X
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
৯ আশ্বিন ১৪২৯

ক্যানসার আক্রান্ত কিরণ সেদিন জাপান ছুটেছিলেন সানজিদাদের অর্থের জন্য

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫:১৬আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৬:৪৬

সাবিনা-সানজিদারা সাফ জিতে দেশে উৎসবের উপলক্ষ এনে দিয়েছেন। তাদের কঠোর পরিশ্রমে প্রথমবারের মতো দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্ব জিতেছে বাংলাদেশ। এই সাফল্যের পেছনে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) বর্তমান কর্মকর্তাদের অবদানও অনেক। তাদের নিরলস প্রচেষ্টাতে মেয়েরা আজ সাফল্যে ভাসছে। বাফুফের নারী উইং কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ শোনালেন এই সাফল্যের পেছনের গল্প।

২০১২ সাল থেকে মেয়েদের আবাসিক ক্যাম্প শুরু হয়েছে। তখন থেকেই নানাভাবে তাদের সাহায্য করে আসছিলেন কিরণ। মেয়েদের ফুটবলের পেছনে নিজেদের আত্মত্যাগের ঘটনা তুলে ধরে বর্তমান ফিফা কাউন্সিল সদস্য বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘শুরু থেকে নিজেদের টাকায় মেয়েদের আবাসিক ক্যাম্প করেছি। প্রতিদিন লাখ টাকার ওপরে ব্যয় হতো। তখনও হতোদ্যম হয়নি। জানি একদিন সাফল্য আসবে। তাই কষ্ট হলেও নানাভাবে আমি ও আমাদের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন বলতে গেলে ব্যয় নির্বাহ করে গেছি।’

২০১৪ সালের একটি ঘটনা এখনও মনে পড়ে মাহফুজার। শরীরে ক্যানসার ধরা পড়ে তার। চিকিৎসার জন্য ব্যাংককে যেতে হয়েছিল। সেখানে কেমোথেরাপি দেওয়ার কথা। কিন্তু পরের দিনই জাপান যেতে হবে মেয়েদের ফুটবলের জন্য। কেমোথেরাপি দিয়েই তিনি ছুটলেন সেখানে।

কিরণ সেই সময়কার বর্ণনা দিলেন এভাবে, ‘আজকের এই সাফল্য এমনিতে আসেনি। আমাদের অনেক ত্যাগ ও পরিশ্রম আছে। আমার যখন ক্যানসার ধরা পড়ে, ব্যাংককে কেমোথেরাপি নিয়ে কোনোমতে জাপান গেছি পরের দিন। সেখানে জাপান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভা ছিল। সেখানে না গেলে মেয়েদের টুর্নামেন্টের জন্য অর্থ ছাড় হতো না। আমরা অনেক পিছিয়ে যেতাম। তখন আমার শরীর অনেক খারাপ। তারপরেও সেখানে গিয়েছিলাম শুধু মেয়েদের ভবিষ্যতের জন্য।’

আজ মেয়েরা সাফল্য পেয়েছে। দেশবাসীকে আনন্দের জোয়ারে ভাসিয়েছে। এখন সেই কষ্ট অনেকটা সার্থক কিরণের, ‘একজন ক্যানসার রোগীর দিনকাল কেমন যায় তা বুঝতে পারছেন। অসুস্থ থেকেও আমি কোনও সময় মেয়েদের এগিয়ে নেওয়ার জন্য পিছপা হইনি। ব্যবসা করি বলেই নিজেদের থেকে তখন অর্থ দিতে পেরেছিলাম। জানতাম, লেগে থাকলে একসময় সাফল্য আসবে। বয়সভিত্তিকের পর এবার সিনিয়রদের আসরে এলো দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব।’

/টিএ/কেআর/এমওএফ/
সম্পর্কিত
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
পরীক্ষায় বসে ফেসবুকে লাইভ, দুই শিক্ষার্থী বহিষ্কার
পরীক্ষায় বসে ফেসবুকে লাইভ, দুই শিক্ষার্থী বহিষ্কার
দুই গ্রুপের কোন্দলে মধ্যরাতে উত্তপ্ত ইডেন কলেজ
দুই গ্রুপের কোন্দলে মধ্যরাতে উত্তপ্ত ইডেন কলেজ
রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণে ১০০ নাগরিকের বিবৃতি
রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণে ১০০ নাগরিকের বিবৃতি
এতদিন কোথায় ছিলেন রহিমা?
এতদিন কোথায় ছিলেন রহিমা?
এ বিভাগের সর্বশেষ
‘মেয়েরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, এটা দেশের জন্য বড় পাওয়া’
‘মেয়েরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, এটা দেশের জন্য বড় পাওয়া’
শুরু হচ্ছে ওয়ালটন-বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভাল
শুরু হচ্ছে ওয়ালটন-বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভাল
নিজেদের শক্তি বিশ্বকে দেখানোর সময় হয়েছে: বাংলাদেশ অধিনায়ক
নিজেদের শক্তি বিশ্বকে দেখানোর সময় হয়েছে: বাংলাদেশ অধিনায়ক
ফিরছে কোটি টাকার সুপার কাপ!
ফিরছে কোটি টাকার সুপার কাপ!
যে টাকা চুরি গেছে, তার চেয়ে বেশি পেলেন কৃষ্ণা-সানজিদারা
যে টাকা চুরি গেছে, তার চেয়ে বেশি পেলেন কৃষ্ণা-সানজিদারা