X
শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১, ৮ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

সচিবালয় স্থানান্তর হচ্ছে না

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০১৮, ২১:১৩





সচিবালয় প্রশাসনের প্রাণকেন্দ্র বাংলাদেশ সচিবালয়কে একসময় বর্তমান জায়গা থেকে সরিয়ে শেরেবাংলা নগরে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল সরকার। নানা কারণে আটকে গেছে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া। গণপূর্ত ও গৃহায়ন মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে একটি প্রকল্প অনুমোদনের জন্য জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) উপস্থাপন করা হলেও তা ফেরত যায়। পরবর্তীতে এটি বাস্তবায়ন না হওয়ায় বাংলাদেশ সচিবালয়কে নতুন শহর পূর্বাচলে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে সরকারের নীতিনির্ধারকরা চিন্তাভাবনা শুরু করেছিলেন। কিন্তু এ ভাবনাও আর আলোর মুখ দেখেনি। তাই আপাতত রমনা থেকে সচিবালয় সরানোর চিন্তা বাদ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রমনা থেকে সচিবালয় সরিয়ে নিতে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ২০১৫ সালের অক্টোবরে প্রস্তাব তোলা হয়। তবে লুই আই কানের মূল নকশাসহ প্রস্তাব উপস্থাপন না করায় একনেক তখন প্রস্তাবটি ফেরত পাঠিয়ে দেয়। পরে এ প্রসঙ্গটি আর আলোচনার মুখ দেখেনি।
রমনায় সচিবালয় সম্প্রসারণের জায়গা না থাকায় শেরেবাংলা নগরে বর্তমান আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার মাঠ ও চন্দ্রিমা উদ্যানের কিছু জায়গা নিয়ে ৩২ একর জমির ওপর নতুন জাতীয় সচিবালয় নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করেছিল সরকার।
প্রস্তাবিত প্রকল্পে চারটি ব্লকে ভাগ করে জাতীয় সচিবালয় কমপ্লেক্স নির্মাণের কথা বলা হয়। এরমধ্যে দুটি বড় ব্লকে ৩২টি বড় মন্ত্রণালয় এবং অন্য দুটি ব্লকে ১৬টি ছোট মন্ত্রণালয়কে স্থানান্তরের পরিকল্পনা ছিল সরকারের। প্রস্তাবিত সচিবালয়ের মূল ভবনের আয়তন ধরা হয়েছিল প্রায় ২ লাখ ৫৩ হাজার ৩১০ বর্গমিটার। এরসঙ্গে ৫৪ হাজার ৫০৫ বর্গমিটার অ্যাসোসিয়েটস ভবন, ৫ হাজার ৮৪৩ বর্গমিটার অডিটোরিয়াম ও হলরুম, ২৪ হাজার ৭২৯ বর্গমিটার মসজিদ আর্কেড ও সমবায় ভবন, এক হাজার ৩৮ বর্গমিটার এন্ট্রান্স প্লাজা, ৫ হাজার ২০০ বর্গমিটার চিলার রুম, ৬৮ হাজার ২৩৪ বর্গমিটারের সড়ক এবং এক হাজার ৭৭২ মিটার সীমানা প্রাচীর রাখার পরিকল্পনা ছিল।
গণপূর্ত অধিদফতরের মাধ্যমে শেরেবাংলা নগরের নতুন সচিবালয় দুই হাজার ২১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০১৮ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন করার কথা বলা হয়েছিল। তবে এই প্রস্তাবটি ২০১৫ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে উপস্থাপন করা হলে তা অনুমোদন হয়নি। ওই সভায় প্রধানমন্ত্রী লুই আই কানের মূল নকশা দেখে পরিকল্পনা গ্রহণের কথা বলেছিলেন। বিদ্যমান মূল নকশা অনুযায়ী কোথাও কোনও বিচ্যুতি হচ্ছে কীনা, তা দেখার জন্য বলেছিলেন। লুই কানের মূল নকশা দেখার পর প্রকল্পটি ফের একনেকে উপস্থাপনের পরামর্শ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী।
