X
বুধবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

যেসব জায়গায় পাওয়া যাবে ফাইভ-জি

আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০২১, ১৯:১৩

দেশে আগামী ১২ ডিসেম্বর পরীক্ষামূলক চালু হচ্ছে ফাইভ-জি। রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক রাজধানীর কয়েকটি এলাকায় বিশেষ করে গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোতে এই নেটওয়ার্ক চালু করবে। আগামী বছর দেশের ২০০টি গুরুত্বপূর্ণ সাইটে (টাওয়ারে) এই নেটওয়ার্ক চালু করবে অপারেটরটি। যদিও ২০২২ সালে অন্যান্য মোবাইল ফোন অপারেটরও ফাইভ-জি চালু করবে।

১২ ডিসেম্বর ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবসে’ ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক চালু হলেও সবাই এই সেবা ব্যবহার করতে পারবেন না। কয়েকটি বিশেষ স্থাপনায় এই নেটওয়ার্ক চালু করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমরা প্রাথমিকভাবে কয়েকটি জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় ফাইভ-জি চালুর পরিকল্পনা করেছি। এরমধ্যে রয়েছে—বঙ্গভবন, গণভবন, সংসদ ভবন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, সচিবালয় ও ধানমন্ডি ৩২ নম্বর। এছাড়া আমাদের আরও  দুটি স্থাপনায় ফাইভ-জি চালুর পরিকল্পনা রয়েছে। যদিও এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি, এগুলো হলো—টুঙ্গিপাড়া ও রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকা।’

মন্ত্রী বলেন, ‘দেশে ১৪টি মোবাইল তৈরির কারখানা রয়েছে। এর উদ্যোক্তারা আমাদের জানিয়েছেন, সবারই ফাইভ-জি ফোন তৈরির সক্ষমতা রয়েছে। সময় হলেই তারা ফাইভ-জি ফোন তৈরি করবেন।’ ফাইভ-জি ফোন তৈরির বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘স্যামসাং আমাকে জানিয়েছে, তারা এরইমধ্যে ফাইভ-জি ফোন তৈরি করেছে।’  অন্যরাও এগিয়ে আসবে বলে তিনি আশাবাদী।

ফাইভ-জি ফোনের বিষয়ে জানতে চাইলে দেশের মোবাইল ফোন উৎপাদকদের সংগঠন বিএমপিআইএ-এর সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া শহীদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ফাইভ-জি চালু হলে মোবাইল ফোন নির্মাতারা ঠিকই ফাইভ-জি ফোনসেট উৎপাদনে যাবেন।’ আগামী বছর কয়েকটি কারখানায় ফাইভ-জি ফোনের উৎপাদন শুরু হবে বলে তিনি জানান। তার নিজের প্রতিষ্ঠান সিম্ফনির কারখানায়ও ফাইভ-জি ফোন তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। তিনি মনে করেন, এরইমধ্যে দেশে অনেক ফাইভ-জি ফোন রয়েছে। আইফোনসহ অন্যান্য দামি ফোনগুলো ফাইভ-জি সাপোর্টেড। এ সংখ্যা একেবারে কম নয় বলে তিনি জানান।

দামের পার্থক্য একটা বড় ব্যাপার হবে বলে বিএমপিআইএ-এর সাধারণ সম্পাদক মনে করেন। ফোর-জি ফোনের তুলনায় ফাইভ-জি ফোন বেশ দামি হবে। সেটা সাধারণ গ্রাহকের কতটা সাধ্যের মধ্যে থাকবে, তার ওপর নির্ভর করবে ফাইভ-জি ফোনের সার্থকতা বলে মনে করেন জাকারিয়া শহীদ।

টেকনো, আইটেল ও ইনফিনিক্স মোবাইলের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ট্রানশান বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী রেজওয়ানুল হক জানান, তাদেরও ফাইভ-জি ফোন তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। আগামী বছরই তারা ফাইভ-জি ফোন উৎপাদনে যাবেন বলে তিনি জানান।

এদিকে মটোরোলাও দেশে ফাইভ-জি ফোন আনছে। আগামী মাসে মটোরোলার এজ সিরিজের ফাইভ-জি ফোন বাজারে আসছে। অপোও ফাইভ-জি ফোন তৈরি করছে বলে জানা গেছে। 

মার্চে ফাইভ-জির তরঙ্গ নিলাম

আগামী বছরের মার্চ মাসে ফাইভ-জির জন্য তরঙ্গ (স্পেক্ট্রাম) নিলাম অনুষ্ঠিত হবে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে তরঙ্গ নিলাম হওয়ার কথা থাকলেও তা হচ্ছে না। সেই নিলামে দেশের অন্যান্য মোবাইল অপারেটর অংশ নিয়ে পর্যায়ক্রমে ফাইভ-জি চালু করবে বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, ফাইভ-জি সেবা চালু করতে তরঙ্গ বরাদ্দ পেয়েছে টেলিটক। প্রতিষ্ঠানটি তরঙ্গ বরাদ্দ পেতে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসিতে আবেদন করলে ২৫৪তম কমিশন বৈঠকে টেলিটকের অনুকূলে ৩ দশমিক ৫ গিগাহার্জ ব্যান্ডে (৩৩৪০-৩৪০০ মেগাহার্জ) ৬০ মেগাহার্জ তরঙ্গ বরাদ্দ দেওয়া হয়।

