X
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ৮ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

আটক বাঙালিদের ভাগ্যে কী ঘটেছে জানতে চান বঙ্গবন্ধু

আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারির ঘটনা।)

পাকিস্তানে অন্যায়ভাবে আটক ৪ লাখ নিরপরাধ বাঙালির ভাগ্যে কী ঘটেছে তা অবহিত করার জন্য বিশ্ব সমাজের প্রতি আবেদন জানান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি বলেন, পাকিস্তান সম্পূর্ণ অবৈধভাবে চার লাখ নিরপরাধ ও অসহায় বাঙালিকে আটকে রেখেছে। তিনি বলেন, নিরপরাধ এসব বাঙালিকে আটক করে রাখার কোনও অধিকার পাকিস্তানের নেই।

১৯৭৩ সালের ২৬ জানুয়ারি রংপুরের কুড়িগ্রামে এক বিশাল সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী ভাষণ দেন। সেখানে তিনি এসব কথা বলেন।

তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে যেসব অবাঙালি পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে সহযোগিতা করেনি এবং যেসব অবাঙালি বাংলাদেশে বসবাসের ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন তারা দেশের অন্যান্য নাগরিকের মতোই স্বাভাবিক জীবন ভোগ করছেন। বঙ্গবন্ধু বলেন, শুধু তারাই নন, এমনকি যারা পাকিস্তানে চলে যেতে চেয়েছেন সেসব অবাঙালিও স্বাভাবিক জীবন কাটাচ্ছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে অবাঙালিদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা সরেজমিন দেখে যাওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে আগেই অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তারা একাধিকবার দেখেছেন কিন্তু পাকিস্তানে আটক হওয়ার দিন থেকেই ৪ লাখ বাঙালির হাল জানা যায়নি।

ভুট্টোকে হুঁশিয়ারি

বঙ্গবন্ধু বলেন, পাকিস্তান কোনও আন্তর্জাতিক সংস্থাকে দেখতে দেয়নি সেখানে বাঙালিরা কী অবস্থায় আছে। কোনও আন্তর্জাতিক সংস্থা আটক বাঙালিদের ভাগ্য সম্পর্কে কোনও খবর দিতে পারেনি। নিরপরাধ আটক বাঙালিদের নিয়ে ন্যক্কারজনক খেলা না খেলার জন্য পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ভুট্টোকে তিনি হুঁশিয়ার করে দেন। বঙ্গবন্ধু বলেন, পাকিস্তান যখন আটক বাঙালিদের কাছে অপশন চেয়েছিল তখন তারা বাংলাদেশকে বেছে নিয়েছিল সুতরাং পাকিস্তানের কোনও অধিকার নেই তাদের আটকে রাখা।


সবুজ বিপ্লবের আহ্বান

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান খাদ্যে সফলতা অর্জনের উদ্দেশে দেশের সবুজ বিপ্লব আনার জন্য সর্বাত্মক উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, দেশের এক ইঞ্চি পরিমাণ জমিও যেন অনাবাদি না থাকে। দেশের সকল জমি আবাদি করে তোলা হয়।

বঙ্গবন্ধু বলেন, সাড়ে ৭ কোটি মানুষের ক্ষুধার অন্ন জোগাতে দেশের সকল জমিতে ফসল তুলতে হবে। দেশের সমগ্র জনসমষ্টির মধ্যে সুষম বণ্টনের জন্যই সরকার শিল্প, ব্যাংক-বীমা জাতীয়করণ করেছে। জনগণের মধ্যে জাতীয় সম্পদের সুষম বণ্টন সরকারের জাতীয়করণ প্রকল্পের একমাত্র উদ্দেশ্য। তিনি বলেন, আগে দেশের যেসব প্রধান প্রধান শিল্প-ব্যাংক ও বীমা শিল্পের মালিক ছিল মাত্র কয়েকজন পুঁজিপতি, আজ সেখানে সাড়ে সাত কোটি বাঙালি তার মালিক হয়েছে।

মানবতার সেবায় আত্মনিয়োগের আহ্বান

বঙ্গবন্ধু তার দলের সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, সকল প্রকার ব্যক্তিস্বার্থের ঊর্ধ্বে থেকে মানবতার সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে।