এরপর আর এ বিষয়ে কোনও প্রস্তাব একনেকে ওঠানো হয়নি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শেরেবাংলা নগরে ৩২ একর জমির ওপর নতুন সচিবালয় নির্মাণের এ প্রস্তাবটি ২০১৫ সালের ৬ জুন পরিকল্পনা কমিশনের প্রাক-মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভায় তোলা হয়। তখন সমীক্ষা ছাড়াই প্রকল্পের প্রস্তাব তৈরি করায় আপত্তি জানায় পরিকল্পনা কমিশন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় জুলাই মাসে প্রকল্পটি এগিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হয়। তারপরই প্রকল্পের প্রস্তাবনাটি একনেকে তোলা হয়।
প্রসঙ্গত, শেরেবাংলা নগরে সচিবালয় স্থাপনের জন্য ১৯৭৪ সালে ১০টি ব্লকে চারটি ৯ তলা ভবনসহ অফিস, ব্যাংক, অডিটরিয়াম, মসজিদ, কার পার্কিং সংবলিত জাতীয় সচিবালয় নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এ জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ডেভিড উইজডম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে চুক্তিও হয়। কিন্তু পরবর্তীতে প্রকল্পটি নিয়ে আর কোনও অগ্রগতি হয়নি। এর প্রায় ২০ বছর পর ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর আবারও উদ্যোগ নেওয়া হয়।
এদিকে, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্রতিবছরই এ প্রকল্পের জন্য এডিপিতে (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তবে কোনও অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয় না। সরকারের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, সচিবালয় আপাতত শেরেবাংলা নগরে সরিয়ে নেওয়ার কোনও সম্ভাবনা নেই।
জানা গেছে, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত শুরু থেকেই সচিবালয় রমনা থেকে শেরেবাংলা নগরে স্থানান্তরের বিরোধিতা করেছেন। তার যুক্তি ছিল, সচিবালয় যদি এখন থেকে সরাতেই হয়, তাহলে তা মাত্র আট কিলোমিটার দূরে শেরেবাংলা নগরে কেন? এটি সরাতে হবে আরও দূরে। রাজধানী ঢাকা একদিকে ঝিলমিল ও অন্যদিকে পূর্বাচলের দিকে সম্প্রসারিত হচ্ছে। সেই বিবেচনায় নতুন পরিকল্পনায় গড়ে ওঠা নতুন শহর পূর্বাচলের দিকে বাংলাদেশের প্রশাসনিক সদর দফতর সরানোর পক্ষে ছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানে সচিবালয় নির্মাণের মতো পরিকল্পনা মাফিক এত বেশি জায়গা পাওয়া যায়নি। ফলে এ পরিকল্পনাও বেশিদূর এগোতে পারেনি।
এদিকে, সচিবালয়ের ভেতরে ছয় এবং সাত নম্বর ভবনের মাঝখানে ‘অর্থভবন’ নামে একটি ২০ তলা ভবন তৈরি হচ্ছে। পুরো ভবনটি এখনও ব্যবহার উপযোগী হয়নি। এই ভবনের কয়েকটি ফ্লোরে অর্থ বিভাগের কয়েকটি উইং স্থানান্তর করা হয়েছে।
বর্তমান সচিবালয় শেরেবাংলা নগরে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল জানান, প্রধানমন্ত্রী এ প্রসঙ্গে মূল নকশাটি দেখতে বলেছিলেন। মন্ত্রী বলেন, ‘মার্কিন স্থপতি লুই কান ১৯৬২ সালে ঢাকায় জাতীয় সংসদ ভবন কমপ্লেক্স ও আশপাশের এলাকা নিয়ে যে নকশা করেছিলেন, সেটি এখন যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে।’ পরে আর বিষয়টি তেমন এগোয়নি বলেও জানান তিনি।
গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘লুই আই কানের মূল নকশা ফিরিয়ে আনার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে। যেহেতু একনেকের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ওই নকশার কথা বলেছেন, আমরা সেই চেষ্টাই করছি। তবে আপাতত সচিবালয় রমনা থেকে স্থানান্তরের কোনও প্রকল্প আমাদের নেই।’

