X
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বাসের ধাক্কায় ইজিবাইক চালকসহ ৭ জন নিহত

আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:০৩

সংঘর্ষে দুমড়ে যায় ইজিবাইক পঞ্চগড় সদরের মাগুরমারী এলাকায় বাসের ধাক্কায় একটি ইজিবাইকের চালকসহ ৭ জন নিহত হয়েছেন। গুরুতর আহত একজনকে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (৮ নভেম্বর) বেলা দেড়টার দিকে পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ভজনপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল কাদের জিলানী এ তথ্য জানান।

নিহতদের লাশ নিহতরা হলেন—পঞ্চগড় সদর উপজেলার চেকরমারি গ্রামের ইজিবাইক চালক রফিক (২৮), সদর উপজেলার বদিনাজোত গ্রামের আকবর আলী (৭২), তার স্ত্রী নুরিমা (৬৫), তেঁতুলিয়া উপজেলার মাঝিপাড়া গ্রামের লাবু ইসলাম (২৫), তার স্ত্রী নববধূ মুক্তি (১৯), সদর উপজেলার রায়পাড়া গ্রামের মাকুদ হোসেন (৪৩) ও সাহেবজোত গ্রামের নারগিস বানু (৪২)। এদের মধ্যে লাবু ইসলাম ও মুক্তির মাত্র ৪৫ দিন আগে বিয়ে হয়েছে।

দুমড়ে যাওয়া ইজিবাইক প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুরে কাজী পরিবহনের একটি বাস তেঁতুলিয়ার দিকে যাচ্ছিল। এ সময় বিপরীত দিক আসা একটি ইজিবাইকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় বাসটির। এতে ইজিবাইকটি দুমড়েমুচড়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই মারা যান পাঁচ জন, হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজন এবং হাসপাতালে আরও একজনের মৃত্যু হয়। পঞ্চগড় ফায়ার সার্ভিস লাশগুলো উদ্ধার করেছে।

মাগুরমারী চৌরাস্তা এলাকার বাসিন্দা ও দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সাইফুল ইসলাম জানান, একটি ছাগলকে বাঁচাতে গিয়ে বাসটি বাম পাশ থেকে ডান দিকে মোড় নেয়। আর তখনই বাসটি ইজিবাইকটিকে চাপা দেয়। 

দুর্ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীকে শান্ত করতে পুলিশ পঞ্চগড় ফয়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিরঞ্জন সরকার জানান, খবর পেয়ে তিনিসহ ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে যান। তিনি সেখান থেকে পাঁচজনের লাশ উদ্ধার করেন; এদের মধ্যে দু’জন নারী ও তিনজন পুরুষ। 

দুমড়ে যাওয়া ইজিবাইক পুুলিশ কর্মকর্তা আব্দুল কাদের জিলানী বলেন, ‘বাস ও ইজিবাইকের সংঘর্ষে ইজিবাইক চালকসহ ৭ জন নিহত হয়েছেন।’ 

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী জানান, মিনিবাসটিকে পুলিশ জব্দ করেছে। তবে চালক পালিয়ে গেছে। দুর্ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 

দুর্ঘটনার পর সড়কে এলাকাবাসী এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী হাইওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। ঘটনার পরপরই জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলীসহ ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে গেলে বিক্ষুব্ধ জনতার তোপের মুখে পড়েন। ঘটনার আড়াই ঘণ্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। 

 

 

/এমএএ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৩৬

কক্সবাজারের উখিয়া ও পার্শ্ববর্তী পার্বত্য উপজেলা নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৮ জুলাই) উখিয়া ও ঘুমধুমের বিভিন্ন স্থানে মৃত্যুর ঘটনাগুলো ঘটে।

উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গফুর উদ্দিন চৌধুরী জানান, বুধবার সকাল ১০টার দিকে আবদুর রহমান (৪৫) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভারী বৃষ্টিতে পাহাড়ি ঢলে বন্যার সৃষ্টি হলে পালংখালী ইউনিয়নের চুয়াখোলা খাল পার হতে গিয়ে এ যুবক নিখোঁজ হন।

উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হেলাল উদ্দিন জানান, উখিয়ার মাছকারিয়া খাল থেকে আলী আকবর (৪০) নামের একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বেলা ১২টার দিকে খালটিতে তার লাশ দেখতে পাওয়া যায়। নিহত আলী আকবর উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ধইল্যাঘোনা এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে।