বঙ্গবন্ধু মীরজাফরদের উদ্দেশে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, তারা যদি তাদের আগের ভূমিকা পরিহার না করে এবং তারা যদি এখনও বাংলাদেশের জনগণের স্বার্থ ও স্বাধীনতার প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, মীরজাফর না থাকলে বাংলাদেশ অনেক আগেই স্বাধীন হতো। মীরজাফরদের একথা জানা উচিত যে অতীতে আইয়ুব-ইয়াহিয়া আমলে ফাঁসির মুখোমুখি হয়েও তিনি মাথা নত করেননি। ১৯৭৩ সালের এইদিনে সিরাজগঞ্জ, কুড়িগ্রাম, জয়পুরহাটের তিনটি বিশাল জনসভায় ভাষণদানকালে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একথা ঘোষণা করেন বলে খবরে উল্লেখ করা হয়।

জয়পুরহাটের জনসভায় বঙ্গবন্ধু

জয়পুরহাট থেকে পাঠানো এক তারবার্তায় দৈনিক বাংলার নিজস্ব সংবাদদাতা জানান, সকালে এখানে থানা ট্রেনিং সেন্টারের বিস্তীর্ণ অঙ্গনে এক বিশাল জনসভায় ভাষণ দেওয়ার সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষণা করেন, যারা দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে, যারা দেশের জনগণের শান্তি বিঘ্নিত করতে অপচেষ্টায় লিপ্ত, তাদের সকল তৎপরতা বন্ধের জন্য সরকার সর্ব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। বঙ্গবন্ধু বলেন, যেসব সমাজবিরোধী এখনও চুরি, ডাকাতি, খুন-জখম আর গুপ্তহত্যার মাধ্যমে জনগণের শান্তি কেড়ে নিচ্ছে, যারা দুর্নীতি ঘুষ ইত্যাদির মাধ্যমে জনগণের দুঃখের বোঝা বানিয়েছে, তাদের নির্মূল করা হবে।

বঙ্গবন্ধু বলেন, ধর্মনিরপেক্ষতা ও জাতীয়তাবাদের আদর্শের ওপর ভিত্তি করে শোষণমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার নিশ্চয়তা বিধান করা হয়েছে। এই শাসনতন্ত্রে নিজেদের প্রতিনিধি নির্বাচনে জনগণের সার্বভৌমত্ব নিশ্চিত করার জন্যই এই শাসনতন্ত্র মোতাবেক নির্বাচন দেওয়া হয়েছে বলেও তিনি মত প্রকাশ করেন।

জনগণের আস্থা লাভের জন্য সচেষ্ট হওয়ার আহ্বান

বঙ্গবন্ধু বলেন, যদি খাদ্য উৎপাদন বাড়ানো যায় তবে খাদ্যের জন্য কারও কাছে হাত পাততে হবে না। গত ২৫ বছরে পাকিস্তান দেশের সম্পদ নিয়ে নিলেও আমাদের আদর্শ ছিনিয়ে নিতে পারেনি। তিনি জানান, গত বছর বাংলাদেশ বিদেশ থেকে সাহায্য সাড়ে ৩শ কোটি টাকা পেয়েছে। যারা জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করে তাদের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করছে তাদের লজ্জা হওয়া উচিত, তারা দুর্গত মানুষদের সাহায্য করতে এগিয়ে আসেনি।

ধর্মনিরপেক্ষতা প্রসঙ্গে বঙ্গবন্ধু বলেন, ধর্মনিরপেক্ষতার অর্থ ধর্মহীনতা নয়। প্রত্যেকে নিজের ধর্ম-কর্ম করতে পারবে, তবে ধর্মের নামে শোষণ চলবে না। বঙ্গবন্ধু বলেন, আমি এতকাল জনগণের যে ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা পেয়েছি সেই ভালোবাসা পেতে চাই। প্রধানমন্ত্রীর গদি চাই না।

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মূল্য বৃদ্ধির জন্য দায়ী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

মূল্য বৃদ্ধির জন্য দায়ী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

‘বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী চুক্তিতে আপত্তিকর কিছু নেই’

‘বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী চুক্তিতে আপত্তিকর কিছু নেই’

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে  বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে  বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বাংলাদেশ-পাকিস্তান ইস্যুতে কথা বলতে চাননি দুই কূটনীতিক

