Vision  ad on bangla Tribune

আমাদের কর্মসংস্কৃতি

সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা১১:৫৬, মার্চ ১৬, ২০১৬

সৈয়দ ইশতিয়াক রেজাহ্যাকিং করে বা না করে বাংলাদেশ ব্যাংকের টাকা লুট, হঠাৎ করেই ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কার্গো বিমান অবতরণে যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা এবং জনশক্তি রফতানির বিষয়ে মালয়েশিয়ার পিঠটান। তিনটি ঘটনাই স্ব-স্ব ক্ষেত্রে ব্যবস্থাপনার ব্যর্থতা। বাংলাদেশ ব্যাংক ড. আতিউর রহমান পদত্যাগ করেছেন, তবে একটু দেরীতেই করেছেন। বাকি ঘটনাগুলোর জন্য দায় কে নিবে জানা নেই। কেউ হয়তো নিবেওনা। হয়তোবা ষড়যন্ত্র তত্ত্বও উপস্থাপিত হবে। ষড়যন্ত্র হয়তো আছেও। কিন্তু সেটা থাকলেও বলতে হবে যে ব্যবস্থাপনার ব্যর্থতা আছে। এসবকিছুর একটাই বার্তা আমার কাছে মনে হয়, আর তা হলো আমাদের কর্মসংস্কৃতিতে বড় সংকট আছে।
একটা সাধারণ ধারণা হলো আমাদের সরকারি অফিসে কেউ কাজ করে না। কিংবা করলেও গুণগত মানের কাজ খুব কম। এসব ধারণা অহেতুক নয়। কিন্তু সম্পূর্ণও নয়। কর্মসংস্কৃতি সব জায়গায় সমান নয়। আবার কর্মসংস্কৃতি খারাপ হওয়ার দায় সব ক্ষেত্রে কেবল কর্মীদের নয়। রাজনীতিরও যোগ আছে অনেক ক্ষেত্রে।
এই সংস্কৃতিটা এমন যে, এখানে খুব কম কর্মীই অফিস বা প্রতিষ্ঠানকে নিজের মনে কাজ করেন। আমরা কাজ করি reactive mood-এ , pro-active fashion-এ নয়, অর্থাৎ আমাদের কাজের ধরন প্রতিক্রিয়া ধরনের, আগাম সক্রিয়তা থাকে কম কাজে কর্মে। এই তিনটি ঘটনা বিশ্লেষণ করলে দেখি প্রতিটি স্তরে আমাদের কাজের ধরন reactive, pro-active নয়।
কাজ না করার অভ্যাস থেকে বের হতে সরকারি অফিস-আদালতে কর্মসংস্কৃতি ফেরানোর তাগিদ মাঝেমধ্যে উঠে আসে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক নেতাদের বক্তৃতা বিবৃতিতে। কিন্তু মৌলিক জায়গায় গলদ আছে এই চিন্তার। ভালো কর্মসংস্কৃতি মানে কি দশটা পাঁচটা অফিসে হাজির থাকা? ঠিক তা নয়। কর্মকর্তা, কর্মচারিরা কাজটা কতটুকু করেন, কতটুকু মন দিয়ে করেন, কতটুকু উদ্যোগ নিয়ে করেন প্রশ্ন সেখানে।

যেকোনও মানুষকে জিজ্ঞেস করুন, যার সরকারি অফিসে যাওয়ার অভিজ্ঞতা আছে শুনবেন প্রায় একই ধরনের সব গল্প। সরকারি অফিসে আমাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বেশ খারাপ। যে ধারণাগুলো পাওয়া যায় মানুষের সঙ্গে কথা বলে, সেসব অনেকটা এমন- সরকারি কর্মীদের একটা বড় অংশ কাজে খুব অবহেলা করেন, সিটে থাকেন না, অফিসে ব্যাগ রেখে বেরিয়ে যান ব্যক্তিগত কাজে, দীর্ঘদিন ফাইল আটকে রাখেন, কোনও প্রশ্নের সম্পূর্ণ উত্তর দেন না, প্রচুর ভুল করেন আর টাকা ছাড়া কাজ করেন না।

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। বাংলা ট্রিবিউন-এর সম্পাদকীয় নীতি/মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই এখানে প্রকাশিত লেখার জন্য বাংলা ট্রিবিউন কর্তৃপক্ষ লেখকের কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনও ধরনের কোনও দায় নেবে না।

লাইভ

টপ