/এফএস/এপিএইচ/চেক-এমওএফ/

সম্পর্কিত

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

করোনায় মারা গেলো আরও ১৬৬ জন

করোনায় মারা গেলো আরও ১৬৬ জন

রাশিয়া গেলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া গেলেন নৌবাহিনী প্রধান

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২০:৩০

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের জন্য ‘হাঁড়িভাঙা’ আম শুভেচ্ছার বিশেষ নিদর্শন হিসেবে পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ইসলামাবাদে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা উপহার এক হাজার কেজি 'হাঁড়িভাঙা' আম কোরবানির ঈদের দিনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের রাষ্ট্রাচার কর্মকর্তার কাছে বাংলাদেশ হাইকমিশন, ইসলামাবাদের পক্ষ থেকে হস্তান্তর করা হয়।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর এ শুভেচ্ছা উপহার পাকিস্তানের পক্ষ থেকে ধন্যবাদের সঙ্গে গৃহীত হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই উপহার ভ্রাতৃপ্রতিম দুই দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে একটি বিশেষ নজির হিসেবে বিবেচিত হবে।

এর আগে ভারতসহ অন্যান্য দেশে আম উপহার পাঠান প্রধানমন্ত্রী। ইসলামাবাদে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তার হাতে আমের প্যাকেট তুলে দিচ্ছেন দূতাবাসের কর্মকর্তা

/এসএসজেড/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘ঈদে মায়ের কাছে আমরা কোনও আবদার করিনি’

‘ঈদে মায়ের কাছে আমরা কোনও আবদার করিনি’

ভিডিও বার্তায় দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা

ভিডিও বার্তায় দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা

‘সরকারি মাল দরিয়া মে ঢাল’ প্রবণতা এখন নেই: প্রধানমন্ত্রী

‘সরকারি মাল দরিয়া মে ঢাল’ প্রবণতা এখন নেই: প্রধানমন্ত্রী

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২১:১১

জাপান সরকারের উপহারের দুই লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা দেশে আসছে। শনিবার (২৪ জুলাই) বেলা ৩টা ১৫ মিনিটে টিকা বহনকারী ক্যাথে প্যাসিফিকের একটি ফ্লাইট হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। টিকার বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের মাধ্যমে বাংলাদেশকে এ টিকা দিচ্ছে জাপান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকালে টিকা গ্রহণকালে বিমানবন্দরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকিসহ দুই মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। টিকা গ্রহণ শেষে বিমানবন্দরে সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা আছে বলেও জানা গেছে।

উল্লেখ্য, জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিৎসু মোতেগি ১৫টি দেশের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার এক কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা কোভ্যাক্সের আওতায় দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। জাপানের উপহার পাবে এমন দেশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশের নাম। তালিকা অনুযায়ী অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২৯ লাখ টিকা পাবে বাংলাদেশ। এরই প্রথম চালান আসছে আগামীকাল।

দেশে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় তৈরি কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩০ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের বেশি মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে সংকট। এদের অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকারই দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। কেননা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও দুই কোম্পানির দুই ডোজের টিকা গ্রহণের কোনও সিদ্ধান্ত দেয়নি।

 

/এসও/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

করোনায় মারা গেলো আরও ১৬৬ জন

করোনায় মারা গেলো আরও ১৬৬ জন

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

করোনায় মারা গেলো আরও ১৬৬ জন

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:৫০

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৬৬ জন মারা গেছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। এ নিয়ে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত দেশে করোনায় মারা গেলেন ১৮ হাজার ৮৫১ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ছয় হাজার ৩৬৪ জন। এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত হলেন ১১ লাখ ৪৬ হাজার ৫৬৪ জন। একই সময়ে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন নয় লাখ ছয় জন। এদের নিয়ে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হলেন নয় লাখ ৭৮ হাজার ৬১৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা রোগী শনাক্তের হার ৩১ দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ আর এখন পর্যন্ত ১৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ আর মৃত্যুর হার এক দশমিক ৬৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১৯ হাজার ৭০৫টি, আর পরীক্ষা হয়েছে ২০ হাজার ৪৯৩টি। দেশে এখন পর্যন্ত ৭৩ লাখ ৯৬ হাজার ৮৬৭টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে উল্লেখ করে অধিদফতর জানায়, এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হয়েছে ৫৪ লাখ ৩৬ হাজার ২০৭টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৯ লাখ ৬০ হাজার ৬৬০টি।