একই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী জানান, উখিয়া উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। আজ সকালে উপজেলার দুছরী খাল সাঁতরে পার হওয়ার সময় মালিয়ারকুল এলাকার মো. রুবেল (২২) নিখোঁজ হয়। পরে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে কোটবাজারের পাশে রুমখা কুলালপাড়া (কোয়ার পাড়া) এলাকায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

এদিকে, নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নেও পানিতে ডুবে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। বন্যার ঢলের সময় নদী পার হতে গিয়ে ঘুমধুম ইউনিয়নের শীলপাড়া গ্রামের সুবাস বড়ুয়ার ছেলে আশীষ বড়ুয়া (১৬) পানিতে ভেসে মারা যায়। এদিকে পানি থেকে আবদুর রহিম (২৮) নামের এক রোহিঙ্গার লাশও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:০৫

কুড়িগ্রামের উলিপুরে ‘অপহরণের’ প্রায় সাড়ে নয় মাস পর অপহৃত এক স্কুলছাত্রীকে (১৫) উদ্ধার করেছে পুলিশ। নীলফামারী সদরের পোস্ট অফিস মোড় এলাকা থেকে ছাত্রীকে উদ্ধারের পাশাপাশি অভিযুক্ত রায়হান মিয়া নামে এক যুবককেও গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে তাদের কুড়িগ্রামে নিয়ে আসা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উলিপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল বাতেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও অপহৃত ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ১৬ অক্টোবর উপজেলার বজরা ইউনিয়নের কালপানি বজরা এলাকা থেকে কিশোরীকে ‘অপহরণ’ করে নিয়ে যায় একই এলাকার এমদাদুল হকের ছেলে রায়হান মিয়া (৩২)। সন্ধান না পেয়ে কিশোরীর বাবা গত ১২ নভেম্বর উলিপুর থানায় মামলা করেন। 

রায়হান পলাতক থাকলেও এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে রায়হানের বাবা এমদাদুল ও ভাই আকরাম হোসেনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ। আসামিরা জামিনে বেরিয়ে এলেও রায়হান ও কিশোরীকে উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছিল না। প্রায় সাড়ে নয় মাস পর প্রযুক্তির সহায়তায় রায়হানের মোবাইল নম্বর ট্র্যাকিং করে অবস্থান নিশ্চিত হয় পুলিশ। মঙ্গলবার নীলফামারীর পোস্ট অফিস মোড় এলাকা থেকে রায়হানকে গ্রেফতার ও কিশোরীকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল বাতেন বলেন, প্রযুক্তির সাহায্যে আমরা তাদের অবস্থান শনাক্ত করতে সক্ষম হই। নীলফামারী সদর থানা পুলিশের সহযোগিতায় রায়হানকে গ্রেফতার ও কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়। বুধবার দুপুরে রায়হানকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় পুলিশ পাহারায় কিশোরীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

রংপুরে একদিনে ১৬ মৃত্যু

রংপুরে একদিনে ১৬ মৃত্যু

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:০০

টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছেন। বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে টাঙ্গাইল-জামালপুর সড়কের উপজেলার বানিয়াজান বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার বানিয়াজান ইউনিয়নের উত্তরপাড়া গ্রামের হেলাল উদ্দিন (৪৫) ও তার স্ত্রী সুন্দরী বেগম (৪০)। ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. চান মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, হেলাল উদ্দিন ও তার স্ত্রী মাছ ধরে বাড়িতে ফিরছিলেন। পরে সড়ক পার হওয়ার সময় জামালপুরগামী কোমল পানীয় ভর্তি একটি কাভার্ডভ্যান তাদের ধাক্কা দেয়। এতে দুইজন ঘটনাস্থলে মারা যান। এ সময় কাভার্ডভ্যানটিও নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কেই উল্টে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

ওসি মো. চান মিয়া বলেন, ঘটনার পরপরই গাড়ির চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে। গাড়িটি সড়ক থেকে সরিয়ে থানায় আনা হয়েছে। এ ঘটনায় কেউ এখনও থানায় অভিযোগ দেয়নি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

