ছক বদলেই ‘বাজি’ জিতেছেন ডে

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:১১, জানুয়ারি ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১১, জানুয়ারি ১৯, ২০২০

Bangladesh (green) Vs Sri-Lanka (yellow) (K) 1ম্যাচশেষে ফুরফুরে মেজাজে জেমি ডে। বাঁচা-মরার লড়াইয়ে বড় ব্যবধানে জিতেছে বাংলাদেশ। মাঠে সুরভি ছড়িয়ে শ্রীলঙ্কাকে দাঁড়াতেই দেয়নি স্বাগতিকেরা। এমন একপেশে জয়টাই বাংলাদেশের ইংলিশ কোচের উচ্ছ্বাসের আসল কারণ।

এমনিতেই দলের স্কোরিং সমস্যা প্রকট। স্ট্রাইকাররা গোল পাচ্ছিল না। এ নিয়ে দলের মধ্যেই ছিল হাহাকার। আশার বিষয় লঙ্কানদের বিপক্ষে গোলের খাতা খোলা গেছে।

এমন ম্যাচ জিতে ডে যেন হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন, ‘ম্যাচ জিতে আমি খুশি। শ্রীলঙ্কা ফিলিস্তিনের বিপক্ষে ভালো খেলেছে। তাই আমাদের জন্য ম্যাচটি সহজ ছিল না। ছেলেরা আসলেই ভালো খেলছে। ক্লিনশিট রেখেছে। তাদের প্রশংসা করতেই হয়।’

এ ম্যাচে বাংলাদেশ ট্যাকটিকস বদলে খেলেছে ৪-৪-২ ফর্মেশনে। তাতেই যেন দেখা মিলেছে নতুন এক বাংলাদেশের। তবে ছক বদলানোটা ডের কাছে ছিল বাজি ধরার মতো, ‘আমরা ট্যাকটিস বদলেছি। আমাদের তো জিততেই হতো। ছেলেরা এই সপ্তাহে কঠিন পরিশ্রম করেছে, তারা সুযোগ তৈরি করেছে। আমরা এই জয় উপভোগ করবো। আর হ্যাঁ, ফর্মেশন বদলটা ছিল অনেকটা বাজি ধরার মতোই (হেসে)!’

একাদশে চারটি বদল, ডের দাবি তবুও চাপ নেননি তিনি, ‘তারুণ্যনির্ভর দল নিয়ে খেলেছে। অধিনায়ক সহ চার জন ছাড়াই দল খেলেছি। তাদের ওপর আমার আস্থা ছিল। ওরা ভালো করতে পারবে। আমি চাপ নিইনি। খেলোয়াড়দের বলেছি, চাপ নেওয়ার কিছু নেই, ট্যাকটিস অনুযায়ী খেলতে পারলেই ম্যাচ জিততে পারবো।’

দল ৩-০ এগিয়ে, তবুও বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার তপু বর্মণ লাল কার্ড দেখে মাঠ ছেড়েছেন। বুরুন্ডির বিপক্ষে সেমিফাইনালে তাকে পাওয়া যাবে না। ডে তপুকে হারিয়ে উদ্বিগ্ন, ‘তপুর লালকার্ডটা হতাশার। ওকে পরের ম্যাচে পাবো না। আমাদের জন্য বড় ক্ষতি হয়ে গেলো। মতিন ভালো খেলেছে। গোলও পেয়েছে। সেমিফাইনালে বুরুন্ডি শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। শরীরনির্ভর খেলে থাকে। আমাদেরও সেভাবে খেলতে হবে।’

শ্রীলঙ্কার কোচ পাকির আলী তিন গোলে ম্যাচ হেরে হতাশ। নিকট অতীতে বাংলাদেশের কাছে এত বড় ব্যবধানে হারেনি শ্রীলঙ্কা। বলেছেন, ‘ম্যাচে আমরা অনেক ভুল করেছি। রক্ষণে এবং মাঝমাঠে আমাদের খেলাটা হয়নি। গোলের সুযোগ পেয়েও আমাদের ফরোয়ার্ডেরা তা কাজে লাগাতে পারেনি।’

/টিএ/পিকে/

লাইভ

টপ