করোনা পরিস্থিতিতে অনলাইন বিটুবি প্ল্যাটফর্মের ওপর গুরুত্বারোপ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:২৫, অক্টোবর ১৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৭, অক্টোবর ১৫, ২০২০

অনলাইনভিত্তিক বিটুবি ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম মার্চেন্ট বে’র আয়োজনে বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) থেকে শুরু হলো ডিজিটাল ট্রেড উইক।  ‘ডিজিটাল ট্রেড ইন গ্লোবাল পার্সপেক্টিভ’ শিরোনামে ওয়েবিনার সেশনের মাধ্যমে উদ্বোধন হলো সপ্তাহব্যাপী এই ডিজিটাল ট্রেড ইভেন্ট। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে করোনা পরিস্থিতিতে অনলাইন বিটুবি প্ল্যাটফর্মের ওপরে গুরুত্বারোপ করেন  বক্তারা।

মার্চেন্ট বে’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবরার হোসেন সায়েমের সঞ্চালনায় ওয়েবিনারে প্যানেলিস্ট হিসেবে উপস্থিত ছিলেন— ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশনের (ডব্লিউটিও) ট্রেড পলিসি অ্যানালিস্ট মিনা হাসান, বিজিএমইএ’র সভাপতি ড. রুবানা হক, জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশন জেট্রো বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ইউজি অ্যান্ডো, পলিসি এক্সচেঞ্জ অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মাশরুর রিয়াজ, নিউ ভিশন সলিউশনস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারেক রাফি ভূঁইয়া।

অনুষ্ঠানে মিনা হাসান বলেন, ‘ডিজিটাল অর্থনীতি আমাদের অর্থনীতির কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।  বিটুসিতে বিক্রয় যেমন বেড়েছে তেমনই বিটুবি’র পরিমাণও অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে দেশীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাসহ সব ধরনের ব্যবসা দেশে ও বিদেশে সহজে প্রসার লাভ করতে পেরেছে।  এই কাজ অনেক দেশকে ডব্লিউটিও’র সঙ্গে জড়িত করবে।’

ড. রুবানা হক বলেন, ‘বাংলাদেশের সরকার ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের ওপর বিশ্বাস করে। বাংলাদেশ তৈরি পোশাক খাতে গত চার যুগ ধরে আছে।  বাংলাদেশ এখন বাজারে তাদের নিজস্ব ব্র্যান্ড নিয়ে আসতে পারে।  বাংলাদেশের ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে প্রবেশের অপার সম্ভাবনা রয়েছে।  ডিজিটাল ট্রেড পুরোটাই আস্থার ওপর নির্ভরশীল।  পুরো পৃথিবী ডিজিটাল হয়ে গেছে। ডিজিটাল ট্রেডের কোনও বিকল্প নেই।   দেশকে ব্র্যান্ড হিসেবে তৈরি করতে আমাদের সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।’

জেট্রোর বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ইউজি অ্যান্ডো বলেন, ‘চীনের ক্রস বর্ডার ই-কমার্সের পরিমাণ ৩৫০ বিলিয়ন ডলার।  এর থেকে আমরা ডিজিটাল ট্রেডের যে সম্ভাবনা, তা খুব সহজেই অনুমাণ করতে পারি।  তবে এক্ষেত্রে বায়ার সাপ্লায়ার সবার মধ্যে একটি বিশ্বাস ও স্বচ্ছতা থাকা জরুরি।  এছাড়া প্রাইভেট-পাবলিক পার্টনারশিপের ভিত্তিতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের ডিজিটাল চ্যানেলের আওতায় নিয়ে আসতে হবে ‘ 

ডিজিটাল ট্রেডকে প্রমোট করতে এবং তৈরি পোশাক খাতে ট্রেডের ডিজিটালাইজেশনের সূচনা করতে এমন আয়োজন বাংলাদেশে এই প্রথম অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  বাংলাদেশের রফতানি খাতকে প্রসারিত করতে এমন আয়োজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করছে এর আয়োজক মার্চেন্ট বে।  আয়োজনটি চলব ২১ অক্টোব পর্যন্ত।

মার্চেন্ট বে’র ভেরিফায়েড সাপ্লায়াররা ট্রেড উইকে নিজেদের পণ্য ও ফ্যাক্টরির সুযোগ-সুবিধা প্রাইভেট সেশনের মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বায়ারদের কাছে তুলে ধরতে পারবেন। এছাড়া ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে একজন সাপ্লায়ার এক বছরের জন্য মার্চেন্ট বের বায়ার প্রমোশনে অগ্রাধিকার পাবেন বলে জানা গেছে।  ট্রেড উইকের সামনের দিনগুলোতে আরও কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সেশন অনুষ্ঠিত হবে।  ১৭ অক্টোবর জেসিআই বাংলাদেশের আয়োজনে লিডারশিপ কনক্লেভের তিনটি ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হবে।  এসব ওয়েবিনারে বর্তমান সময়ের ডিজিটাল ট্রেড বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন টপিকে আলোচনায় অংশ নেবেন দেশ-বিদেশের বিশেষজ্ঞরা।

এছাড়া ২১ অক্টোবর মার্চেন্ট বে পডকাস্ট শো'র প্রিমিয়ার অনুষ্ঠিত হবে।  এই শো'তে ইন্ডাস্ট্রির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনায় অংশ নেবেন সফল উদ্যোক্তা ও বিশেষজ্ঞরা।  ডিজিটাল ট্রেড উইকের বিস্তারিত জানা যাবে https://merchantbay.com/digitaltrade/events/ এই ঠিকানায়।

 

/এইচএএইচ/এপিএইচ/

লাইভ

টপ
X