বিশ্বকাপ ফাইনাল ‘বিক্রি’: সাঙ্গাকারাকে ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৫:২৩, জুলাই ০৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৩০, জুলাই ০৩, ২০২০

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের ফাইনাল শেষে প্রশ্ন উঠেছিল। তবে সেটা দানা বাঁধেনি। ৯ বছর এতদিনে সেই ‘প্রশ্নটা’ ফুঁসে উঠেছে সেই সময়কার শ্রীলঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রী মাহিন্দানন্দা আলুথগামাগে ‘২০১১ বিশ্বকাপ ভারতের কাছে বেচে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা’- অভিযোগ তোলার পর থেকে। এরই প্রেক্ষিতে শুরু হওয়া তদন্তে হাজিরা দিতে হয়েছে ওই বিশ্বকাপে লঙ্কানদের নেতৃত্ব দেওয়া কুমার সাঙ্গাকারাকে। গতকাল (বৃহস্পতিবার) কলম্বোয় সাবেক এই ব্যাটসম্যানকে ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

গত ১৮ জুন শ্রীলঙ্কা সরকারের বর্তমান বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী আলুথগামাগে, যিনি ২০১১ সালে ক্রীড়ামন্ত্রী ছিলেন, বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসেন যে ওই বিশ্বকাপের ফাইনালটা ছিল পাতানো। শ্রীলঙ্কার একটি বিশেষ গোষ্ঠী ছিল এর নেপথ্যে। না হলে শ্রীলঙ্কা ফাইনালে হারতো না। তিনি এটির তদন্তও দাবি করেন। তার দাবি অনুযায়ীই তদন্ত শুরু করেছে শ্রীলঙ্কান ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বিশেষ তদন্ত বিভাগ।

যেহেতু ওই বিশ্বকাপের অধিনায়ক ও গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ছিলেন সাঙ্গাকারা, তাই তাকেও ডেকে পাঠানো হয়েছিল। তার সঙ্গে নাকি মাহেলা জয়াবর্ধনেও গিয়েছিলেন। তবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি, আজ (শুক্রবার) আবার জয়াবর্ধনে পুলিশের সামনে যেতে পারেন বলে খবর শ্রীলঙ্কান সংবাদমাধ্যমগুলোর।

দীর্ঘ সময় ধরে সাঙ্গাকারাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। শ্রীলঙ্কান সংবাদমাধ্যম ‘নিউজওয়্যারডটআইকে’  জানিয়েছে, প্রায় ১০ ঘণ্টার মতো ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কার্যালয়ে ছিলেন ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তিনি বলেছেন, ‘এখানে আমি এসেছিলাম ক্রিকেটের প্রতি দায়বদ্ধতা ও সম্মান থেকে। আশা করছি, তদন্ত শেষে মাহিন্দানন্দা আলুথগামাগে অভিযোগের সত্যতা বেরিয়ে আসবে।’ পুলিশ কী জিজ্ঞেস করেছে, সে ব্যাপারে অবশ্য কিছু বলেননি সাবেক অধিনায়ক।

কলম্বোয় ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে যখন সাঙ্গাকারার জিজ্ঞাসাবাদ চলছিল, তখন বাইরে উঠেছিল প্রতিবাদের ঝড়। সাঙ্গাকারা, যিনি শুধু শ্রীলঙ্কা নন, ক্রিকেট বিশ্বেরই উজ্জ্বল নক্ষত্র, তাকে হয়রানি করানোয় প্রতিবাদ জানাতে ব্যানার হতে জড়ো হয়েছিলেন অনেকেই।

২০১১ বিশ্বকাপ ‘বিক্রি’র অভিযোগ তোলা আলুথগামাগে কিন্তু সুর পাল্টে বলেছিলেন, বিষয়টি কেবল তার ‘সন্দেহ’ মনে হয়। এরপরও তদন্তে ভাটা পড়েনি। ২৪ জুন রেকর্ড করা হয় আলুথগামাগের বক্তব্য। এরপর গত মঙ্গলবার পুলিশের কাছে হাজিরা দেন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট কিংবদন্তি অরবিন্দ ডি সিলভা ও ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালের ওপেনিং ব্যাটসম্যান উপুল থারাঙ্গা। 

/কেআর/

লাইভ

টপ