পুরোনোদের ওপরে আস্থা রাখতে চান জেমি ডে

Send
তানজীম আহমেদ
প্রকাশিত : ২১:১৭, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:২২, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯

জেমি ডে’র অধীনে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন২০১৯ সালে অন্তত ১০টি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলার ইচ্ছে জাতীয় ফুটবল দলের ইংলিশ কোচ জেমি ডে’র। এ বছর বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ৯ মার্চ, কম্বোডিয়ার বিপক্ষে। দল গড়তে চলমান প্রিমিয়ার ফুটবল লিগই কোচের ভরসা। ১৮ জানুয়ারি লিগের শুরু থেকে খেলা দেখলেও নতুনদের ওপরে তেমন আস্থা রাখতে পারছেন না তিনি। কম্বোডিয়া ম্যাচে পুরোনোদের ওপরেই ভরসা রাখতে চান কোচ।

ফিফা র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান খুব খারাপ—১৯২। আরও পতনের আশঙ্কায় দল নিয়ে কোনও ঝুঁকি নিতে রাজি নন বাংলাদেশের কোচ। র‌্যাংকিংয়ে ১৭৭ নম্বরে থাকা কম্বোডিয়ার বিপক্ষে পরীক্ষিতদের সুযোগ দিতে চান তিনি, যেন ম্যাচের ফল ইতিবাচক হয়।

মূলত সাফ ফুটবল ও বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে অংশ নেওয়া দলটির ওপরে আস্থা রাখতে চাইছেন জেমি ডে। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেছেন, ‘কম্বোডিয়ার বিপক্ষে আমাদের কঠিন ম্যাচ। ম্যাচটি হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই। তাই জাতীয় দলে নতুনদের খুব একটা সুযোগ দেওয়ার ইচ্ছে নেই, পুরোনোদের ওপরে আস্থা রাখতে চাই। তবে নতুন খেলোয়াড় একদম থাকবে না, তা নয়। দুই-এক জন নবাগতকে দেখা যেতে পারে জাতীয় দলে। আমার দলে পুরোনোদের সংখ্যা বেশি হলেও তাদের ৭০ শতাংশই হবে তরুণ। লিগের আরও কয়েকটি ম্যাচ দেখার পরই দলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবো।’

লিগে ভালো পারফর্ম করে কোচের নজর কেড়েছেন দুই ফরোয়ার্ড আবাহনীর নাবীব নেওয়াজ জীবন এবং বসুন্ধরা কিংসের মতিন মিয়া। জীবন হ্যাটট্রিক সহ পাঁচ গোল করেছেন, মতিনের গোল তিনটি। দুজনের প্রশংসা করে জেমি ডে বলেছেন, ‘জীবন ও মতিন ভালো খেলছে, গোল পাচ্ছে। এটা জাতীয় দলের জন্য সুখবর। ক্লাবের পাশাপাশি জাতীয় দলেও ভালো পারফর্ম করতে হবে তাদের। অবশ্য এ দুজন নয়, সুযোগ পাওয়া প্রত্যেককেই ভালো খেলতে হবে। আর গোল স্কোরিং সমস্যা থেকেও বের হয়ে আসতে হবে আমাদের।’

আগামী ৫ মার্চ শেষ হবে লিগের দশম রাউন্ড। তাই কম্বোডিয়া ম্যাচের আগে তেমন অনুশীলনের সুযোগ নেই। কম্বোডিয়ায় গিয়ে দিন দুয়েক অনুশীলন করে নেমে পড়তে হবে মাঠে। কোচ অবশ্য এ নিয়ে চিন্তিত নন, ‘লিগ চলছে, তাই ফুটবলাররা খেলার মধ্যে আছে। ওদের ফিটনেস নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। দুই দিন পরখ করে কম্বোডিয়া ম্যাচের জন্য প্রস্তুত করতে হবে ফুটবলারদের।’

জাতীয় দলে বর্তমানে ফিটনেস ট্রেনার আর গোলকিপিং কোচ নেই। জেমি ডে অবশ্য শিগগিরই এই সমস্যা সমাধানে আশাবাদী, ‘আমি যতদূর জানি, ট্রেনার ও গোলকিপিং কোচ নিয়ে আসার চেষ্টা করছে ফুটবল ফেডারেশন। দুই পক্ষের আলোচনা সফল হলে আশা করি কম্বোডিয়া ম্যাচের আগেই তারা যোগ দেবেন।’

/টিএ/এএআর/

লাইভ

টপ