খেলার পাশাপাশি পড়াশোনাতেও সফল আঁখি-স্বপ্নারা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:৩২, জুন ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৪৩, জুন ০১, ২০২০

আঁখি খাতুন। মাঠের খেলাতে খুব পারদর্শী আঁখি-স্বপ্নারা। তাই বলে পড়াশোনাতেও পিছিয়ে, এমনও নয়। মাঠের পাশাপাশি তারা পড়াশোনাটাও চালিয়ে নিচ্ছেন সমানতালে। এবারের এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিলেন জাতীয় দলের ১০ খেলোয়াড়। এরমধ্যে সাফল্যের সঙ্গে মাধ্যমিকের বাধা অতিক্রম করেছেন ৮ জনই। এমন সাফল্যের পর আঁখি-শামসুন্নাহারদের লক্ষ্যও এখন আকাশচুম্বী।

দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে পরীক্ষা দিয়েছিলেন জাতীয় দলের অন্যতম খেলোয়াড় আঁখি খাতুন, রেহানা আক্তার, রিতু চাকমা, শামসুন্নাহার জুনিয়র ও সিনিয়র। রয়েছেন আনাই মোগিনী, তহুরা আক্তার, মাহফুজা আক্তার, সাজেদা আক্তার ও সিরাত জাহান স্বপ্না। তাদের মধ্যে তহুরা ও শামসুন্নাহার জুনিয়র ছাড়া বাকি সবাই উত্তীর্ণ হয়েছেন।

এদের মধ্যে বিকেএসপি থেকে মানবিক বিভাগে উত্তীর্ণ হয়েছেন আঁখি। তার জিপিএ ৩.৮৩। খেলাধুলার পাশাপাশি পড়াশোনাটাও সমানতালে চালাতে হয় বলে এই অর্জনেই খুব খুশি সিরাজগঞ্জ থেকে উঠে আসা এই ডিফেন্ডার। বাংলা ট্রিবিউনকে  বলেছেন, ‘অনেক চাপের মধ্যে থেকে লেখাপড়া চালিয়ে যেতে হচ্ছে। পরীক্ষাও দিয়েছি অনেক কষ্ট করে। এভাবে ভালোভাবে পাস করবো তা অবশ্য চিন্তা করিনি। আমার পরিশ্রম স্বার্থক হয়েছে।’

আঁখিরা যখন পরীক্ষা দিচ্ছিলেন, তখন মেয়েদের লিগ চলছিল। পরীক্ষার টেবিলে সেভাবে মনোযোগ ধরে রাখাটা ছিল কষ্টকর। আঁখি নিজেই বলেছেন সেই অভিজ্ঞতার কথা, ‘পরীক্ষার শেষের দিকে লিগ শুরু হলো। আমার দল বসুন্ধরা কিংস খেলছে, আর আমি তখন পরীক্ষা দিচ্ছি। এছাড়া সতীর্থ অনেকেই যখন বিকালে পড়াশোনা করতো, তখন আমাকে মাঠে অনুশীলন করতে হয়েছে। একই সঙ্গে খেলা ও পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়াটা বেশ কষ্টদায়ক।’

তবে এভাবেই পরিশ্রম করে লেখাপড়া চালিয়ে যেতে চান এই ডিফেন্ডার, ‘আমার বাবা-মার বড় স্বপ্ন আমি একসময় লেখাপড়া করে শিক্ষিত মানুষ হবো। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার ইচ্ছা আছে। যদি সুযোগ পাই, তাহলে সেনাবাহিনীতেও চাকরি করতে চাই।’

 

/টিএ/এফআইআর/

লাইভ

টপ