বাংলাদেশ-পাকিস্তান ইস্যুতে কথা বলতে চাননি দুই কূটনীতিক

১৯৫ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচারের সিদ্ধান্ত

১৯৫ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচারের সিদ্ধান্ত

খাদ্য সমস্যা সমাধানে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, জানালেন বঙ্গবন্ধু

খাদ্য সমস্যা সমাধানে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, জানালেন বঙ্গবন্ধু

চারদিকে নিশ্চুপ ক্ষুধার্ত মুখ, সর্বোচ্চটা করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

চারদিকে নিশ্চুপ ক্ষুধার্ত মুখ, সর্বোচ্চটা করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

দুখীজনের মাঝে বঙ্গবন্ধু

দুখীজনের মাঝে বঙ্গবন্ধু

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধির বৈঠক

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধির বৈঠক

মামলা হওয়া যুদ্ধবন্দিদের ফেরত পাঠাবে ভারত

মামলা হওয়া যুদ্ধবন্দিদের ফেরত পাঠাবে ভারত

আটক বাঙালিদের ফেরত আনতে বঙ্গবন্ধুর সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব

আটক বাঙালিদের ফেরত আনতে বঙ্গবন্ধুর সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব

স্বাধীন দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতির সংসদে ভাষণ

স্বাধীন দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতির সংসদে ভাষণ

সর্বশেষ

নেটফ্লিক্সে নতুন: আসছে আলো-অন্ধকারের লড়াই

নেটফ্লিক্সে নতুন: আসছে আলো-অন্ধকারের লড়াই

লকডাউনে বাঙ্গি চাষিদের মাথায় হাত

লকডাউনে বাঙ্গি চাষিদের মাথায় হাত

তিন পেসার নিয়ে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

তিন পেসার নিয়ে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড, পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক দোষী সাব্যস্ত

জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড, পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক দোষী সাব্যস্ত

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

ধানে চিটা, কৃষকের মাথায় হাত

ধানে চিটা, কৃষকের মাথায় হাত

বুনো হাতির আতঙ্কে কাপ্তাই, চালু হবে সোলার ফেন্সিং

বুনো হাতির আতঙ্কে কাপ্তাই, চালু হবে সোলার ফেন্সিং

দানবাক্স খুললেই সোনা-দানা পাওয়া যায় যে মসজিদে

দানবাক্স খুললেই সোনা-দানা পাওয়া যায় যে মসজিদে

গাড়ি প্রতি চাঁদা দু'টি তরমুজ!

গাড়ি প্রতি চাঁদা দু'টি তরমুজ!

করোনায় ফরিদপুরে ৪ জনের মৃত্যু 

করোনায় ফরিদপুরে ৪ জনের মৃত্যু 

ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ১

ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ১

চালের দাম কে বাড়ায়, মিলার না আড়তদার?

চালের দাম কে বাড়ায়, মিলার না আড়তদার?

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মূল্য বৃদ্ধির জন্য দায়ী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

মূল্য বৃদ্ধির জন্য দায়ী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

‘বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী চুক্তিতে আপত্তিকর কিছু নেই’

‘বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী চুক্তিতে আপত্তিকর কিছু নেই’

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে  বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে  বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বাংলাদেশ-পাকিস্তান ইস্যুতে কথা বলতে চাননি দুই কূটনীতিক

বাংলাদেশ-পাকিস্তান ইস্যুতে কথা বলতে চাননি দুই কূটনীতিক

১৯৫ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচারের সিদ্ধান্ত

১৯৫ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচারের সিদ্ধান্ত

খাদ্য সমস্যা সমাধানে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, জানালেন বঙ্গবন্ধু

খাদ্য সমস্যা সমাধানে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, জানালেন বঙ্গবন্ধু

চারদিকে নিশ্চুপ ক্ষুধার্ত মুখ, সর্বোচ্চটা করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

চারদিকে নিশ্চুপ ক্ষুধার্ত মুখ, সর্বোচ্চটা করতে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ

দুখীজনের মাঝে বঙ্গবন্ধু

দুখীজনের মাঝে বঙ্গবন্ধু

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধির বৈঠক

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধির বৈঠক

মামলা হওয়া যুদ্ধবন্দিদের ফেরত পাঠাবে ভারত

মামলা হওয়া যুদ্ধবন্দিদের ফেরত পাঠাবে ভারত

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune