সেকশনস

তাইওয়ানের আকাশে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো চীনা যুদ্ধবিমান

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৩৫

তাইওয়ানের আকাশে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো চীনা যুদ্ধবিমান অনুপ্রবেশের অভিযোগ উঠেছে। রবিবারের অভিযানে চীনের ১৫টি বিমান অংশ নেয়। বেইজিং এমন সময়ে এই শক্তি প্রদর্শনের ঘটনা ঘটালো যখন সদ্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন জো বাইডেন।

তাইওয়ানকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া একটি প্রদেশ হিসেবে গণ্য করে চীন। কিন্তু তাইওয়ান নিজেদের সার্বভৌম রাষ্ট্র মনে করে। বিশ্লেষকরা বলছেন, তাইওয়ানের প্রতি জো বাইডেনের কতটুকু সমর্থন আছে সেটিই পরীক্ষা করে দেখছে বেইজিং।

বাইডেন ক্ষমতায় আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের করা প্রথম মন্তব্যে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, দেশটিকে নিজেদের প্রতিরক্ষায় সহায়তার বিষয়ে ওয়াশিংটন দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

সম্প্রতি কয়েক মাস ধরে তাইওয়ানের দক্ষিণাঞ্চল এবং দেশটি নিয়ন্ত্রিত প্রাতাস দ্বীপের মাঝের জলসীমা দিয়ে নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে চীন।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, শনিবার তাদের দক্ষিণ-পশ্চিম আকাশ প্রতিরক্ষা এলাকায় চীনের পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম আটটি বোমারু বিমান, চারটি ফাইটার জেট এবং একটি সাবমেরিন বিধ্বংসী বিমান প্রবেশ করে।

রবিবারের অভিযানে ১২টি ফাইটার, দুইটি সাবমেরিন বিধ্বংসী বিমান এবং একটি পরিদর্শনের কাজে ব্যবহৃত বিমান ছিল বলে জানা গেছে। দুটি ক্ষেত্রেই তাইওয়ানের বিমান বাহিনী বিমানগুলোকে সতর্ক করে সরিয়ে দিয়েছে এবং সেগুলোকে পর্যবেক্ষণ করতে আকাশ প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা মোতায়েন করেছে।

প্রেসিডেন্ট বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানের কয়েকদিনের মধ্যেই নিজেদের শক্তির এই মহড়া দেখালো চীন। নতুন মার্কিন প্রশাসন মানবাধিকার, বাণিজ্য, হংকং ও তাইওয়ানের মতো ইস্যুগুলোতে বেইজিং-এর ওপর চাপ অব্যাহত রাখবেন বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এই ইস্যুগুলো দুই দেশের মধ্যে ক্রমেই খারাপ হতে থাকা সম্পর্কে কাঁটার মতো বিঁধে রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সদ্য বিদায়ী ট্রাম্প প্রশাসন তাইপেই-এর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রেখেছে, অস্ত্র বিক্রি অব্যাহত রেখেছে এবং চীনের কড়া হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করে অঞ্চলটিতে উচ্চপদস্থ মার্কিন কর্মকর্তাদের পাঠিয়েছে। নিজের বিদায়ের কয়েক দিন আগে সদ্য সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও দীর্ঘদিন ধরে আমেরিকান ও তাইওয়ানিদের মধ্যে যোগাযোগের ওপর আরোপিত কড়াকড়ি প্রত্যাহার করে নেন।

চীন ও তাইওয়ান ইস্যুতে নতুন প্রশাসনের নীতি কী হয় সেটি এখনও দেখার বাকি রয়েছে। তবে বাইডেন প্রশাসন বলছে, দ্বীপটির সঙ্গে সম্পর্ক তারা আরও জোরদার করবে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেন, ‘বেইজিংকে আমরা আহ্বান জানাচ্ছি, তারা যাতে তাইওয়ানের ওপর সামরিক, কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক চাপ দেওয়া বন্ধ করে। এর বদলে তারা যেন তাইওয়ানের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সঙ্গে কার্যকরী আলোচনায় অংশ নেয়।’

গত সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রে থাকা দ্বীপটির ডি-ফ্যাক্টো অ্যাম্বাসেডর সিয়াও বি-খিম-কে বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। যাকে তাইওয়ানের প্রতি নতুন প্রশাসনের সমর্থন হিসেবে দেখা হচ্ছে।

তাইওয়ানের ক্ষমতাসীন ডেমোক্রেটিক প্রোগ্রেসিভ পার্টির শীর্ষস্থানীয় একজন আইনপ্রণেতা লো চিন-চেং। বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে তিনি বলেন, চীনের এই পদক্ষেপ দ্বীপটিকে সমর্থন দেওয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে নিবৃত রাখার প্রচেষ্টার অংশ। এটা বাইডেন প্রশাসনকে একটি বার্তা দিচ্ছে।

১৯৪৯ সালে চীনের গৃহযুদ্ধ শেষ হওয়ার পর থেকে চীন ও তাইওয়ানে আলাদা সরকার রয়েছে। তাইওয়ানের আন্তর্জাতিক কর্মকাণ্ড সীমিত করতে দীর্ঘ দিন ধরে চেষ্টা করে আসছে বেইজিং। অন্যদিকে প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় প্রভাব প্রতিষ্ঠা করতে দুই পক্ষই প্রতিযোগিতা করে আসছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে উত্তেজনা বেড়েছে এবং দ্বীপটিকে আবারও নিয়ন্ত্রণে পেতে শক্তি ব্যবহারের হুঁশিয়ারিও দিয়েছে চীন। যদিও হাতে গোনা কয়েকটি দেশ তাইওয়ানকে স্বীকৃতি দিয়েছে, তবে এর গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারের অনেক দেশের সঙ্গেই দৃঢ় বাণিজ্যিক ও অনানুষ্ঠানিক সম্পর্ক রয়েছে।

অন্য দেশগুলোর মতোই তাইপেই-এর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আনুষ্ঠানিক কোনও কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই। কিন্তু মার্কিন একটি আইনে দ্বীপটিকে প্রতিরক্ষা সহায়তার কথা বলা রয়েছে। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

পালাননি, করোনা মোকাবিলার ফ্রন্ট লাইনে লড়াই করছেন ব্রিটিশ নারীরা

পালাননি, করোনা মোকাবিলার ফ্রন্ট লাইনে লড়াই করছেন ব্রিটিশ নারীরা

ভারতে ১৬০ রোহিঙ্গা আটক

ভারতে ১৬০ রোহিঙ্গা আটক

এবার চীন-মার্কিন ‘গেম অব ড্রোনস’

এবার চীন-মার্কিন ‘গেম অব ড্রোনস’

মিয়ানমারে আরও দুই বিক্ষোভকারীকে হত্যা

মিয়ানমারে আরও দুই বিক্ষোভকারীকে হত্যা

সৌদি আরবের তেল শিল্পের প্রাণকেন্দ্রে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

সৌদি আরবের তেল শিল্পের প্রাণকেন্দ্রে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ভ্যাকসিন ভীতি কাটছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশিদের

ভ্যাকসিন ভীতি কাটছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশিদের

এশিয়ার কয়েকটি দেশে টিকাদান বিলম্বিত হচ্ছে কেন?

এশিয়ার কয়েকটি দেশে টিকাদান বিলম্বিত হচ্ছে কেন?

সর্বশেষ

নিউজিল্যান্ডে ভালো করার উপায় জানালেন মাহমুদউল্লাহ

নিউজিল্যান্ডে ভালো করার উপায় জানালেন মাহমুদউল্লাহ

১০০টি ‘সেলুন লাইব্রেরি’ হচ্ছে

১০০টি ‘সেলুন লাইব্রেরি’ হচ্ছে

উপজেলা আ.লীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগ কাদের মির্জার বিরুদ্ধে 

উপজেলা আ.লীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগ কাদের মির্জার বিরুদ্ধে 

কাপড় ও সুতার আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী হতে যাচ্ছে রাজধানীতে

কাপড় ও সুতার আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী হতে যাচ্ছে রাজধানীতে

শিগগিরই বড়লেখায় স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হবে: পরিবেশমন্ত্রী

শিগগিরই বড়লেখায় স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হবে: পরিবেশমন্ত্রী

তরঙ্গ নিলাম পরিণত হলো ‘লড়াইয়ে’

তরঙ্গ নিলাম পরিণত হলো ‘লড়াইয়ে’

আফগানরা না এলে নেপালে যাবে বাংলাদেশ দল

আফগানরা না এলে নেপালে যাবে বাংলাদেশ দল

‘৭ মার্চ ভাষণের প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে বঙ্গবন্ধুকে ভুল বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছিল’

‘৭ মার্চ ভাষণের প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে বঙ্গবন্ধুকে ভুল বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছিল’

পালাননি, করোনা মোকাবিলার ফ্রন্ট লাইনে লড়াই করছেন ব্রিটিশ নারীরা

পালাননি, করোনা মোকাবিলার ফ্রন্ট লাইনে লড়াই করছেন ব্রিটিশ নারীরা

অবৈধ বাংলাদেশিদের চাকরির বিষয়ে বিবেচনা করছে সৌদি আরব

অবৈধ বাংলাদেশিদের চাকরির বিষয়ে বিবেচনা করছে সৌদি আরব

ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় গৃহবধূ রহিমাকে, গ্রেফতার ২

ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় গৃহবধূ রহিমাকে, গ্রেফতার ২

ভারতে ১৬০ রোহিঙ্গা আটক

ভারতে ১৬০ রোহিঙ্গা আটক

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পালাননি, করোনা মোকাবিলার ফ্রন্ট লাইনে লড়াই করছেন ব্রিটিশ নারীরা

পালাননি, করোনা মোকাবিলার ফ্রন্ট লাইনে লড়াই করছেন ব্রিটিশ নারীরা

ভারতে ১৬০ রোহিঙ্গা আটক

ভারতে ১৬০ রোহিঙ্গা আটক

এবার চীন-মার্কিন ‘গেম অব ড্রোনস’

এবার চীন-মার্কিন ‘গেম অব ড্রোনস’

মিয়ানমারে আরও দুই বিক্ষোভকারীকে হত্যা

মিয়ানমারে আরও দুই বিক্ষোভকারীকে হত্যা

সৌদি আরবের তেল শিল্পের প্রাণকেন্দ্রে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

সৌদি আরবের তেল শিল্পের প্রাণকেন্দ্রে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ভ্যাকসিন ভীতি কাটছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশিদের

ভ্যাকসিন ভীতি কাটছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশিদের


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.