অ্যাপেই রোগী দেখবে ডাক্তার

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:৫০, জুন ১৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৫৬, জুন ১৮, ২০২০

ডাক্তার দেখাতে যেতে হবে না হাসাপাতালে, চিকিৎসা হবে অ্যাপেই। ‘ক্লিনিভা হেলথকেয়ার’ নামে অ্যাপটি অনলাইন ভিত্তিক ডক্টর কনসাল্টেশনের কাজ করবে। যা বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে দেশের স্বাস্থ্যসেবা আরও সহজ করবে।

এই অ্যাপের মাধ্যমে এককালীন ভিডিও কনসাল্টেশনের পর চিকিৎসক ও রোগী সংযুক্ত থাকবেন পরবর্তী পাঁচ দিন। প্রথম দিনের কনসাল্টেশনের পর চিকিৎসকের সঙ্গে চ্যাটিংয়ের মাধ্যমে যোগাযোগ অব্যাহত রাখতে পারবেন রোগী।

অ্যাপটি বানিয়েছে ক্লিনিভা হেলথকেয়ার টেকনোলজি নামে একটি প্রতিষ্ঠান। সংশ্লিষ্টরা জানান, ডাক্তার ও রোগী আলাদা দুই ধরনের অ্যাপের মাধ্যমে সংযুক্ত থাকবেন। একজন রোগী তার সমস্যা চিহ্নিত করে অথবা স্পেশালিটি নির্ধারণ করে চিকিৎসক খুঁজতে পারবেন। রোগীর সমস্যা ও অবস্থানের ভিত্তিতে ক্লিনিভা বেশ কয়েকজন চিকিৎসকের প্রোফাইল রোগীকে দেখাবে। অ্যাপে অভিজ্ঞ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অথবা জেনারেল ফিজিশিয়ান নির্বাচন করে ফি (১৫০ থেকে ৬০০ টাকা) দিতে হবে। ফি দেওয়ার পর রোগী ভিডিও কনসাল্টেশনে যুক্ত হতে পারবেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বিস্তারিত আলোচনা করে অ্যাপ থেকেই ডিজিটাল প্রেসক্রিপশন তৈরি করে রোগীকে দিবেন। এরপর রোগী পরবর্তী পাঁচ দিন চ্যাটিংয়ের মাধ্যমে ডাক্তারের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন। যার ফলে ডায়াগনস্টিক রিপোর্ট পাঠাতে পারবেন এবং নিজের সমস্যার অগ্রগতিও জানাতে পারবেন। রিপোর্ট ও সমস্যার অগ্রগতি দেখে চিকিৎসক প্রয়োজনে পরবর্তিতে প্রেসক্রিপশন পরিবর্তন করে দিতে পারবেন।

ক্লিনিভা হেলথকেয়ার টেকনোলজি’র চিফ অপারেটিং অফিসার নাবিদ সালেহিন নিলয় বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্ল্যাটফর্মে ১২টি স্পেশালাইজড ক্যাটেগরিতে রেজিস্টার্ড চিকিৎসক আছেন ১১০ জন। এই অ্যাপ্লিকেশনটি বানানো হয়েছে চিকিৎসক ও রোগী কতো সহজভাবে ব্যবহার করতে পারবে সেই চিন্তা করে। এই অ্যাপে যেকোনও চিকিৎসক রেজিস্টার্ড হতে পারবেন। তবে তাদেরকে বিএমডিসি রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দিতে হবে। সেটি আমরা যাচাই করে তারপর তাদের রেজিস্ট্রেশন কনফার্ম করি। এছাড়া ফি পেমেন্টের ক্ষেত্রে রোগীরা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবেন।’

প্রতিষ্ঠানের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার সানি আলম শোভন বলেন, ‘অ্যাপ বানানোর ভাবনার শুরুটা ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে। কাজ শুরু করি একই বছরের এপ্রিলে এবং ওই বছরের শেষের দিকে কাজ শেষ হয়। প্রথম দুই মাস সেবাটি ফ্রি দেওয়া হয়। তবে এখন চিকিৎসকের ফি নির্ধারণ করা হয়েছে, চিকিৎসকদের চাহিদা অনুযায়ী। এছাড়া এই অ্যাপে চিকিৎসকদের সুবিধার জন্য তাদেরই দেওয়া প্রেসক্রিপশন সংরক্ষণের সুবিধা আছে। এতে করে একজন চিকিৎসক আরেকজন চিকিৎসক এবং রোগীর পরিচয় জানা ছাড়া কী ব্যবস্থাপত্র দিচ্ছেন সেটি দেখে নিজেও সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। এতে করে একজন রোগীর মানসম্মত চিকিৎসা নিশ্চিত করা যাবে।’

অ্যাপটি গুগল প্লে-স্টোর থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে। যেখানে রোগী এবং চিকিৎসকদের জন্য আলাদা দুটি ভার্সন রয়েছে।


/এসও/এনএস/

লাইভ

টপ