যমজ দুই ভাইয়ের সঙ্গে যমজ বোনের বিয়ে

যমজ দুই ভাইয়ের সঙ্গে যমজ বোনের বিয়ে

টিকার ২ ডোজ নেওয়া সিভিল সার্জন করোনায় আক্রান্ত

টিকার ২ ডোজ নেওয়া সিভিল সার্জন করোনায় আক্রান্ত

বন্ধুর বাড়ি বেড়াতে এসে দোকানিকে গলা কেটে হত্যা

বন্ধুর বাড়ি বেড়াতে এসে দোকানিকে গলা কেটে হত্যা

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৭:৫৮

টানা বর্ষণে বরগুনার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এতে লোকালয়ের পাশাপাশি নিমজ্জিত হয়েছে আমনের বীজতলা। ডুবে গেছে অসংখ্য মাছের ঘের। এছাড়া নদীর তীরবর্তী এলাকার ঘরবাড়িতে পানি প্রবেশ করায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন বাসিন্দারা। 

গত ২৪ ঘণ্টায় বরগুনায় ২৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অফিস। বঙ্গোসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় অতি বর্ষণ সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি পরিমাপক মাহতাব হোসেন জানান, অতি বর্ষণে বরগুনার পায়রা, বিষখালী ও বলেশ্বর—এই তিনটি নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে তিন ফুট উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছে। 

এদিকে অতি বর্ষণের সঙ্গে ঝড়ো হাওয়ায় সৃষ্ট ঢেউয়ে জেলার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে উপকূলীয় নদী তীরবর্তী এলাকার লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। বরগুনার ছয় উপজেলার মধ্যে আমতলী, তালতলী, পাথরঘাটা ও বরগুনার সদরের বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। 

ডুবে গেছে অসংখ্য মাছের ঘের

পাথরঘাটা উপজেলার ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন বিষখালী নদী তীরের বাসিন্দা আব্দুস সালাম বলেন, ‘দেওইর (বৃষ্টি) পানতে মোগো বাড়িঘর সব ডুইব্বা যাইতেছে। বাসার মইদ্দে পানি হানছে, এহন ঘরে বন্দি হইয়া পড়ছি মোরা।’ 

বরগুনার বাইনচটকি ফেরিঘাটের খেয়াচালক নাসির মিয়া বলেন, ‘বিষখালী নদীর এই এলাকায় জোয়ারের পানি অনেক বাইড়া গ্যাছে। ফেরির গ্যাংওয়েসহ সংযোগ সড়ক তলাইয়া গ্যাছে। মোরা খেওয়া চালাইন্না বন্দ রাকছি।’

তালতলী উপজেলার বগি এলাকার শাহীন বলেন, ‘পায়রা নদীতে বিশাল ঢেউ শুরু অইছে। জোয়ারের পানিও বাইড়া গ্যাছে। এই রহম যদি পানি বাড়তে থাহে, তয় মোগো এলাকার বেড়িবাঁধ ভাইঙ্গা ঘরবাড়ি তলাইতে বেশি সময় লাগবে না।’

এদিকে গত তিন দিনের টানা ভারী বর্ষণে ফসলের মাঠ প্লাবিত হয়েছে। নিমজ্জিত হয়েছে আমনের বীজতলা। এছাড়া আমনের চাষাবাদও বন্ধ রয়েছে। 

ঘরবাড়িতে পানি প্রবেশ করায় দুর্ভোগে পড়েছেন বাসিন্দারা

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের জেলা কার্যালয়ের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, এবার জেলায় এক লাখ ২২ হাজার ৯৯৪ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে। এসব জমিতে আমন আবাদের জন্য ১৫ হাজার ২৫০ হেক্টর জমিতে বীজতলা করা হয়। কিন্তু প্রবল বর্ষণের কারণে অধিকাংশ এলাকার বীজতলা এখন ডুবে আছে। এতে বীজতলার চারাগুলোতে পচন ধরার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এছাড়া আমনের আবাদের মৌসুমে জমির চাষাবাদও বন্ধ হয়েছে। 