মারা যাওয়া ১৬৬ জনের মধ্যে পুরুষ ৯৫ জন আর নারী ৭১ জন। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট পুরুষ মারা গেছেন ১২ হাজার ৯৭১ জন আর নারী পাঁচ হাজার ৮৮০ জন।

১৬৬ জনের মধ্যে ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে আছেন তিন জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১০ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ২৭ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৪৬ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৩২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ২৪ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১৫ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে সাত জন আর ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে  ২০ জন।

মারা যাওয়া ১৬৬ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৬০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৩৩ জন, রাজশাহী বিভাগের সাত জন, খুলনা বিভাগের ৩৩ জন, বরিশাল বিভাগের ১০ জন, সিলেট বিভাগের আট জন, রংপুর বিভাগের ১২ জন আর ময়মনসিংহ বিভাগের আছেন তিন জন।

১৬৬ জনের মধ্যে ১২৩ জন সরকারি হাসপাতালে, ৩৯ জন বেসরকারি হাসপাতালে, আর বাড়িতে মারা গেছেন চার জন।

/জেএ/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

সরকারি হাসপাতালে ফাঁকা আইসিইউ বেড কমে ৪৫

সরকারি হাসপাতালে ফাঁকা আইসিইউ বেড কমে ৪৫

ছুটিতে টেস্ট কম, তবে শনাক্তের হার ৩০ শতাংশের বেশি

ছুটিতে টেস্ট কম, তবে শনাক্তের হার ৩০ শতাংশের বেশি

আজ থেকে ৪ দিন বন্ধ থাকবে টিকা কার্যক্রম

আজ থেকে ৪ দিন বন্ধ থাকবে টিকা কার্যক্রম

রাশিয়া গেলেন নৌবাহিনী প্রধান

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৭:৪৯

নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল এম শাহীন ইকবাল রাষ্ট্রীয় সফরে রাশিয়া গেছেন। শুক্রবার (২৩ জুলাই) তিনি রাশিয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, রাশিয়ার নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিকলাই আনাতোলেভিচ ইয়েভমেনভের আমন্ত্রণে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল এম শাহীন ইকবাল শুক্রবার রাশিয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন। এসময় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে সহকারী নৌপ্রধান (অপারেশন্স) এবং নৌ প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে নৌপ্রধানকে বিদায় জানান।

রাশিয়া সফরের সময় নৌপ্রধান আগামী ২৫ জুলাই দেশটির ৫ম মেইন নেভাল প্যারেড অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন। এসময় নৌপ্রধান ওই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশ থেকে আগত নৌবাহিনী প্রধান ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। পরে তিনি রাশিয়ার নৌসদর পরিদর্শনসহ দেশটির নৌবাহিনী প্রধান (Commander-in-Chief) এডমিরাল নিকলাই আনাতোলেভিচ ইয়েভমেনভ এবং উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এছাড়া নৌপ্রধান দেশটির নৌজাদুঘর ও ঐতিহাসিক স্থাপনাসমূহ পরিদর্শন করবেন। রাষ্ট্রীয় সফর শেষে তিনি আগামী ৩০ জুলাই দেশে ফিরে আসবেন।