/এপিএইচ/এমওএফ/
সম্পর্কিত
‘সারাদেশে একই দামে প্রযুক্তি পণ্য বিক্রির উদ্যোগ নেবো’
‘সারাদেশে একই দামে প্রযুক্তি পণ্য বিক্রির উদ্যোগ নেবো’
পরিবর্তনের যে পাঁচ পূর্বাভাস দিলো টেলিনর
পরিবর্তনের যে পাঁচ পূর্বাভাস দিলো টেলিনর
আইএসপিগুলো কি বেঁধে দেওয়া সময়ে সারাদেশে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছাতে পারবে?
আইএসপিগুলো কি বেঁধে দেওয়া সময়ে সারাদেশে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছাতে পারবে?
ই-কমার্সে আসছে ইউনিক বিজনেস আইডি, ফেসবুক বিজনেসেরও নিবন্ধন লাগবে
ই-কমার্সে আসছে ইউনিক বিজনেস আইডি, ফেসবুক বিজনেসেরও নিবন্ধন লাগবে

অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রীর উইচ্যাট আইডি ‘ডাউন’

আপডেট : ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২০:৩০

অস্ট্রেলিয়া অভিযোগ করেছে উইচ্যাট তাদের প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের উইচ্যাট আইডি মুছে ফেলেছে এবং অ্যাকাউন্টে প্রবেশের চেষ্টা করলে তার ফলোয়ারদের চীনা অস্ট্রেলীয়দের একটি ওয়েবসাইটে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ওই ওয়েবসাইটে চীনা অস্ট্রেলীয়দের তথ্য দেখাচ্ছে। তথ্যটি প্রথম নিশ্চিত করেন অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টারি জয়েন্ট কমিটি অন ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের প্রধান জেমস পিটারসন।  তিনি জানান, মরিসনের অ্যাকাউন্ট নিয়ে নেওয়া হয়েছে এবং তা ভিন্নভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। আবার তার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে বলেও একটি সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানান।

সিএনএন জানায়, পিটারসন ও মরিসন উভয়েই লিবারেল পার্টির সদস্য। উইচ্যাট চীনের সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাসেজিং অ্যাপ। ২০২০ সালে এর মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারী ছিল ১২০ কোটি। চীন ছাড়াও চীনা অভিবাসীদের কাছেও এটি বেশ জনপ্রিয়। মরিসনের ফলোয়ারের সংখ্যা ছিল ৭৬ হাজার।  উইচ্যাট দিয়ে তিনি মূলত চীনা অস্ট্রেলীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ করতেন।

উইচ্যাটের মূল প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট জানায়, তারা অ্যাকাউন্টটি হ্যাকের কোনও প্রমাণ পায়নি তবে অ্যাকাউন্টটির মালিকানা নিয়ে বিতর্ক আছে। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, অ্যাকাউন্টটি মূলত একজন চীনা নাগরিকের এবং সেজন্যই তাকে অ্যাকাউন্টটি ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সিএনএন জানায়, উইচ্যাট ইতোপূর্বেও সমালোচিত হয়েছে।  ২০২০ সালে এটি যুক্তরাষ্ট্রে নিষিদ্ধ হয় তথ্য পাচার হতে পারে এমন আশঙ্কায়। পরে উইচ্যাট জানায়, তাদের চায়নিজ সংস্করণ এবং আন্তর্জাতিক সংস্করণ দুটো সম্পূর্ণই আলাদা। তারা আরও জানায়, তথ্য পাচার হওয়ার কোনও কারণ নেই কেননা তারা খুব কঠিনভাবেই এর আইন-কানুন মেনে চলে।

 

/এইচএএইচ/এএ/
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
‘সারাদেশে একই দামে প্রযুক্তি পণ্য বিক্রির উদ্যোগ নেবো’
‘সারাদেশে একই দামে প্রযুক্তি পণ্য বিক্রির উদ্যোগ নেবো’
পরিবর্তনের যে পাঁচ পূর্বাভাস দিলো টেলিনর
পরিবর্তনের যে পাঁচ পূর্বাভাস দিলো টেলিনর
আইএসপিগুলো কি বেঁধে দেওয়া সময়ে সারাদেশে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছাতে পারবে?
আইএসপিগুলো কি বেঁধে দেওয়া সময়ে সারাদেশে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছাতে পারবে?
ই-কমার্সে আসছে ইউনিক বিজনেস আইডি, ফেসবুক বিজনেসেরও নিবন্ধন লাগবে
ই-কমার্সে আসছে ইউনিক বিজনেস আইডি, ফেসবুক বিজনেসেরও নিবন্ধন লাগবে
দেশে তৈরি হলো আড়াই কোটিরও বেশি মোবাইল ফোন
দেশে তৈরি হলো আড়াই কোটিরও বেশি মোবাইল ফোন
© 2022 Bangla Tribune