পুলিশকে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে বসুন্ধরা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:০৪, জানুয়ারি ০৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২০, জানুয়ারি ০৩, ২০২০

বসুন্ধরা কিংসের ফাইনালে ওঠার উচ্ছ্বাসশুরুর ১৫ মিনিটে বসুন্ধরা কিংসের সঙ্গে প্রায় সমান তালে পাল্লা দেওয়ার চেষ্টা করেছে নবাগত পুলিশ এফসি। কিন্তু শক্তির বিচারে অস্কার ব্রুজনের দল যে অনেক এগিয়ে, তা প্রমাণ হলো আরও একবার। টিভিএস ফেডারেশন কাপ ফুটবলে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে জায়গা করে নিলো বসুন্ধরা। অন্যদিকে প্রথমবারের মতো শীর্ষ পর্যায়ে এসে দারুণ একটা সুযোগ পেয়েও ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হলো পুলিশ। শুক্রবার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে তারা ৩-০ গোলে হেরে মাঠ ছেড়েছে। আগামী রবিবার ফাইনালে রহমতগঞ্জের সঙ্গে লড়বে বসুন্ধরা।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে রক্ষণ কিছুটা জমাট রেখে খেলেছে বসুন্ধরা। দুই সেন্টার ব্যাক তপু বর্মণ ও ইয়াসিন খান তো ছিলেনই।এছাড়া উইং ব্যাক ইব্রাহিম ও বিশ্বনাথ রক্ষণ যেমন সামলেছেন, আবার আক্রমণেও সহায়তা করেছেন।মাঝমাঠে বখতিয়ার দুইশবেকভ ও নিকোলাস দেলমন্তে বলের জোগান দিয়েছেন। লেবানিজ স্ট্রাইকার জালাল কদুহ ছিলেন না। কোস্টারিকার দানিয়েল কলিনদ্রেস এই ম্যাচে ফরোয়ার্ড হিসেবে  খেলে গোলও পেয়েছেন।

পুলিশ এফসি সতর্কভাবে শুরু করে পরে আক্রমণে ওঠার চেষ্টা করেও সাফল্য পায়নি। প্রতিপক্ষের রক্ষণের বাধা পেরিয়ে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি তাদের পক্ষে। যদিও ম্যাচের ৯ মিনিটে বুলগেরিয়ান খেলোয়াড় লাসকভ আন্তনিওর ফ্রি-কিক গোলকিপার জিকো ফিস্ট করে গোল হতে দেননি।

এরপর থেকে বসুন্ধরার আক্রমণ শুরু।১২ মিনিটে কলিনদ্রেসের ব্যাকভলি জালে গেলেও অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে যায়। চার মিনিট প্রথম গোলের দেখা পায় বসুন্ধরা।

ডিফেন্ডার খান মোহাম্মদ তারা ফেলে দেন কলিনদ্রেসকে। পেনাল্টি থেকে তপু বর্মণ গোল করে দলকে এগিয়ে নেন।গোলকিপারকে একা পেয়েও মাহবুবুর রহমান সুফিল ক্রসবারের ওপর দিয়ে বল তুলে না দিলে ২৬ মিনিটেই ব্যবধান দ্বিগুন করতে পারত বসুন্ধরা।

এক গোলে এগিয়ে থেকে বিরতির পর বসুন্ধরাকে পাওয়া যায় আরও আক্রমণাত্মক মেজাজে।শুরুতে বসুন্ধরার তাজিক ফরোয়ার্ড আখতাম নাজারভের শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়।৪৯ মিনিটে ২-০। ডানদিক দিয়ে দ্রুত আক্রমণে ওঠা কলিনদ্রেস কোনাকুনি শটে ব্যবধান বাড়িয়ে নেন।

পুলিশ ৫৫ মিনিটে আরও একটি গোল খেতে বসেছিল।পরে মোহাম্মদ ইব্রাহিম ও তপু বর্মণ গোল নষ্ট করার মহড়াই দিয়েছেন। কিন্তু ম্যাচের যোগ হওয়া সময়ে আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার দেলমন্তের জোরালো শট কসুন্ধরাকে জয় এনে দেয় বড় ব্যবধানে (৩-০)।টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফেডারেশন কাপের ফাইনালে উঠে বসুন্ধরা কিংসের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজন খুশি, ‘দল পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পেরেছে। সুযোগগুলো কাজে লাগিয়ে গোল আদায় করেছে। আমরা ফাইনালে যেতে পেরে আনন্দিত। এখন জিততে চাই ফাইনাল।’

পুলিশ এফসির সার্বিয়ান কোচ নিকোলাস ভিতোরোভিচ হতাশা ঝেড়ে তাকাচ্ছেন সামনে,‘ম্যাচটি কঠিন ছিল। বসুন্ধরা আমাদের চেয়ে এগিয়ে থাকা দল। তারা মাঠেও প্রমাণ করেছে। এখন লিগে আমরা ভালো করতে চাই।’

/টিএ/পিকে/

লাইভ

টপ