মেসিকে নিয়েই ছাড়বে ইন্টার মিলান?

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:২৭, আগস্ট ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৫৫, আগস্ট ০২, ২০২০

বার্সেলোনার নতুন অ্যাওয়ে জার্সি গায়ে মেসি। ছবি:টুইটারইতালিয়ান সংবাদমাধ্যমের দৃঢ় বিশ্বাস, লিওনেল মেসিকে এনেই ছাড়বে ইন্টার মিলান। ইতালির নামী ক্রীড়া দৈনিক লা গাজেত্তা দেল্লো স্পোর্ত আভাস দিয়েছে, মেসির জন্য বার্সেলোনার কাছে ২৬০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে ইন্টার।

এমন খবরের পরও বার্সেলোনা থেকে বারবারই দাবি করা হচ্ছে মেসি কোথাও যাবেন না। ৩৩ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন তারকা কাতালান ক্লাবটিতেই শেষ করবেন ক্যারিয়ার! আবার সেদিন ইন্টারের কোচ আন্তোনিও কন্তেও মেসির ইন্টারের যাওয়ার সম্ভবনাকে উড়িয়ে দিয়ে বলেছেন, এমনটা শুধু ফ্যান্টাসি ফুটবলেই হতে পারে।

তবে স্পেনের প্রভাবশালী ক্রীড়া দৈনিক মার্কার উপলব্ধি, আগামী মৌসুমে মেসি ইন্টারে যোগ দিতেই পারেন। কারণ এমনিতে নরম-সরম মেসি এবার যেভাবে তার ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন, আগে কখনও দেখা যায়নি। জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউয়ের বর্তমান আমলেও ক্লাবের অনেক অনিয়ম-অব্যবস্থাপনা নিয়ে সংবাদমাধ্যম মুখর হয়েছে, মেসি কিন্তু নীরবই থেকেছেন। এবার ঘরের মাঠে ১০ জনের ওসাসুনার কাছে হেরে লা লিগা খোয়ানোর পর নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি। বলে দিয়েছেন, এভাবে চললে নাপোলির সঙ্গে চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচটিই জেতা হবে না। দলের অনেক কিছুরই খোলনলচে সমেত বদলাতে হবে। কোচ কিকে সেতিয়েনের কথা আলাদা করে বলেননি। কিন্তু কে না বুঝতে পারে এই ‘অনেক কিছু’র মধ্যে সেতিয়েনও আছেন!

তারওপর বার্সেলোনায় মেসির বর্তমান চুক্তিটি ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত। বার্সেলোনা নিজেদের বিশ্বাস থেকে বলছে মেসি নতুন চুক্তি করবেন, কোথাও যাবেন না। অথচ মেসি এখনও চুক্তি করতে রাজি হননি। ওদিকে তার এজেন্ট বাবা হোর্হে মেসি ইতালিতে পাড়ি জমানোর উদ্যোগ নিয়েছেন। এসব কিসের লক্ষণ?

ইন্টারের সাবেক প্রেসিডেন্ট মাসিমো মোরাত্তির দীর্ঘ লালিত স্বপ্ন ছিল কোনও একদিন মেসিকে তিনি স্তাদিও জিউসেপ্পে মেয়াৎজাতে এনেই ছাড়বেন। উয়েফার আর্থিক সমতার নীতি কিংবা ক্লাবের আর্থিক সামর্থ্য অনুযায়ী সেটি তিনি সম্ভব করতে পারেননি। মোরাত্তি এখন নেই। কিন্তু তার স্বপ্নই ছায়া ফেলছে ক্লাবের নতুন চীনা মালিক সুনিং গ্রুপের চোখে। এরাও চাইছে মেসিকে আনতে। টাকা তাদের কাছে কোনও ব্যাপার নয়। তাছাড়া উয়েফা আর্থিক সমতার নীতিটিও শিথিল করেছে। এ জন্যই ম্যানচেস্টার সিটি দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েও আপিল করে জিতেছে। নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় তারাও টাকার বস্তা নিয়ে নামছে দলবদলের বাজারে, নামছে তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

করোনাভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাব ক্রীড়াঙ্গনে পড়েছে সবচেয়ে বেশি। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে টিকিট বিক্রি থেকে অর্জিত বিশাল অঙ্কের টাকাটা শূন্য। স্টেডিয়াম ট্যুর থেকে টাকা আসছে না। প্রাক-মৌসুম সফরও বাতিল বলে বড় অঙ্কের অর্থ উপার্জনের পথও বন্ধ। এই তিনটি খাতেই বার্সেলোনার ছিল বিপুল আয়। আয়ের এসব খাত বন্ধ হওয়ায় ভালোই আর্থিক সংকটে পড়েছে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ক্লাবটি। এর মধ্যে মেসির জন্য যদি ২৬০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব (যা হবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দলবদলের চুক্তি) দেয় ইন্টার, বার্সেলোনা কতটা অনড় থাকতে পারবে?

২ লাখ ৮০ হাজার কর্মীবাহিনীর সুনিং গ্রুপ গত ২০১৯ মৌসুমে আয় করেছে ৭৭.২৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০১৮-১৯ মৌসুমে ইন্টারেরও আয় হয়েছে ৪১৭ মিলিয়ন ইউরো, যা ক্লাব রেকর্ড। সবচেয়ে বড় কথা, তারা সিরি ‘আ’তে জুভেন্টাসের একাধিপত্য ভাঙতে চায়। তারা এটাও বুঝতে পারছে যে মেসিকে আনতে পারলে ক্লাবের আয় বাড়বে আরও কয়েকগুণ। চেয়ারম্যান ঝ্যাং জিনদং তার ছেলে স্টিভেনকে দায়িত্ব দিয়েছেন ইন্টারের সবকিছু দেখভাল করার। সুতরাং দুইয়ে-দুইয়ে চার মিলে যাওয়ার কিন্তু ভালোই সম্ভাবনা আছে।

আর মনে রাখা ভালো, লা গাজেত্তা দেল্লো স্পোর্তই প্রথম বলেছিল ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো জুভেন্টাসে আসছেন। সেটাই সত্যি হয়েছে। সিআর-৭ রিয়াল মাদ্রিদকে অবাক করে দিয়ে ২০১৮ সালে যোগ দেন ইতালির চ্যাম্পিয়ন দলটিতে।

/পিকে/

লাইভ

টপ