রেন যুদ্ধের দুই বছর: সংঘাত, ক্রোধ আর ক্লান্তি
মাইক্রোওয়েভে করতে পারেন এই ৫ কাজ
মাইক্রোওয়েভে করতে পারেন এই ৫ কাজ
সর্বাধিক পঠিত
বাড়িওয়ালাদের তালিকা ধরে অভিযান চালাবে এনবিআর
বাড়িওয়ালাদের তালিকা ধরে অভিযান চালাবে এনবিআর
৫ লাখ শিক্ষক-কর্মচারীকে অবসর সুবিধা দিতে হাইকোর্টের রায়
এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান৫ লাখ শিক্ষক-কর্মচারীকে অবসর সুবিধা দিতে হাইকোর্টের রায়
ইউরোপে মানবপাচারে জড়িত বিমানবন্দরের কর্তারা: ডিবির হারুন
ইউরোপে মানবপাচারে জড়িত বিমানবন্দরের কর্তারা: ডিবির হারুন
বইমেলা থেকে বের করে দেওয়ায় ডিবি কার্যালয়ে গেলেন হিরো আলম
বইমেলা থেকে বের করে দেওয়ায় ডিবি কার্যালয়ে গেলেন হিরো আলম
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরভিএন্ডএফ কোরের সদস্যদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন সেনাপ্রধান
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরভিএন্ডএফ কোরের সদস্যদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন সেনাপ্রধান