ঘূর্ণিঝড়ের পর সেবা পুনরুদ্ধারে সরকারের সহযোগিতা চায় মোবাইল অপারেটররা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:০২, মে ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:০৭, মে ২০, ২০২০

মোবাইল টাওয়ার (ছবি: সংগৃহীত)

ঘূর্ণিঝড় আম্পান কেটে যাওয়ার পরে টেলিকম সেবা পুনরুদ্ধারে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো। মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর সংগঠন অ্যামটব সরকারের কাছে ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজের জন্য এই সহযোগিতা চেয়েছে।

বুধবার (২০ মে) অ্যামটব মহাসচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.)এস এম ফরহাদ এক বার্তায় এ কথা বলেন।

তিনি বলেন,  ‘‘মোবাইল সেবাদাতা ও তাদের সহযোগী প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা ‘কোভিড-১৯’ সংকটের সময়ে দেশের নাগরিকদের জরুরি টেলিকম সেবা নিশ্চিত করতে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এরমধ্যে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতের পরে উপকূল এলাকাগুলোতে অত্যাবশ্যকীয় মোবাইল সেবা যেন চালু থাকে, বা স্বল্প সময়ের মধ্যে তা যেন পুনরায় চালু করা যায়, সেজন্য সজাগ ও সতর্ক থেকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।’

অ্যামটব মনে করে, টেলিযোগাযোগকে জরুরি সেবা বিবেচনা করে ঘূর্ণিঝড়ের সময় ও পরে পুনরায় সেবা চালু করতে সরকারের বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় দরকার। বিশেষ করে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের বিশেষ সহযোগিতা প্রয়োজন। এছাড়া, এই সময়ে জরুরি প্রয়োজনে সেবা পুনরুদ্ধারে চলাচলের জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সহায়তাও চেয়েছে অ্যামটব। নাগরিকদের নিরবচ্ছিন্ন টেলিকম সেবা নিশ্চিত করাই মোবাইল সেবাদাতাদের উদ্দেশ্য বলে বার্তায় উল্লেখ করা হয়।

১০৯০ নম্বরে ফোন করলে জানা যাবে আম্পানের খবর

মোবাইল ফোন অপারেটর বাংলালিংক ঘূর্ণিঝড় আম্পান সম্পর্কে গ্রাহকদের প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে ১০৯০ নম্বরে বিনামূল্যে কল করার সুবিধা দিচ্ছে। এছাড়া. যেকোনও জরুরি সহায়তার জন্য বাংলালিংক গ্রাহকরা জাতীয় জরুরি সেবার হটলাইন ৯৯৯ নম্বরে বিনামূল্যে কল করতে পারবেন বলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে অপারেটরটি। এছাড়া প্রয়োজনে *৮৭৪# ডায়াল করে জরুরি ব্যালেন্সও নিতে পারবেন বাংলালিংক গ্রাহকরা।

 

 

/এইচএএইচ/এপিএইচ/

লাইভ

টপ