পাথরঘাটার কালমেঘা ইউনিয়নের বাসিন্দা সেলিম মিয়া বলেন, ‘আবাদ করনের লইগ্যা মুই ২০ কাডি ধান বীজতলা বানাইতে খ্যাতে হালাইছিলাম। এহন দেওইর পানিতে সব বীজ পানির তলে। দেওই না কোমলে সব নষ্ট অইয়া যাইবে। হেলে (ফলে) মোগো এইফির (এবার) আর আমন ধান ঘরে ওডবে বইল্যা মনে অয় না।’

তালতলীর নিদ্রা এলাকার এলাকার কৃষক মিজানুর রহমান বলেন, ‘মনে করছিলাম দেওয়ই কোমবে, দিনদিন হ্যা বাড়তেই আছে। মোর জাগাজমির চাষাবাদ সব বন্দ। বীজ তুইল্লা খ্যাতে রুইতে পারমু কি-না কইতে পারি না।’

অধিকাংশ এলাকার বীজতলা ডুবে আছে

অতি বর্ষণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারেন উপকূলীয় বরগুনা জেলার মাছ চাষিরা। বিশেষ করে নদী তীরবর্তী এলাকার ঘেরগুলোর অধিকাংশই বর্ষণের পানিতে ডুবে আছে। এসব ঘেরের মাছ জাল দিয়ে কোনোমতে আটকে রেখেছেন চাষিরা। তবে অনেকের মাছ লাফিয়ে বানের জলে ভেসে গেছে।

সদর উপজেলার বরগুনা সদর ইউনিয়নের মাছ চাষি সাকিব ফরাজি বলেন, ‘আমার ঘেরের অনেক মাছ বেরিয়ে গেছে। কোনোমতে জাল দিয়ে আটকে রাখার চেষ্টা করছি। বৃষ্টি না কমলে মাছ রক্ষা করার কোনও উপায় নেই।’

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী কায়সার আহমেদ বলেন, ‘আমাদের ২২টি পোল্ডারের ৮০০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধের বেশকিছু এলাকায় ভাঙন কবলিত হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে আমরা সেসব এলাকার বাঁধ রক্ষায় ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, ‘আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের এলাকার খোঁজ-খবর রাখার জন্য বলেছি। অতি বর্ষণের কারণে সৃষ্ট প্লাবনের শিকার বাসিন্দাদের সরকারের পক্ষ থেকে যথাসম্ভব আশ্রয় ও খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে।’

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, সড়কে চলছে নৌকা

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, সড়কে চলছে নৌকা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৩০

মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন ধ্বংস করে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির উপর এবং চট্টগ্রামের ‘ফুসফুস’খ্যাত সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে সরে আসার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন রাজনীতিবিদ, পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের ২১ সন্তান।

বুধবার এক যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে পরিচালিত করছেন। তার সুশাসনকে কলঙ্কিত করতে প্রশাসনে ঘাপটি মেরে থাকা কিছু আমলা রেলওয়ের সরকারি জায়গায় বেসরকারি হাসপাতাল নির্মাণের দুঃসাহস দেখিয়েছেন। চট্টগ্রামের বুদ্ধিজীবী ও সুশীল সমাজের কঠোর বিরোধিতার পরেও প্রকল্পটি বাতিলের কোনও ঘোষণা এখনও দেওয়া হয়নি।’

বিবৃতিতে তারা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত ও প্রকৃতি ধ্বংস করে সিআরবি নয়; পাহাড়তলী, কুমিরা কিংবা অন্য যেকোনও জায়গায় হাসপাতাল নির্মাণের দাবি জানান।

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা আরও জানান, তারা হাসপাতাল নির্মাণের বিরুদ্ধে নয়, জায়গার বিরুদ্ধে। বন্দরে হাসপাতাল নির্মাণের জায়গা পরিদর্শন করেছেন দেবী শেঠীর মতো খ্যাতিমান চিকিৎসক।  সেই জায়গাটিও হাসপাতাল নির্মাণের উপযুক্ত জায়গা।

বিবৃতিতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা বলেন, ‘সিআরবিতে এক হাসপাতাল নির্মাণেই নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদ সমাধিস্থলসহ বহু স্মৃতিচিহ্ন। হাসপাতাল তৈরির জন্য যে ছয় একর জায়গা চিহ্নিত করা হয়েছে, সেখানে রয়েছে একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চাকসু) জিএস আবদুর রবের সমাধি, শহীদ শেখ নজির আহমদের সমাধিস্থল। হাসপাতাল হলে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ডবল এমএ মনোয়ার হোসেন, বিমল সিং, ফখরুল আলম, মো. সিরাজউদ্দিন, আলী নূর চৌধুরী, মহিউদ্দিন, নুরন্নবী চৌধুরী ও গঙ্গারামের স্মৃতিস্তম্ভও বিলীন হয়ে যাবে। শহীদ আবদুর রবের নামে থাকা রেলওয়ে কলোনিটিও ধ্বংস হয়ে যাবে। একই সঙ্গে হারিয়ে যাবে মহান মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার ক্যাপ্টেন রফিকের তৎকালীন কমান্ড অফিস কাঠের বাংলোটি। মুক্তিযুদ্ধের এ রকম অসংখ্য স্মৃতিবিজড়িত স্থান বাঁচাতে এখানে আমরা হাসপাতাল চাই না।’

বিবৃতিদাতা বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা হলেন– চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনিবাহী কমিটির সদস্য সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটি সদস্য মাহবুব উর রহমান রুহেল, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম জেলার সহ-সভাপতি দীপংকর চৌধুরী কাজল, অবিনাশী ৭১-এর সেক্রেটারি পারভেজ মান্নান, স্লোগান সম্পাদক মোহাম্মদ জহির, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমা হারুন লুবনা, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও হাটহাজারি উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম রাশেদুল আলম, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক শওকত বাঙালি, মহিলা শ্রমিক লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রুবা আহসান চৌধুরী, জহুর আহমদ চৌধুরী ফাউন্ডেশনের পরিচালক শরফুদ্দীন চৌধুরী রাজু, রহমত উল্লাহ চৌধুরী ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি হাবিব উল্লাহ চৌধুরী ভাস্কর, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সেক্রেটারি এসএম ফরহাদ আলী, দেওয়ান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সেক্রেটারি আবু তৈয়ব সিদ্দিকী, আওয়ামী লীগ নেতা তাজিব সুলতান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো. সরওয়ার আলম চৌধুরী মণি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগরের আহ্বায়ক শাহেদ মুরাদ সাকু, সদস্য সচিব কাজী মুহাম্মদ রাজিশ ইমরান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ওমর ফারুক রাসেল, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক আহমেদ কুতুব, চট্টগ্রাম ভেটেরেনারি বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার’স সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু মোহাম্মদ আরিফ প্রমুখ।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

নমুনা দিতে এসে মৃত্যু

নমুনা দিতে এসে মৃত্যু

চট্টগ্রামে পৌঁছেছে আরও এক লাখ ৮৫ হাজার টিকা

চট্টগ্রামে পৌঁছেছে আরও এক লাখ ৮৫ হাজার টিকা

করোনায় বিএনপির আরেক নেতার মৃত্যু

করোনায় বিএনপির আরেক নেতার মৃত্যু

সর্বশেষ

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অভিযান: ২৪ মামলায় ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অভিযান: ২৪ মামলায় ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

কর্মহীনদের সহায়তায়  খাদ্যসামগ্রী অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের

কর্মহীনদের সহায়তায় খাদ্যসামগ্রী অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

প্রাথমিকের ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ

প্রাথমিকের ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যবইয়ের চাহিদা এন্ট্রির নির্দেশ

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

ডেঙ্গুর লার্ভার তথ্য দেওয়ার আহ্বান তাপসের

সরকারের একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করলেন তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট

সরকারের একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করলেন তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

নিবন্ধন করেও টিকা নেননি, অ্যাপে দেখাচ্ছে দুই ডোজই সম্পন্ন

নিবন্ধন করেও টিকা নেননি, অ্যাপে দেখাচ্ছে দুই ডোজই সম্পন্ন

রংপুরে একদিনে ১৬ মৃত্যু

রংপুরে একদিনে ১৬ মৃত্যু

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে যুক্ত হলো অক্সিজেনের ৫০ সিলিন্ডার 

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে যুক্ত হলো অক্সিজেনের ৫০ সিলিন্ডার 

বাছুর ছাড়াই প্রতিদিন ৪ লিটার দুধ দিচ্ছে গরু

বাছুর ছাড়াই প্রতিদিন ৪ লিটার দুধ দিচ্ছে গরু

© 2021 Bangla Tribune