/জেইউ/এমএস/

সম্পর্কিত

নৌ প্রধানের সঙ্গে সেনাবাহিনী প্রধানের সৌজন্য সাক্ষাৎ

নৌ প্রধানের সঙ্গে সেনাবাহিনী প্রধানের সৌজন্য সাক্ষাৎ

আন্তর্জাতিক জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী দিবস কাল

আন্তর্জাতিক জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী দিবস কাল

ইয়াস মোকাবিলায় প্রস্তুত নৌবাহিনীর ১৮ যুদ্ধ জাহাজ

ইয়াস মোকাবিলায় প্রস্তুত নৌবাহিনীর ১৮ যুদ্ধ জাহাজ

কঙ্গোয় মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের সফল অভিযান

কঙ্গোয় মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের সফল অভিযান

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১১:০০

ঈদের ছুটিতে করোনার নমুনা পরীক্ষা নেমে এসেছে এক চতুর্থাংশে। কমেছে রোগী শনাক্তের সংখ্যাও। তবে কমেনি শনাক্তের হার। গত ২৪ ঘণ্টায় (২২ জুলাই সকাল ৮টা) দেশে করোনার নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১০ হাজার ৮৯৯টি। পরীক্ষা হয়েছে ১১ হাজার ৪৮৬টি। এর মধ্যে রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬৭৯ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ১৯ শতাংশ। যা গত এক বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। আর দেড় বছরে এটা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। এর আগে গত বছরের ১২ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদফতর একদিনে সর্বোচ্চ রোগী শনাক্তের হার ৩৩ দশমিক ০৪ বলে জানিয়েছিল।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা যায়, বুধবার (২১ জুলাই) ঈদের দিন নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২৪ হাজার ৯৭৯টি। শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৬১৪ জন। শনাক্তের হার ছিল ৩০ দশমিক ৪৮ শতাংশ। এর আগের দিন (২০ জুলাই) ৩৯ হাজার ৫১০টি নমুনা পরীক্ষায় ১১ হাজার ৫৭৯ জনের শনাক্ত হওয়ার কথা জানায় অধিদফতর। হার ছিল ২৯ দশমিক ৩১ শতাংশ।

ঈদের ছুটির আগের ও পরের দিনের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, দুদিনে দেশের ৬৩৯টি নমুনা পরীক্ষাগারে পরীক্ষার হার কমেছে প্রায় এক চতুর্থাংশ।

করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের মধ্যেই ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিধিনিষেধ শিথিল করেছিল সরকার। যদিও আজ শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে কঠোর বিধিনিষেধ ফের আরোপ করা হয়েছে, চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত। তবে ঈদের সময় বিধিনিষেধ শিথিলে কোরবানির পশুর হাট, শপিং মল, মার্কেট ও অন্যান্য জনসমাগমস্থলে স্বাস্থ্যবিধি তেমন মানা হয়নি। অনেকেই ঢাকা থেকে বাস, ট্রাক, লঞ্চে গাদাগাদি করেই ঈদ করতে ফিরে গেছেন গ্রামে। সবমিলিয়ে ঈদের পর এবার করোনা সংক্রমণ কোথায় ঠেকবে এবং সে পরিস্থিতিতে দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা কতটুকু সামাল দিতে পারবে তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন জনস্বাস্থ্যবিদরা।

এদিকে, ঈদের ছুটির তিনদিনেও রাজধানীর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোতে ফাঁকা আইসিইউ কমেছে ক্রমান্বয়ে। ২০ জুলাই রাজধানীর করোনা ডেডিকেটেড সরকারি হাসপাতালগুলোতে ৪৮টি আইসিইউ ফাঁকা ছিল বলে জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। ২১ জুলাই সেটা কমে দাঁড়ায় ৪৫-এ। ২২ জুলাই অধিদফতর জানাচ্ছে, ঢাকার ১৬ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা রয়েছে মাত্র ৪১টি।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্যানুযায়ী, ঢাকার ১৬ হাসপাতালের তিন হাজার ৭৫৫ বেডের মধ্যে ফাঁকা রয়েছে এক হাজার ৪১২টি। বেসরকারিসহ সব মিলিয়ে পাঁচ হাজার ৭১৭ বেডের মধ্যে ফাঁকা রয়েছে দুই হাজার ৭২টি।

রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সাধারণ শয্যা ২৭৫টি। অতিরিক্ত রোগী আছেন ৪৪ জন। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সাধারণ শয্যা ৭০৫টি, ফাঁকা রয়েছে ৬৮টি। বেশিরভাগ বড় হাসপাতালেই ফাঁকা শয্যা কমে আসছে।

আইসিইউ পাওয়াকে সোনার হরিণ উল্লেখ করে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলোর কর্তৃপক্ষ বলছে, আইসিইউ নেই, সংকট দেখা দিচ্ছে সাধারণ শয্যারও। এ অবস্থা চলতে থাকলে হাসপাতালগুলো কুলাতে পারবে না।

ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে
‘অবস্থা খুবই ভয়াবহ হবে’ এমন মন্তব্য করেছেন কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সদস্য ইকবাল আর্সলান। ‘আশঙ্কা হচ্ছে, করোনার সঙ্গে যে এই শিথিল লকডাউন- এর ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে কিংবা তার পরের সপ্তাহে। এভাবে যদি সংক্রমণ বাড়তে থাকে তবে সেটা সামাল দেওয়া যাবে না।’

তিনি বলেন, তবে এবারের মূল সমস্যা হচ্ছে, সংক্রমণ গ্রামেও ছড়িয়ে পড়েছে। যেখানে চিকিৎসা ব্যবস্থা অপ্রতুল। কোথাও আইসিইউ বা ন্যাজাল ক্যানুলা দেখা যায় না।

শেষ মুহূর্তে জেলা পর্যায়ের হাসপাতালে আসা রোগীরা চিকিৎসার বাইরে চলে যাচ্ছেন জানিয়ে অধ্যাপক আর্সলান বলেন, ‘যখন অক্সিজেন স্যাচুরেশন খুব কম নিয়ে আসছে, তখন আর কিছু করার থাকে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘যে হারে সংক্রমণ হচ্ছে তা চলতে থাকলে আইসিইউ, হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলাসহ অন্য সব চিকিৎসা দিয়েও কাজ হবে না।’

রাজধানীর গ্রিনরোডের একটি বেসরকারি হাসপাতালের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চিকিৎসক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘তার হাসপাতালে কোনও বেড ফাঁকা নেই। রোগীদের ফেরত পাঠাতে বাধ্য হচ্ছে কর্তৃপক্ষ।’

তিনি বলেন, ‘শঙ্কায় রয়েছি, গতবারের মতো এবারও দেখা যাবে বেড না পেয়ে অ্যাম্বুলেন্সে রোগী মারা যাচ্ছে।’

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সাধারণ শয্যার খুব সংকট চলছে। আইসিইউ পাওয়া সোনার হরিণ। কেউ সুস্থ না হলে অথবা মারা না গেলে আইসিইউ ফাঁকা হচ্ছে না।’

‘বেডের অভাবে গাইনি ও সার্জারি বিভাগের বেডগুলো করোনা ইউনিটে ব্যবহার করা হচ্ছে। এ অবস্থাও ভালো নয়। সংকট হবে সামনে।’ বলেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক।

/জেএ/এফএ/

সম্পর্কিত

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

সর্বশেষ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রিসোর্টে ঘুরতে গিয়ে জরিমানা গুনলেন ২৫ জন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রিসোর্টে ঘুরতে গিয়ে জরিমানা গুনলেন ২৫ জন

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

হেরাতে তালেবান ঠেকানোর লড়াইয়ের নেতৃত্বে সাবেক মুজাহিদিন কমান্ডার

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

করোনায় মারা গেলো আরও ১৬৬ জন

করোনায় মারা গেলো আরও ১৬৬ জন

রাশিয়া গেলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া গেলেন নৌবাহিনী প্রধান

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

করোনায় আরও ১৮৭ জনের মৃত্যু

করোনায় আরও ১৮৭ জনের মৃত্যু

আজও মানুষ ঢাকা ছাড়ছে

আজও মানুষ ঢাকা ছাড়ছে

© 2021 Bangla Tribune